আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২৬.১ °C
 
২১ ফেব্রুয়ারী ২০১৭, ৯ ফাল্গুন ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

‘ক্রিকেটের চ্যালেঞ্জও জয়ী হবে তারা’

প্রকাশিত : ৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫
‘ক্রিকেটের চ্যালেঞ্জও জয়ী হবে তারা’
  • আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী ক্রিকেট টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
  • বাংলাদেশ-ইংল্যান্ড উদ্বোধনী ম্যাচ বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ জমকালো আয়োজন ছিল। কথা ছিল, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেই জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়েই আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী ক্রিকেট টুর্নামেন্টের উদ্বোধন করবেন বুধবার। প্রধানমন্ত্রী ঠিকই উদ্বোধন ঘোষণা করতে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে আসলেন। কিন্তু বৃষ্টির জন্য জমকালোভাবে আর টুর্নামেন্টের উদ্বোধন ঘোষণা করতে পারলেন না। তবে ঠিকই প্রতিবন্ধী ক্রিকেটারদের পাশে দাঁড়ালেন। বলেও দিলেন, ‘ক্রিকেটের চ্যালেঞ্জও জয় করবে তারা।’ প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন ঘোষণার মধ্য দিয়ে শুধু টুর্নামেন্টের উদ্বোধনই হলো, উদ্বোধনী দিনে যে স্বাগতিক বাংলাদেশ ও ইংল্যান্ডের মধ্যকার ম্যাচটি ছিল, তা আর হলো না। বৃষ্টিতে খেলা পরিত্যক্ত হয়ে গেল। আজ বিকেএসপিতে পাকিস্তান-আফগানিস্তান ও ভারত-ইংল্যান্ড লড়াই হবে।

শারীরিক প্রতিবন্ধীদের নিয়ে প্রথমবারের মতো আয়োজিত হচ্ছে আইসিআরসি আন্তর্জাতিক টি২০ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট। টুর্নামেন্টে ৫ দল অংশ নিচ্ছে। স্বাগতিক বাংলাদেশসহ ভারত, পাকিস্তান, আফগানিস্তান, ইংল্যান্ড খেলছে। সকাল সাড়ে ১০টায় টুর্নামেন্টের উদ্বোধন করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উদ্বোধনে সময় তিনি এও বলেছেন, প্রতিবন্ধিতা প্রতিভা বিকাশের বাধা হতে পারে না।’

সকালে মিরপুর স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠানস্থলে পৌঁছেই শেখ হাসিনা প্রথমেই পাঁচ দেশের প্রতিবন্ধী ক্রিকেট দলের অধিনায়কদের সঙ্গে পরিচিত হন। অনুষ্ঠানটি উন্মুক্ত মাঠে হওয়ার কথা থাকলেও বৃষ্টির জন্য তা হয়নি। ৪০ মিনিট পরে মিরপুর স্টেডিয়ামের সংবাদ সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠান হয়। যেখানে শেখ হাসিনা বলেন, ‘প্রতিবন্ধীরা সমাজের সব স্তরে অবদান রাখছে। ক্রিকেটও তার ব্যতিক্রম হতে পারে না। তারা কেন বাইরে পড়ে থাকবে? তাদের মূল স্রোতধারায় নিয়ে আসতে হবে। প্রতিবন্ধিতা তাদের বিকাশের বাধা হতে পারে না। তাদের মধ্যেও ট্যালেন্ট থাকে। তাদেরও মূলধারায় জায়গা করে দেয়ার জন্য সরকার কাজ করছে। প্রতিবন্ধী হলেই তারা সমাজের, পরিবারের বোঝা না। আর আমরা সেই ব্যবস্থাটাই নিচ্ছি, যাতে তাদের ভেতরে লুকিয়ে থাকা গুণাবলী বিকশিত হওয়ার সুযোগ করে দেয়া যায়। তাদের প্রতি অবহেলা করবেন না। তারাও তাদের যোগ্যতার প্রমাণ দিতে পারে, যদি সুযোগ সৃষ্টি করে দেয়া যায়। আমরা সেই সুযোগ করে দেয়ার চেষ্টা করছি। আন্তর্জাতিক পর্যায় থেকেও তারা সম্মান নিয়ে আসতে পারবে, সেই বিশ্বাস আমার আছে। আমাদের ইচ্ছা ছিল খুব সুন্দর করে দৃষ্টিনন্দন করা। কিন্তু প্রকৃতির কাছে মানুষ অসহায়।’

যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বিরেন শিকদার এবং বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনও অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন। যুব ও ক্রীড়া উপমন্ত্রী আরিফ খান জয়, বিসিবির কর্মকর্তা ও বাংলাদেশ জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটাররাও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। আইসিআরসির সঙ্গে এই টুর্নামেন্ট আয়োজনে সার্বিক সহযোগিতায় রয়েছে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (বিকেএসপি) ও বিসিবি। টুর্নামেন্ট ও বিসিবির শারীরিক প্রতিবন্ধীদের নিয়ে ক্রিকেট দলের শুভেচ্ছা দূত হয়েছেন বাংলাদেশের ওয়ানডে ও টি২০ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা।

উদ্বোধন হলেও টানা বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হয়েছে বাংলাদেশ ও ইংল্যান্ডের উদ্বোধনী ম্যাচ। বেলা ১১টায় খেলা শুরু হওয়ার কথা ছিল। দুপুর ১টা পর্যন্তও বৃষ্টি না থামায় ম্যাচ পরিত্যক্ত ঘোষণা করেন দুই আম্পায়ার। বৃষ্টির মধ্যেও স্টেডিয়ামের গ্যালারিতে উপস্থিত ছিলেন স্কুলের অনেক শিক্ষার্থী। বাংলাদেশ ও ইংল্যান্ডের খেলোয়াড়রা তাদের অনেকের সঙ্গে কথা বলেন, অটোগ্রাফ দেন, ছবি তোলেন। পরিত্যক্ত ম্যাচ থেকে এক পয়েন্ট করে পেয়েছে বাংলাদেশ ও ইংল্যান্ড। শুক্রবার নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে পাকিস্তানের বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশ।

প্রকাশিত : ৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫

০৩/০৯/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: