মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

বাজিকরদের সঙ্গে জড়িত রায়না, জাদেজা!

প্রকাশিত : ২৯ জুন ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ লোলিত মোদি হঠাৎ করে ক্রিকেট বিশ্বকে আবার কাঁপিয়ে তুললেন। আইসিসিকে এক চিঠি দেন। তাতে সুরেশ রায়না ও রবীন্দ্র জাদেজা যে বাজিকরদের সঙ্গে জড়িত, তা জানিয়ে দেন। সেই চিঠি ফাঁসও হয়ে যায়!

রাজনৈতিক ব্যক্তি ও আমলাদের পর ক্রিকেটাররা ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগের (আইপিএল) জুয়ার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা জানিয়েছেন এ লীগের সাবেক প্রধান লোলিত মোদি। তিনি জানান, আইপিএলের দল চেন্নাই সুপার কিংসের ক্রিকেটার রবীন্দ্র জাদেজা, ডোয়াইন ব্রাভো ও সুরেশ রায়না বাজিকরদের সঙ্গে জড়িত আছেন।

আইসিসির সিইও ডেভ রিচার্ডসনকে ২০১৩ সালে দেয়া এক চিঠিতে মোদি জানান, বাবা দিওয়ান নামে এক বুকি তাদের তিনজনকে শুধু টাকাই দেয়নি সঙ্গে ফ্ল্যাটও উপহার দিয়েছিল। এর আগে চলতি বছরের মে মাসে মোদি জানিয়েছিলেন, ‘চেন্নাইয়ের চার ক্রিকেটার ঘুষ ও দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত রয়েছেন।’ প্রতি খেলায় ৯ হাজার থেকে ১০ হাজার কোটি রুপী জুয়া ধরা হয় বলে জানান মোদি। যেখানে ক্রিকেটার, বাজিকর ও রাজনৈতিক ব্যক্তিরা জড়িত রয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

আইবিএন লাইভ জানায়, টুইটারে শুক্রবার লোলিত মোদিকে উদ্দেশ্য করে একটি চিঠি পোস্ট করেছেন জনৈক শ্যাম স্বামী। পরে চিঠিটি টুইট করেন তিনি। ২০১৩ সালে এই চিঠিটি তৎকালীন আইসিসি সিইও ডেভ রিচার্ডসনকে লিখেছিলেন মোদি। চিঠিতে তিনি লিখেন, আইসিসির দুর্নীতিবিরোধী ও নিরাপত্তা বিভাগকে কিছু তথ্য জানাতে চান। এরপরই তিনি তিন ক্রিকেটারের নামে ঘুষ নেয়ার অভিযোগ আনেন। তাদের ঘুষ দিয়েছিলেন রিয়েল এস্টেট টাইকুন বাবা দিওয়ান। তবে পুরনো এ নথি প্রকাশ সম্পর্কে শ্যাম স্বামীকে মোদি বলেন, ‘এটা অত্যন্ত গোপনীয় নথি। এটা প্রকাশ করা ঠিক হয়নি।’ এর মধ্য দিয়ে ক্রিকেটে বোমা ফাটালেন ভারতীয় ক্রিকেটের এক সময়কার প্রতাপশালী ব্যক্তিত্ব লোলিত মোদি। বিশেষ তার একটি গোপন ই-মেইলে নাড়িয়ে দিল ভারতীয় ক্রিকেট অঙ্গনকে।

এই তিন ক্রিকেটারকে মোটা অঙ্কের ঘুষ দেয়া হয়েছে বলে দাবি করে মোদি আইসিসির কাছে ই-মেইলে আরও লেখেন, ‘বিশ্বস্ত সূত্র থেকে জানতে পেরেছি বাবা দিওয়ান রায়নাকে দিল্লীর বসন্ত বিহার ও নয়ডায় ফ্ল্যাট এবং জাদেজাকে বান্দ্রায় সমুদ্রমুখী একটি ফ্ল্যাট উপহার দিয়েছে। আর ব্রাভোকে নগদ টাকা দেয়া হয়েছে।’

প্রত্যেক ক্রিকেটারের জন্য বাবা দিওয়ান ২০ কোটি টাকা খরচ করেন বলে দাবি করেন লোলিত মোদি। তিনি রিচার্ডসনের কাছে লেখা মেইলটি শেষ করেন এভাবে, ‘আশা করি এগুলো সত্যি নয়। তবে সত্যি হলে ধরতে হবে আরও অনেকে এর সঙ্গে জড়িত। বাবাকে কড়া নজরে রাখা দরকার। প্রতি ম্যাচে তিনি নাকি ১০ থেকে ২০ মিলিয়ন ডলার বাজি ধরেন।’

ই-মেইলটি স্যোসাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে যে শ্যাম স্বামীর টুইট মারফত, তিনিই মেইলটি তুলে ধরে মোদির কাছে জানতে চান, ‘এটা নিয়ে আপনি কী বলবেন লোলিত মোদি? আইসিসির জবাব কী ছিল?’ উত্তরে মোদি লিঙ্ক পোস্ট করে জবাব দেন, ‘আমাকে কেন জিজ্ঞাসা করছেন? আইসিসি, বিসিসিআই, আইপিএলকে জিজ্ঞেস করুন। এটা খুব গোপনীয় একটা মেইল। আপনার টুইট করা উচিত হয়নি।’

টুইটে মোদিকে আরেকজন সরাসরি জিজ্ঞেস করেন, আপনার মেইল অন্য কেউ কিভাবে ফাঁস করে দিল? এর জবাবও মোদি টুইটের মাধ্যমে, ‘নিশ্চয়ই আইসিসি এই ই-মেইল ফাঁস করেছে।’ মোদির এই গোপন ই-মেইল ফাঁস হলেও ক্রিকেটারদের পক্ষ থেকে কোন প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। অভিযুক্ত তিন ক্রিকেটারই খেলেন চেন্নাই সুপার কিংসে। বিসিসিআইও কোন প্রতিক্রিয়া দেখায়নি। দেখা যাক, সামনে আর কী অপেক্ষা করছে।

প্রকাশিত : ২৯ জুন ২০১৫

২৯/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: