মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

মুখ খুললেন প্রীতি গুপ্তা

প্রকাশিত : ৩০ জুন ২০১৫

সংস্কৃতি ডেস্ক ॥ রাজ অমিত কুমার পরিচালিত ‘আনফ্রিডিম’ চলচ্চিত্রে সমকামী দুই অভিনেত্রীর নগ্ন দৃশ্য ফাঁস হওয়া নিয়ে কম কথা হয়নি। এ চলচ্চিত্রের স্পর্শকাতর দৃশ্য ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়ায় বিনোদন জগতে তোলপাড় চলছে। এই প্রেক্ষিতে চলচ্চিত্রটি ইতোমধ্যে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। চলচ্চিত্রে অভিনীত নগ্ন দৃশ্য ফাঁসের ঘটনা নিয়ে অবশেষে মুখ খুললেন অভিনেত্রী প্রীতি গুপ্তা। গোটা ভারতে এ নিয়ে যখন তুলকালাম তখন খোদ প্রীতি বললেন, চলচ্চিত্র নয়, এভাবে কারও গোপনীয়তা লঙ্ঘন করার বিষয়টি নিষিদ্ধ করা উচিত। ভারতীয় এক গণমাধ্যমে দেয়া এক প্রতিক্রিয়ায় প্রীতি বলেন, এটা সত্যি যে অভিনয়শিল্পীরা অনেক দুর্বল এবং আমি আসলে ব্যাপারটি নিয়ে খুবই ক্ষুব্ধ। বিষয়টা অদ্ভুত এবং গোপনীয়তার লঙ্ঘন। এটা ঠিক নয় এবং কিছু যদি নিষিদ্ধ করতেই হয়, তাহলে এ ধরনের কাজকে করা উচিত। ‘আনফ্রিডম’-এর অভিনেত্রী আরও বলেন, কেবলমাত্র সমকামিতা প্রদর্শনের কারণ দেখিয়ে এটি নিষিদ্ধ করা মোটেও উচিত হয়নি। তিনি মনে করেন, সমকামিতা নিয়ে খোলাখুলি কথা হওয়া উচিত। এই নিষিদ্ধ ঘোষণা করার বিষয়টি আমার কাছে খুবই অপ্রয়োজনীয় মনে হয়েছে। কেন কোন কিছুকে নিষিদ্ধ করতে হবে? আপনারা কি দর্শকদের বুদ্ধিমত্তায় আস্থা রাখেন না? চলচ্চিত্রের বার্তাটি পেতে হলে আগে এটি দেখতে হবে। দেখুন, আমরা সবাই প্রাপ্তবয়স্ক এবং আমাদের সবাইকে পছন্দমতো চলচ্চিত্রের বিষয়বস্তু বেছে নেয়ার অধিকার দেয়া উচিত। সমকামিতা খুবই স্বাভাবিক। এতে ভিন্নতার কি আছে? তিনি আরও বলেন, ‘আনফ্রিডম’ একটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ চলচ্চিত্র। এখানে দুটি গল্প আছে, আমারটা তার মধ্যে একটা। এখানে দেখানো হয়, নিম্নবিত্ত এবং মধ্যবিত্ত- দুই শ্রেণীতেই কিভাবে সমকামিতা বিরাজমান। উচ্চবিত্তরা হয়তো ব্যাপারটিকে ভিন্ন চোখে দেখেন, কিন্তু বাকিদের কাছে এটা একেবারেই গ্রহণযোগ্য নয়। এটা সহজেই সহিংসতাকে উসকে দিতে পারে। ‘আনফ্রিডম’কে নিষিদ্ধ ঘোষণার পেছনের উদ্দেশ্য নিয়েও প্রশ্ন করেছেন প্রীতি। তিনি বলেন, আমি বুঝি না, কেন মানুষ চলচ্চিত্রকে এত ভয় পাচ্ছে? আমরা একটা কারণে এটি নির্মাণ করেছি এবং এর মাধ্যমে আমরা একটা কিছু প্রমাণ করতে চাই। আমাদের এটা নিয়ে বসা উচিত এবং কথা বলা উচিত। আমরা যদি বিষয়টিকে এড়িয়ে যাই, তবে তা হবে যুক্তিবিহীন একটি কাজ। এর মুক্তি পাওয়া উচিত এবং মানুষের চলচ্চিত্রটি দেখা উচিত। প্রীতির ফাঁস হয়ে যাওয়া নগ্ন দৃশ্যটি এই ‘আনফ্রিডম’ চলচ্চিত্র জন্যই ধারণ করা হয়েছিল। দৃশ্যটি নিয়ে প্রীতি বলেন, এ ধরনের দৃশ্য ধারণের জন্য প্রয়োজন নিষ্ঠা আর নিয়মানুবর্তিতা। এটা অনেক কঠিন। চলচ্চিত্রটির ধারণা আমার কাছে যথাযথ মনে হয়েছে এবং এ কারণেই আমরা এই অবস্থার সত্যতা তুলে ধরার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আসলে আমরা চেষ্টা করেছি, দুই ঘণ্টার মধ্যে বাস্তবতাকে তুলে ধরতে। আমাদের উদ্দেশ্য উসকে দেয়া নয়, বরঞ্চ আপনাদের সত্যটা দেখানো। এর জন্য সাহসের প্রয়োজন। প্রসঙ্গত, ভারতীয় এক গণমাধ্যম জানায় দুই সমকামী নারীর প্রেমের গল্প নিয়ে তৈরি হওয়া চলচ্চিত্র ‘আনফ্রিডম’ ভারতে নিষিদ্ধ হয়েছে এর সাহসী বক্তব্যের জন্য। এর একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন প্রীতি, যিনি হিন্দি ‘কাহানি ঘার ঘার কি’ সিরিজটিতে প্রধান চরিত্রের অভিনেত্রী সাকিশ তানওয়ারের মেয়ের ভূমিকায় অভিনয় করতেন। টিভি সিরিজে ক্যারিয়ার শুরুর পর স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র এবং নাটকে অভিনয় করতে দেখা গেছে তাকে।

প্রকাশিত : ৩০ জুন ২০১৫

৩০/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: