আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

আওয়ামী লীগ নেতার টর্চার সেলে যুবলীগ নেতাকে হাত-পা কেটে হত্যা

প্রকাশিত : ২৯ জুন ২০১৫
  • সদ্য সরকারী দলে যোগ দেয়া এই নেতার বিরুদ্ধে কেউ ভয়ে মুখ খোলে না ॥ এক সন্ত্রাসী আটক

নিজস্ব সংবাদদাতা, লালমনিরহাট, ২৮ জুন ॥ স্থানীয় যুবলীগ নেতা ফকরুল ইসলাম বুলেটকে (৩৩) ইউপি সদস্য ও নব্য আওয়ামী লীগ নেতা আমিনুল ইসলাম খার মহেন্দ্রনগর টর্চার সেলে ডেকে নিয়ে হাত ও পা দেহ থেকে বিচ্ছিন্ন করে হত্যা করা হয়েছে। এই নির্মম হত্যাকা-ের ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা দেখা দেয়।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, জেলা সদরের মহেন্দ্রনগর হাট, মহেন্দ্রনগর ইউরিয়া সারের বাফার গোডাউন, চোরাই মোটরসাইকেল, মাদক, থানার দালালি, ডাবু খেলা (জুয়া) ও মহেন্দ্রনগর ট্রাক শাখার আধিপত্য নিয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা আমিনুল খাঁর সঙ্গে যুবলীগ নেতা ফকরুল ইসলাম বুলেটের দ্বন্দ্ব চলছিল। জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক সদ্য প্রয়াত জহুরুল হক মামুন কয়েক মাস আগে বুলেট ও আমিনুল খাঁর মধ্যকার আধিপত্যের লড়াই আপোস মীমাংসা করে দেন। তার মৃত্যুতে মহেন্দ্রনগরে সরকারী দলের হালুয়া রুটির ভাগবাটোয়ারা নিয়ে পুনরায় উক্ত দুই জনের বিরোধ চাঙ্গা হয়ে ওঠে এবং সম্প্রতি বচসা সৃষ্টি হয়।

আমিনুল খাঁর সহযোগী আপেল (২৮) নামে এক সন্ত্রাসীকে রাতেই হাসপাতাল এলাকা থেকে পুলিশ আটক করেছে। আপেল আমিনুল খাঁর ডান হাত বলে পরিচিত। আটক আপেল মহেন্দ্রনগরের কাজীর চওড়া গ্রামের ইসরাইলের ছেলে। রবিবার বুলেটের লাশ প্রাথমিক ময়নাতদন্তের পর পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। ঘটনার পর আমিনুল খাঁসহ তার সন্ত্রাসী বাহিনীর সদস্যরা গা-ঢাকা দিয়েছে। সদর থানার ওসি এইচএম মাহফুজার রহমান জানান, খুনী ঘাতকদের গ্রেফতার করতে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালানো হয়েছে। এই ঘটনায় একটি হত্যা মামলা দায়ের হয়েছে।

শনিবার রাত ১০টায় জেলা সদরের নিচপাড়া নিবাসী এনামুল হক মাস্টারের ছেলে ফকরুল ইসলাম বুলেট ও তার জ্ঞাতিভাই বাবুকে (৩০) কুখ্যাত জাতীয়তাবাদী সন্ত্রাসী হিসেবে খ্যাত হারাটি ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার আমিনুল ইসলাম খাঁ ডেকে নিয়ে যায়। সেখানে ধারালো অস্ত্র দিয়ে হাত ও পা বিচ্ছিন্ন করে বুলেটকে হত্যা করে। এই হত্যাকা-ের দৃশ্য দেখে জ্ঞাতি ভাই বাবু সংজ্ঞাহীন হয়ে পড়ে। পরে তাদের দু’জনকে উদ্ধার করে লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে রাত ১০টা ১৫ মিনিটে নিয়ে আসা হলে কর্মরত চিকিৎসক বুলেটকে মৃত ঘোষণা করে। বাবুকে উন্নত চিকিৎসা করতে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। মহেন্দ্রনগর মোড়ে পারিবারিক ঐতিহ্যে বিএনপি এবং সদ্য আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারী আমিনুল ইসলাম খাঁ’র একটি টর্চার সেল রয়েছে। এখানে গ্রামের নিরীহ লোকজনকে ধরে নিয়ে এসে নির্যাতন করে অর্থ আদায় করা হয় বলে এলাকার লোকমুখে চাউর রয়েছে।

কে এই আমিনুল খাঁ ॥ সন্ত্রাসী আমিনুল খাঁ আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারী। তার বড় জ্যাঠা সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ খাঁ ও তার পরিবার বিএনপির স্থানীয় রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। বিএনপি জামায়াত ক্ষমতায় থাকার সময় তারা মহেন্দ্রনগরে সন্ত্রাসী কর্মকা- ও মাফিয়া চক্র নিয়ন্ত্রণ করত।

প্রকাশিত : ২৯ জুন ২০১৫

২৯/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

অন্য খবর



ব্রেকিং নিউজ: