কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

মগবাজারে ছয় ছিনতাইকারী গ্রেফতার

প্রকাশিত : ২ জুলাই ২০১৫
  • ৮ ডাকাত ও ৬ লাখ জাল টাকা উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীতে ডিবি পুলিশের পৃথক অভিযানে গত ২৪ মে সকালে রাজধানীর মগবাজারে গুলি করে ৩৩ লাখ টাকা ছিনতাই ও গত ৮ মে রামপুরায় রুবেল নামে এক যুবককে হত্যার সঙ্গে জড়িত ৬ ছিনতাইকারী, ডাকাতির প্রস্তুতিকালে শ্যামপুর থেকে ৮ ডাকাত ও র‌্যাবের পৃথক অভিযানে ৬ লাখ জালটাকা ও বিদেশী পিস্তলসহ তিনজন গ্রেফতার হয়েছে।

গত ২৪ মে সকালে মগবাজারের এ্যাকুয়া মেরিন ডিস্ট্রিবিউশনের হিসাব রক্ষক সেলিম আক্তারকে গুলি করে ও ছুরিকাঘাতে ৫ জনকে আহত করে ৩৩ লাখ ২৬ হাজার ৫০৭ টাকা ছিনিয়ে নেয় কয়েক ছিনতাইকারী। টাকাগুলো বাক্সে ভরে সাইকেলের পেছনে নিয়ে মগবাজার মোড়ে ব্র্র্যাক ব্যাংকের শাখায় জমা দিতে যাচ্ছিলেন কোম্পানির সাত কর্মকর্তা কর্মচারী। এ সময় তিনটি মোটরসাইকেলে ছয় ছিনতাইকারী গুলি করে ও এলোপাতাড়ি কুপিয়ে টাকাগুলো ছিনিয়ে নেয়া হয়। এ ব্যাপারে রমনা মডেল থানায় মামলা হয়। পুলিশের পাশাপাশি ডিবি পুলিশ ছিনতাইকারীদের গ্রেফতারে অভিযান চালিয়ে আসছিল। অভিযানের ধারাবাহিকতায় বাড্ডা থেকে মঙ্গলবার বিকেলে গ্রেফতার হয় সংঘবদ্ধ ডাকাত দল ও ছিনতাইকারী চক্রের ছয় সদস্য। তারা হচ্ছে, মোঃ ওমর ফারুক ওরফে আল আমিন, শ্রী পবিত্র সমাদ্দার, মোঃ রাকিব, জহিরুল ইসলাম ওরফে জাকির, রিফাত হোসেন ও জাকির হোসেন। তাদের কাছ থেকে ছিনতাই কাজে ব্যবহৃত মোটরসাইকেল, পিস্তল, তিন রাউন্ড তাজা বুলেট ও ৩শ’ পিস ইয়াবা উদ্ধার হয়েছে।

এদিকে মঙ্গলবার রাতে ডিবি পুলিশের অপর এক অভিযানে রাজধানীর শ্যামপুরের পোস্তাগোলা চৌরাস্তার ইউসেফ আর কে চৌধুরী স্কুলের সামনে থেকে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে গ্রেফতার হয় ৮ ডাকাত। এরা হচ্ছে, মোঃ জালাল, মোঃ ইউসুফ হাওলাদার, মোঃ বাচ্চু সরদার, মোঃ কুদ্দুস, মোঃ নেকবার মিয়া, মোঃ কামরুজ্জামান, মোঃ স্বপন ও মোঃ কামাল শেখ। তাদের কাছ থেকে ১৩৫টি মোবাইল ফোন, ডাকাতি করার নানা অস্ত্রশস্ত্র উদ্ধার হয়েছে।

বুধবার ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ডিবির যুগ্ম কমিশনার মনিরুল ইসলাম জানান, বাড্ডা থেকে গ্রেফতারকৃতরা ডাকাত ও ছিনতাইকারী চক্রের সদস্য। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃতরা মগবাজারে ৩৩ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে।

এছাড়া গত ৮ মে গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে ওমর ফারুক, জহিরুল ইসলাম ওরফে জাকির, মোঃ রাকিব ও অজ্ঞাতনামা ১০/১২ সন্ত্রাসী রুবেল হোসেন ওরফে মিন্টু নামে একজনকে রামপুরা টিভি রোডের গুলি করে ৩৩৫/ছ নম্বর বাড়ির সামনে ফেলে যায়।

অন্যদিকে পোস্তগোলা থেকে গ্রেফতারকৃত ৮ ডাকাত ঢাকা ও আশপাশের বিভিন্ন জেলায় দোকানের সাঁটার ভেঙে বা তালা কেটে চুরি ও ডাকাতির সঙ্গে জড়িত।

কয়েক দিন আগেই তারা শ্যামপুরে একটি দুর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনা ঘটায়। গ্রেফতারকৃতরা আগেও বিভিন্ন সময় ডাকাতির অভিযোগে গ্রেফতার হয়েছিল বলে জানান ডিবির যুগ্ম কমিশনার মনিরুল ইসলাম।

সংবাদ সম্মেলনে ডিবির উপকমিশনার মাশরুকুর রহমান খালেদ, সাজ্জাদুর রহমান ও ডিএমপির মিডিয়া বিভাগের উপকমিশনার মুনতাসিরুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

র‌্যাব-২ এর একটি দল মঙ্গলবার রাতে রাজধানীর দারুসসালাম থানাধীন রাফাত জেনারেল স্টোরের সামনে থেকে মোঃ সাইদুল ইসলাম (২০) ও মোঃ খোকন (২২) নামে দুই জনকে গ্রেফতার করে। তাদের কাছ থেকে উদ্ধার হয় ৬ লাখ টাকার জালনোট।

প্রতিলাখ জালটাকা তারা ৩৫ থেকে ৪৫ হাজার টাকায় বিক্রি করে। দ্বিতীয় ধাপে প্রতিলাখ জালটাকা ৬০ থেকে ৭০ হাজার টাকায় বিক্রি করে। তৃতীয় ধাপে খুচরা কারবারীরা গুলিস্তান, যাত্রাবাড়ী, ফার্মগেট, সদরঘাট, নিউমার্কেট, কাওরান বাজার, গাবতলী, মিরপুরসহ ব্যস্ত এলাকায় অশিক্ষিত, অর্ধশিক্ষিত, বৃদ্ধ, দরিদ্র ও নিম্ন আয়ের লোকের কাছে বিভিন্ন পণ্য ক্রয়ের মাধ্যমে চালিয়ে দেয়। গ্রেফতারকৃত সাইদুল ও খোকন তৃতীয় ধাপের জালনোটের কারবারী।

তারা নিউ মার্কেটের ফুটপাথে কাপড় বিক্রি করে। বাড়তি লাভের আশায় তারা জাল টাকার ব্যবসায় জড়িয়ে পড়ে। প্রতিটি একহাজার টাকার নোট তারা আড়াই শ’ টাকায় কিনে। এরপর এসব নোট বিভিন্ন দোকানে জিনিসপত্র কিনে চালিয়ে দেয়।

এদিকে র‌্যাব-২ এর অপর একটি দল গত মঙ্গলবার রাতে রাজধানীর শেরে বাংলা নগর থানাধীন আইডিবি ভবনের উত্তর পাশ থেকে মোরশেদ (২৫) নামে এক অস্ত্র ব্যবসায়ীকে আটক করে। তার কাছ থেকে চার রাউন্ড গুলিসহ একটি রিভলভার উদ্ধার হয়েছে।

প্রকাশিত : ২ জুলাই ২০১৫

০২/০৭/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: