আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ইউরোজোনের শর্ত মানতে রাজি প্রধানমন্ত্রী সিপ্রাস ॥ জার্মানির ‘না’

প্রকাশিত : ২ জুলাই ২০১৫
  • গ্রীস এখন ঋণখেলাপী

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ গ্রীস এখন আনুষ্ঠানিকভাবে ঋণখেলাপী দেশ। আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) ১৬০ কোটি ইউরো পরিশোধ করতে ব্যর্থ হওয়ায় এই প্রথমবারের মতো ঋণখেলাপী দেশের তালিকায় নাম উঠল গ্রীসের। এই সমস্যার উত্তরণে দাতাদের কিছু শর্ত মানতে রাজি হয়ে বুধবার চিঠি দিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী এ্যালেক্সি সিপ্রাস। তবে জার্মানি সিপ্রাসের এ প্রস্তাব নাকোচ করে দিয়েছে। খবর বিবিসি ও এএফপির। গ্রীসের জাতীয় প্রচার মাধ্যম ইআরটির এক খবরে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রী সিপ্রাস শর্তসাপেক্ষে দাতাদের কিছু শর্ত মানতে রাজি আছেন। কিন্তু জার্মান চ্যান্সেলর মেরকেল বলেছেন, আগামী ৫ জুলাইয়ের গণভোটের আগ পর্যন্ত গ্রীসের সঙ্গে এ বিষয়ে কোন আলোচনা হবে না। এর আগে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল জানায়, গ্রীসের ঋণের ১৬০ কোটি ইউরো পরিশোধের শেষ সময় মঙ্গলবার মধ্যরাত পেরিয়ে গেলেও তা দিতে ব্যর্থ হয়েছে দেশটি। আইএমএফের মুখপাত্র গ্যারি রাইস বলেন, কেবল বকেয়া পরিশোধের পরই আইএমএফের পরবর্তী তহবিল পেতে পারে গ্রীস। গ্রীসের সরকার শেষ মুহূর্তে ঋণ পরিশোধের সময় বাড়ানোর অনুরোধ করেছিল বলে উল্লেখ করেন তিনি। আইএমএফের কিস্তি পরিশোধের জন্য গ্রীস ইউরোজোনভুক্ত দেশের কাছে নতুন করে দুই হাজার ৯১০ কোটি ডলার ঋণ সহায়তা চাইলেও তাতে সাড়া মেলেনি। মঙ্গলবার ইউরোজোনের অর্থমন্ত্রীরা গ্রীসের এই ঋণ সহায়তার প্রস্তাব নাকোচ করে দেয়।

তবে তারা বলছেন, গ্রীসের প্রধানমন্ত্রী সিপ্রাসের সর্বশেষ ঋণ প্রস্তাব নিয়ে বুধবার আলোচনা করবেন। তবে ওই আলোচনায় গ্রীসের জন্য কোন শুভ বার্তা আসবে কি-না তা নিয়েও সংশয় রয়েছে। নতুন করে ঋণ চাওয়ার পাশাপাশি ঋণ পুনর্গঠনও চাইছেন তিনি। তবে এ বিষয়ে কোন ধরনের ছাড় দিতে রাজি নয় ঋণদাতারা। সম্প্রতি দুই পক্ষ তিক্ত আলোচনার পর এথেন্স ও ইউরোপিয়ান রাজধানীগুলোর মধ্যে আস্থার সঙ্কট তৈরি হয়। গ্রীসকে দেয়া ইউরোজোনের চলতি বেল আউটের মেয়াদ শেষ হয় মঙ্গলবার। নতুন করে সহায়তার জন্য গ্রীসকে কর বাড়ানোর পাশাপাশি জনকল্যাণমূলক ব্যয় কমানোসহ কঠিন আর্থিক পুনর্গঠনের শর্ত দেয় ইউরোজোন। তাদের কঠোর ব্যয় সঙ্কোচনের শর্তে সায় দেয়নি গ্রীসের বর্তমান বামপন্থি সরকার।

আগামী রবিবার গ্রিসের ঋণ সঙ্কট নিয়ে অনুষ্ঠেয় গণভোটে ‘হ্যাঁ’ জয়ী হলে পদত্যাগ করার হুমকি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী সিপ্রাস। তিনি বলেন, কৃচ্ছ্রের বিরুদ্ধে স্পষ্ট ভোট এই সঙ্কটের সুষ্ঠু নিষ্পত্তিতে সহায়তা করবে। আর ব্যয় হ্রাসের পক্ষে জনগণ মত দিলে তিনি আর ক্ষমতায় থাকবেন না বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

সোমবার টেলিভিশনে দেয়া এক ভাষণে সিপ্রাস ঋণদাতাদের প্রস্তাব প্রত্যাখান করতে গ্রীসবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, এটা আলোচনার টেবিলে গ্রীসের হাতে আরও শক্তিশালী অস্ত্র তুলে দেবে।

তিনি বলেন, আমরা আপনাদেরকে ঋণদাতাদের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যানের আহ্বান জানাচ্ছি। তিনি এও বলেন, তিনি বিশ্বাস করেন না, ঋণদাতারা চায় গ্রীস ইউরোজোন থেকে বেরিয়ে যাক।

এদিকে সরকারের প্রস্তাবের প্রতি সমর্থন জানাতে সোমবার সন্ধ্যায় এথেন্সে গ্রীস পার্লামেন্টের বাইরে কয়েক হাজার লোক জড়ো হয়। মঙ্গলবার হ্যাঁ ভোট দেয়ার পক্ষে প্রতিদ্বন্দ্বী একদল লোকের বিক্ষোভ সমাবেশ করার কথা রয়েছে।

গ্রীসের জনগণ ঋণদাতাদের কৃচ্ছ্র সাধনের পক্ষ নেবে না-কি প্রত্যাখ্যান করবে, তা নিয়ে ইউরোপ জুড়ে তুলকালাম চলছে।

প্রকাশিত : ২ জুলাই ২০১৫

০২/০৭/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: