মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ১৮.৯ °C
 
২৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৭, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

সেরেনার জয়রথ চলছেই

প্রকাশিত : ৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫
সেরেনার জয়রথ চলছেই

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ফেবারিট হিসেবেই বছরের শেষ গ্র্যান্ডসøাম টুর্নামেন্টের কোর্টে নামেন সেরেনা উইলিয়ামস। আর ইউএস ওপেনের মঞ্চে জয়ের ধারা অব্যাহত রেখেছেন তিনি। বৃহস্পতিবার কষ্টার্জিত জয়ে শেষ গ্র্যান্ডসøাম টুর্নামেন্টের তৃতীয় পর্বের টিকেট নিশ্চিত করেছেন তিনি। টুর্নামেন্টের শীর্ষ বাছাই সেরেনা উইলিয়ামস এদিন ৭-৬ এবং ৬-৩ গেমে হারান ডাচ্ কন্যা কিকি বারটেনসকে।

আর্থার এ্যাশ স্টেডিয়ামে এদিন প্রথম সেটেই বারটেনসের বিপক্ষে ২-৪ গেমে পিছিয়ে পড়েন সেরেনা। কিন্তু জাত চ্যাম্পিয়ন বলে কথা। অখ্যাত প্রতিপক্ষের বিপক্ষে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়াতে খুব বেশি সময় নেননি তিনি। শেষ পর্যন্ত তৃতীয় পর্বের টিকেট নিশ্চিত করে নিজের শ্রেষ্ঠত্বের প্রমাণ দেন ৩৩ বছর বয়সী এই আমেরিকান টেনিস তারকা। গত মাসেই উইম্বল্ডন জিতেছেন তিনি। সেইসঙ্গে দ্বিতীয়বারের মতো ‘সেরেনা সøাম’ জয়ের রেকর্ড গড়েন সেরেনা উইলিয়ামস। আমেরিকান টেনিসের জীবন্ত কিংবদন্তির সামনে এখন নতুন মাইলফলকের হাতছানি। ইউএস ওপেন জিততে পারলেই প্রথমবারের মতো একই বছরে সব গ্র্যান্ডসøাম জয়ের কৃতিত্ব অর্জন করবেন তিনি। ৩৩ বছর বয়সী সেরেনা উইলিয়ামসও হাঁটছেন ঠিক সেই পথে। তার আগে এই কীর্তি গড়েছিলেন স্টেফি গ্রাফ। ১৯৮৮ সালে সর্বশেষ কোন প্রমীলা খেলোয়াড় হিসেবে ক্যালেন্ডার সøাম জয়ের স্বাদ পেয়েছিলেন তিনি। স্টেফি গ্রাফের পর এবার প্রথম মহিলা হিসেবে একই বছরে সব গ্র্যান্ডসøাম জয়ের সুযোগ পাচ্ছেন আমেরিকান টেনিসের এই জীবন্ত কিংবদন্তি।

তবে দ্বিতীয় পর্বের বাধা পেরুতে রীতিমতো ঘাম ঝরাতে হয়েছে সেরেনাকে। তবে জয়ের পর স্বস্তি প্রকাশ করেছেন বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের নাম্বার ওয়ান এই তারকা। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘তার বিপক্ষে জয় পেতে যথেষ্ট কষ্ট হয়েছে। কিন্তু এই মুহূর্তে স্বস্তি অনুভব করছি।’ তৃতীয় পর্বে সেরেনার প্রতিপক্ষ এখন তারই স্বদেশী বেথানি মাটেক-স্যান্ডস। দ্বিতীয় পর্বে যিনি সতীর্থ কো ভানডেওয়েগিকে ৬-২ এবং ৬-১ গেমে পরাজিত করেছেন।

গত মৌসুমে এই ইউএস ওপেন জিতেই বছর শেষ করেছিলেন সেরেনা উইলিয়ামস। চলতি মৌসুমের শুরু থেকেই অপ্রতিরোধ্য তারা। বছরের প্রথম গ্র্যান্ডসøাম টুর্নামেন্ট অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের পর ফ্রেঞ্চ এবং উইম্বল্ডনেও চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করেন তিনি। এবার ইউএস ওপেনের শিরোপা নিজের শোকেসে তুলতে পারলে ক্যালেন্ডার সøাম ছাড়াও আরেকটি রেকর্ড গড়বেন সেরেনা। টেনিসের উন্মুক্ত যুগে স্টেফি গ্রাফের জেতা ২২ গ্র্যান্ডসøামের রেকর্ডে ভাগ বসাবেন আমেরিকান কিংবদন্তি। ইউএস ওপেন শুরুর আগেই নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছেন মারিয়া শারাপোভা।

যাকে বলা হয়ে থাকে সেরেনার চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী। রাশিয়ান টেনিসের গ্ল্যামারগার্ল না থাকায় এবার দারুণ সুযোগ সেরেনার সামনে। তার সুদীর্ঘ ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ দশ তারকার মুখোমুখি না হয়েই ফাইনালে উঠতে পারেন তিনি। তবে কোয়ার্টার ফাইনালে সেরেনা উইলিয়ামসের প্রতিপক্ষ হিসেবে দাঁড়াতে পারেন তারই বড় বোন ভেনাস উইলিয়ামস অথবা বেলিন্ডা বেনচিচ।

সাত গ্র্যান্ডসøাম জিতেছেন ভেনাস উইলিয়ামস। কিন্তু এখন আর সেই ফর্মে নেই তিনি। কিন্তু তারপরও নিজেকে হারিয়ে খোঁজছেন টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের সাবেন নাম্বার ওয়ান তারকা ভেনাস। এছাড়া বেলিন্ডা বেনচিচ ইতোমধ্যেই পাদপ্রদীপের আলোয় চলে এসেছেন। বিশেষ করে গত মাসে রজার্স কাপে সেরেনা উইলিয়ামসকে পরাজয়ের স্বাদ উপহার দিয়ে। চলতি মৌসুমে রজার্স কাপের আগে মাত্র একটি ম্যাচে হেরেছিলেন সেরেনা। আর সেই সেরেনাকে হারিয়েই রীতিমতো টেনিস বিশ্বকে চমকে দেন বেনচিচ। শুধু তাই নয় সেই টুর্নামেন্টের সেমিফাইনালে সিমোনা হ্যালেপকেও হারিয়ে শিরোপা জয়ের হাসি হেসেছিলেন সুইজারল্যান্ডের এই তরুণ প্রতিভাবান টেনিস তারকা। এবার ইউএস ওপেনের কোয়ার্টার ফাইনালেও যদি দেখা হয়ে যায় সেরেনার সঙ্গে তাহলে যে লড়াইটা বেশ জমজমাটই হবে তা অনুমিতই।

প্রকাশিত : ৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫

০৪/০৯/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: