কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

দক্ষিণ চীনসাগরে কৃত্রিম দ্বীপে বিমানবন্দর নির্মাণ শেষ পর্যায়ে

প্রকাশিত : ৪ জুলাই ২০১৫

দক্ষিণ চীন সাগরে বিতর্কিত স্প্যাটলি দ্বীপপুঞ্জের একটি দ্বীপে চীনের বিমানবন্দর তৈরি প্রায় শেষ পর্যায়ে রয়েছে। বিমানবন্দরটি ৩ হাজার মিটার লম্বা (১০ হাজার ফুট)। ঐ এলাকা থেকে পাওয়া নতুন উপগ্রহ চিত্রে এটি দেখা গেছে। খবর ওযেবসাইটের।

এক মার্কিন সামরিক কমান্ডার মে মাসে জানিয়েছিলেন, বিমানবন্দরটি ফায়ারি ক্রস রীফের ওপর তৈরি করা হয়েছে। যা বছর শেষে পরীক্ষামূলকভাবে চালু করা যাবে। তবে ২৮ জুন প্রকাশিত চিত্রে দেখা গেছে, এটি এখন খুব শীঘ্রই চালু হবে। নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, বিমানবন্দরটি চীনের অধিকাংশ সামরিক বিমান ধারণ করার মতো পর্যাপ্ত দীর্ঘ। এই বিমানবন্দরের মাধ্যমে বেজিং সমুদ্রপথের কেন্দ্রস্থলে প্রবেশের বৃহত্তর সুযোগ পাবে। মঙ্গলবার চীন জানিয়েছে, স্প্র্যাটলি দ্বীপে ভূমি পুনরুদ্ধারের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। যেখানে সাতটি প্রবাল দ্বীপকে যুক্ত করে এই কৃত্রিম দ্বীপ নিমাণের কথা। যদিও এ বিষয়ে বিস্তারিত ব্যাখ্যা দেয়া হয়নি। সম্প্রতি পাওয়া চিত্রগুলো ওয়াশিংটনের দ্য সেন্টার ফর স্ট্র্যাটেজিক এ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল স্টাডিজের ডিজিটাল গ্লোব তুলেছে এবং প্রকাশ করেছে এশিয়া মেরিটাইম ট্রান্সপারেন্সি ইনিশিয়েটিভ (এএমটিআই)। এএমটিআই জানিয়েছে, বিমানবন্দরের রানওয়ে সংলগ্ন বাঁধানো ও চিহ্নিত গাড়ির রাস্তা যুক্ত করা হয়েছে। দুটি হেলিপ্যাড, ১০টি উপগ্রহ যোগাযোগ এ্যান্টেনা ও একটি রাডার টাওয়ার দেখা গেছে। চীনের নৌবাহিনীর জন্য একটি বন্দরও সেখানে তৈরি করা হয়েছে। চীনের তৈরি সাউথ জনসন রিফের সাম্প্রতিক চিত্রে দেখা গেছে সেখানে লম্বা বহুমুখী সামরিক সুবিধাসহ এর কেন্দ্রে সাম্ভাব্য দুটি রাডারের টাওয়ার নির্মাণাধীন রয়েছে। এছাড়া দুটি হেলিপ্যাড ও উপগ্রহ যোগাযোগের তিনটি এ্যান্টেনাও দেখা যাচ্ছে। চীন দাবি করেছে দক্ষিণ চীন সাগরের অধিকাংশই তাদের। প্রতিবছর এই সাগর দিয়ে ৫ ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলারের পণ্য পরিবহন করা হয়। যদিও এই সাগরে ফিলিপিন্স, ভিয়েতনাম, মালয়েশিয়া, ব্রুনেই ও তাইওয়ানেরও দাবি রয়েছে।

প্রকাশিত : ৪ জুলাই ২০১৫

০৪/০৭/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

বিদেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: