কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
২০ ফেব্রুয়ারী ২০১৭, ৮ ফাল্গুন ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ ইংল্যান্ড

প্রকাশিত : ২ সেপ্টেম্বর ২০১৫
  • প্রতিবন্ধী ক্রিকেট শুরু আজ ॥ টুর্নামেন্ট উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবসময়ই ক্রীড়াপ্রেমী মানুষ। যখন প্রথমবারের মতো আয়োজিত হতে যাচ্ছে প্রতিবন্ধীদের নিয়ে ক্রিকেট টুর্নামেন্ট, তাও আবার বাংলাদেশেই, তখন কী আর তিনি বসে থাকতে পারেন। তাই তো আজ মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ-ইংল্যান্ড ম্যাচ দিয়ে যে ৫ জাতির প্রতিবন্ধী টুর্নামেন্টটি শুরু হবে, তার আগে টুর্নামেন্টের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী। ২২ গজের ক্রিকেটে অনেকবারই বিশ্ব দরবারে নিজেদের উপস্থাপন করেছে বাংলাদেশ। আরও একবার এদেশের ক্রিকেট চেতনা ঐতিহাসিক গৌরবের অধিকারী হতে যাচ্ছে। ‘আমরাও পারি’ নামক জাগরণী স্লোগান নিয়ে সমাজের অবহেলিত, বঞ্চিত শারীরিক প্রতিবন্ধীদের নিয়ে ঢাকায় আন্তর্জাতিক টি২০ টুর্নামেন্ট শুরু হবে আজ। ক্রিকেটের মূলধারার বাইরে আয়োজিত টুর্নামেন্ট দিয়ে নতুন ইতিহাসই গড়ছে বাংলাদেশ। শারীরিকভাবে সক্ষম মানুষরাই সাধারণত ক্রিকেট খেলাটা খেলে থাকেন। তবে এবার শারীরিকভাবে অক্ষম মানুষরাও সব রকম সীমাবদ্ধতাকে উড়িয়ে দিয়ে ক্রিকেটের গ-িতে শামিল হচ্ছেন। সামাজিক কুসংস্কার, বৈষম্যের বেড়াজাল ভেঙ্গে অফুরান প্রাণশক্তির প্রদর্শনী দিয়ে ব্যাট-বলের লড়াইয়ে মেতে উঠবেন প্রতিবন্ধীরা। মিরপুর স্টেডিয়ামে আজ সেই চেষ্টারই বাস্তব সুনিপুণ মঞ্চায়ন হবে। দেশের প্রতিনিধি যে তারাও হতে পারেন, তাই বুঝিয়ে দেবেন। জানান দেবেন, আন্তর্জাতিক বিশ্বে দেশের পতাকাকে গৌরাবান্বিত করতে পারেন শারীরিক প্রতিবন্ধীরাও। শারীরিক প্রতিবন্ধী বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক আলম খান বলেন, ‘অনেক দল আগে থেকেই খেলছে। আমরা ৩-৪ মাস খেলছি। এমন টুর্নামেন্ট হলে আরও খেলোয়াড় বের হবে। তারাও বাংলাদেশ দলে খেলার স্বপ্ন দেখবে।’ অনন্য এই উদ্যোগে অংশীদার থাকছে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি), ইন্টারন্যাশনাল কমিটি অব দ্য রেড ক্রস (আইসিআরসি) ও বিকেএসপি। পাঁচ জাতির এই টুর্নামেন্টে অংশ নিচ্ছে ইংল্যান্ড, ভারত, পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও স্বাগতিক বাংলাদেশ। মঙ্গলবার এ নিয়ে মিরপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে বিসিবির সিইও নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন জানিয়েছেন, আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলও (আইসিসি) টুর্নামেন্টের প্রতি আগ্রহ দেখাচ্ছে। টুর্নামেন্ট চলাকালীন আইসিসির ডেভেলপমেন্ট অফিসার বাংলাদেশ সফর করবেন। বাংলাদেশের সাবেক অধিনায়ক আমিনুল ইসলাম বুলবুলেরই এ সময় আইসিসির প্রতিনিধি হয়ে ঢাকায় থাকার কথা। কাল (আজ) প্রথম ম্যাচটা মিরপুরে হলেও ফাইনালসহ ৩-১০ সেপ্টেম্বর টুর্নামেন্টের বাকি সব ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে বিকেএসপিতে। টুর্নামেন্টের ব্র্যান্ড এ্যাম্বাসেডর হয়েছেন জাতীয় দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘খুব ভাল লাগছে এখানে যুক্ত হতে পেরে। আমাকে রাখার জন্য বিসিবিসহ সবাইকে ধন্যবাদ। আমাদের প্র্যাকটিস চলছে। তারপরও চেষ্টা করব টুর্নামেন্টের খেলা দেখার। তাদের সমর্থন প্রয়োজন। শুধু বাংলাদেশ নয়, পৃথিবীতেই প্রতিবন্ধীদের জীবনকে এগিয়ে নিতে সাহায্য করবে এই টুর্নামেন্ট। বাংলাদেশসহ অংশগ্রহণকারী দলগুলোকে শুভকামনা জানাচ্ছি। এটা দেখে কিছুটা হলেও শারীরিক প্রতিবন্ধীরা অনুপ্রাণিত হবে।’ সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন আইসিআরসির হেড অব ডেলিগেশন ক্রিস্টিন চিপোলা ও ফিজিক্যাল রিহ্যাবিলিটেশন প্রজেক্ট ম্যানেজার গার্ড ভ্যান ডে ভ্যালডে। সংবাদ সম্মেলনে টুর্নামেন্টের ট্রফি ও শারীরিক প্রতিবন্ধী বাংলাদেশ দলের জার্সি উন্মোচন করা হয়। ২০১০ সালে প্রতিবন্ধীদের ক্রিকেট নিয়ে কাজ শুরু করে ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড। পরে ২০১৩ সালে ঢাকায় আইসিআরসি প্রথম প্রয়াস চালায়। সে বছর মার্চে ট্যালেন্ট হান্ট কার্যক্রমের পর একটি তিনদিনের ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হয়। ২০১৪ সালের নবেম্বরে বিসিবি, বিকেএসপি, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় যুক্ত হয় এই কার্যক্রমের সঙ্গে। সবার মিলিত চেষ্টার প্রতিফলনে আজ শুরু হচ্ছে শারীরিক প্রতিবন্ধীদের আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট। যা প্রথমবারের মতো আয়োজিত হচ্ছে। সেটি আবার বাংলাদেশেই হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ টুর্নামেন্টের উদ্বোধনও ঘোষণা করবেন।

প্রকাশিত : ২ সেপ্টেম্বর ২০১৫

০২/০৯/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: