মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

বাংলাদেশকে আর অবহেলা করার সুযোগ নেই

প্রকাশিত : ৫ জুলাই ২০১৫
  • গণভবনে জাতীয় ক্রিকেট দলকে দেয়া সংবর্ধনায় প্রধানমন্ত্রী

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দৃঢ় আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেছেন, বাংলাদেশ ক্রিকেট দল একদিন বিশ্বকাপ জিতবে। এখন আমরা তারই নমুনা দেখতে পাচ্ছি। টাইগাররা তার প্রমাণ দিয়েছে। বাংলাদেশকে আর অবহেলা করার কোন সুযোগ নেই।

বিশ্বকাপে ভাল খেলা এবং পাকিস্তানকে হোয়াইটওয়াশসহ সম্প্রতি ধারাবাহিক পারফরমেন্স দেখানোয় শনিবার বিকেলে গণভবনে জাতীয় ক্রিকেট দলকে দেয়া সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী টাইগারদের অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, বাংলাদেশ সাবেক বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়নদের হোয়াইটওয়াশ করেছে। তাদের নান্তানাবুদ করে দিয়েছে। প্রতিটি ক্ষেত্রে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। ক্রিকেটেও এগিয়ে যাচ্ছে। তিনি বলেন, বাংলাদেশকে আর অবহেলা করার সুযোগ নেই। সেটা টাইগাররা ক্রিকেট বিশ্বকে জানিয়ে দিয়েছে। এখন যারাই বাংলাদেশ সফরে আসবে, তাদের হিসাব করে খেলতে হবে।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিশ্বকাপে ভাল খেলায় এবং পাকিস্তানকে হোয়াইটওয়াশ করায় ক্রিকেটার, কোচ, স্টাফ ও বিসিবির সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের হাতে আট কোটি ২৩ লাখ ৫৯ হাজার টাকার পুরস্কারের চেক তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী। এ সময় টাইগার অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা প্রধানমন্ত্রীর হাতে ক্রিকেটারদের অটোগ্রাফ দেয়া একটি ব্যাট তুলে দেন। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রতিবন্ধী ক্রিকেটারদেরও প্রশংসা করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, আমাদের প্রতিবন্ধী ক্রিকেটাররাও অনেক ভাল খেলছে। তারাও এগিয়ে যাচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রী এ সময় বলেন, বাংলাদেশ নিম্ন মধ্য আয়ের দেশে পরিণত হয়েছে। বাংলাদেশ আর নিম্নে থাকবে না, উর্ধে থাকবে। বাংলাদেশে আর কোন দারিদ্র্য থাকবে না। টাইগার ক্রিকেটের উন্নতির প্রশংসা করে তিনি বলেন, আমাদের ক্রিকেটের সোনার ছেলেরা বাংলাদেশকে বিশ্বের কাছে আরও উজ্জ্বল করেছে।

ক্রিকেটারদের উদ্দেশে শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের ছেলেদের আরও আন্তরিকতা নিয়ে খেলতে হবে, যেন বাংলাদেশের মুখ আরও উজ্জ্বল হয়। তবে এ কথা বলে আমি খেলোয়াড়দের চাপে ফেলতে চাই না। খেলার মাঠে নিজেদের মধ্যে কোন রকম চাপ রাখা যাবে না। আত্মবিশ্বাস রাখতে হবে। একটু খারাপ খেললেই পত্র-পত্রিকাগুলো লিখতে শুরু করে। আমি সব সময় এর প্রতিবাদ করে আসছি। খেলায় হার-জিত আছে। সবচেয়ে বড় কথা, খেলার মাঠে কত ভাল নৈপুণ্য দেখানো যায়, কতটা ভাল খেলা উপহার দেয়া যায়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা যুদ্ধ করে বিজয় অর্জনকারী জাতি। আমাদের কেউ হারাতে পারবে না। আমাদের এই আত্মবিশ্বাস নিয়ে চলতে হবে। বাংলাদেশ এই আত্মমর্যাদা নিয়ে চলবে। ক্রিকেট আমাদের যে মর্যাদা দিয়েছে, তার জন্য আমরা গর্বিত।

দেশে আরও উন্নতমানের স্টেডিয়াম নির্মাণের ঘোষণা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা আরও দুটি উন্নতমানের স্টেডিয়াম নির্মাণ করব। একটি হবে কক্সবাজারে, আরেকটি পদ্মার পাড়ে। পদ্মার পাড়ে একটি আধুনিক ক্রীড়া কমপ্লেক্স করব আমরা, সে মাস্টারপ্ল্যান করতে যাচ্ছি। ইনশা আল্লাহ এসবের বাস্তবায়ন করতে পারব। আমরা আর আর্থিকভাবে দুর্বল নই।

প্রধানমন্ত্রী ক্রিকেটারদের উৎসাহ দিয়ে বলেন, অধ্যবসায়, অনুশীলন আর আত্মবিশ্বাস নিয়ে মাঠে নামতে হবে। প্রতিপক্ষকে দুর্বল ভাবা যাবে না, আবার ভয়ও পাওয়া যাবে না। নিজেদের মতো খেলতে হবে। তিনি বলেন, আত্মমর্যাদা ও আত্মসম্মান নিয়ে বাংলাদেশকে এগিয়ে যেতে হবে। বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে, এগিয়ে যেতে হবে। তিনি বলেন, ক্রিকেট আমাদের যে মর্যাদা এনে দিয়েছে, আমি এ নিয়ে সত্যি গর্ব করি।

প্রধানমন্ত্রী তাঁর বক্তৃতার পর ক্রিকেটার, কোচ, স্টাফ, বিসিবির কর্মকর্তাসহ সবার সঙ্গে ফটোসেশনে অংশ নেন। এরপর সবাই ইফতার মাহফিলে অংশ নেন। প্রধানমন্ত্রী ছাড়াও অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেনÑ বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন এমপি ও বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা।

টাইগার অধিনায়ক মাশরাফি দক্ষিণ অফ্রিকার সঙ্গে শুরু হওয়া টি২০, ওয়ানডে ও টেস্ট সিরিজে যেন বাংলাদেশ দল ভাল খেলতে পারে সেজন্য দেশবাসীর দোয়া কামনা করে বলেন, প্রধানমন্ত্রী সব সময় আমাদের অনুপ্রেরণা দেন, সাহায্য-সহযোগিতা করেন। এজন্য তাঁর কাছে আমরা কৃতজ্ঞ। আমরা যেন ধারাবাহিকভাবে ভাল খেলতে পারি সেজন্য সবার কাছে দোয়া চাই।

প্রকাশিত : ৫ জুলাই ২০১৫

০৫/০৭/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: