রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
১৭ জানুয়ারী ২০১৭, ৪ মাঘ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

মে মাসের সুখস্মৃতি শোকগাথা- সবই থাকে মে ফ্লাওয়ারে

প্রকাশিত : ৯ মে ২০১৬
  • রঙিন ফুলে মুগ্ধ প্রকৃতি

মোরসালিন মিজান ॥ মে ফ্লাওয়ার যেহেতু, মে মাসেই ফুটবে। এতে অবাক হওয়ার কিছু নেই। এর পরও একটি টবের দিকে কিছুদিন তাকিয়ে থেকে অবাক হতে হলো। এপ্রিলেও ফুলের কোন নাম গন্ধ নেই। এমনকি গাছ দেখা যাচ্ছিল না। কিছু একটা, মনে হচ্ছিল, মাটি ঠেলে বের হচ্ছে। অথচ মে মাস যেই না শুরু হলো, দিব্যি গাছটি দাঁড়িয়ে গেল। প্রথম সপ্তাহ পার হলো না। তার আগেই ফুল! প্রথম দিন আধফোটা। পরের দিন পুরোটা দৃশ্যমান হলো। এই প্রতিবেদকের বাসায় নয় শুধু, এখন বহু শৌখিন মানুষের বাগানে ফুটেছে মে ফ্লাওয়ার।

বলার অপেক্ষা রাখে না, এই মে মাসে চারপাশে হরেক রকমের ফুল ফুটে আছে। কৃষ্ণচূড়া সোনালুতে দারুণ রঙিন শহর। কিন্তু এগুলোর কোনটিরই মে মাসের সঙ্গে সরাসরি সম্পর্ক নেই। মাসের আগে ফোটে। পরেও ফোটে। আর মে ফ্লাওয়ার ফোটে মে মাসেই কেবল। এ কারণে মে ফ্লাওয়ার একটি-ই। বছরের অন্য কোন সময় এর দেখা মেলে না। যেই না মে শুরু, অদ্ভুত সুন্দর ফুল ফোটে। এখন বাগানে বাসার ছাদে বেলকুনিতে মাথা তুলে সৌন্দর্যের জানান দিচ্ছে মে ফ্লাওয়ার। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে চোখ মেলে তাকিয়ে আছে। আকারে ক্রিকেট বলের চেয়ে বড়। প্রথম দেখায় মনে হয়, পুরোটা কাঁটায় ঘেরা। আদতে তা নয়। পুংকেশর সামান্য ছুঁয়ে দিলে সেটি বোঝা যায়। আঙুলের ডগায় উঠে আসে ছিটে ফোঁটা হলুদ রং। ঘ্রাণ নেই বটে। আকর্ষণীয় খুব। প্রতিটি ফুল এক সপ্তাহর মতো থাকে। একটি ঝরে যেতে যেতে আরেকটি ফুটতে থাকে। ফলে বেশ কিছুদিন দেখা যায় মে মাসের অতিথিকে। আকর্ষণীয়

গড়ন ও সৌন্দর্য খুব সহজেই অন্য ফুল থেকে একে আলাদা করে দেয়। যারা চেনেন, দেখেই বলে দিচ্ছেন এখন মে মাস! মাসের পুরোটা জুড়েই থাকবে প্রিয় এই ফুল।

মজার ব্যাপার হলো, মে’র আগে পরের এগারো মাস গাছের কা- শুকিয়ে মাটির সঙ্গে মিশে থাকে। এপ্রিল এলেই নতুন জীবন পেতে শুরু করে। দেখতে দেখতে গাছের আকার ধারণ করে। আর গাছ হতে না হতেই ফুল! মে মাসে ফুল পূর্ণাঙ্গ আকার ধারণ করে। যতদূর তথ্যÑ ফুলটি প্রথম দেখা যায় আফ্রিকা মহাদেশে। বর্তমানে পৃথিবীর অনেক দেশেই হয়। বাংলাদেশেও বহুকাল ধরে আছে।

উদ্ভিদবিদ দ্বিজেন শর্মা জানান, গোলাকার দেখতে হওয়ায় একে বল লিলিও বলা হয়। একই কারণে বলা হয় গ্লোব লিলি। পাউডার পাফ লিলি, আফ্রিকান ব্লাড লিলি নামেও পরিচিত। মে ফ্লাওয়ার গাছ লম্বায় ১০ মিটার পর্যন্ত হয়ে থাকে। ফুল প্রায় ৩ সে.মি. চওড়া হয়। পাপড়ি ও পুংকেশর অসমান।

ঢাকার ইকবাল রোডের বাসিন্দা নাজনীন আক্তার মিতার বাসায়ও ফুটেছে মে ফ্লাওয়ার। আরও অনেক ফুলে তার বাগান ভরা। তবে মে ফ্লাওয়ার নিয়ে বিশেষ আবেগ। ফুল ফুটতেই ছবি তুলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে দিয়েছেন। কারণটা ফুলের সৌন্দর্য নয় শুধু, আরও অদ্ভুত। মিতা বলেন, মে মাসে আমার ছোট বোন মৌটুসীর জন্মদিন। ফুলটা ফুটলেই ওর জন্মদিনের কথা মনে পড়ে যায়। ও থাকে অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে। খুব মিস করি। ফুলটির দিকে তাকালে মনে হয় ওর মুখটা দেখছি! এমন কথা থেকে পরিষ্কারÑআরও অনেকের অনেক অনেক আবেগ অনুভূতি নিশ্চয়ই মিশে আছে ফুলটির সঙ্গে। মে মাসের যে কোন সুখ স্মৃতি, শোকগাথা কেবলই মে ফ্লাওয়ারে ফোটে!

প্রকাশিত : ৯ মে ২০১৬

০৯/০৫/২০১৬ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: