মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

সম্পাদক সমীপে

প্রকাশিত : ২৮ জুন ২০১৫

বর্ষার শাপলা

বর্ষার পানিতে চারদিক ছেয়ে গেছে। যতদূর চোখ যায় শুধু পানি আর পানি। গ্রাম-বাংলার অপার সৌন্দর্যকে বর্ষার পানি বাড়িয়ে দেয় কয়েক গুণ। নদী থেকে আসা কালো, ঘোলা পানি খাল-বিল দিয়ে ঢুকে পড়ে ফসলী জমিতে। শস্য ডুবে যায়। ধান ডুবে যায়। ডুবে যাওয়া ধানের গোছা সাপের মতো লকলক করে।

শাপলা। বর্ষার সময় নতুন রূপে জেগে ওঠে। কত রঙের শাপলা যে এ সময় দেখা যায়! গরিব মানুষ শাপলা রান্না করে খায়। শাপলা ফুলের মালা তৈরি করে গ্রামের ছেলেমেয়েরা গলায় পড়ে। খাল-বিলে শাপলার অজস্র সমাহার। লাল-সাদা-বেগুনী-হালকা হলুদাভ- কত মনোমুগ্ধকর শাপলাই না ফোটে বাংলার প্রকৃতিতে। বর্ষার রূপ মাধুর্যকে শত গুণে বাড়িয়ে দেয় এই শাপলা।

বর্ষার পানিতে ডুবে থাকা খাল-বিলে শাপলা ফুল নিয়ে গ্রাম্য কিশোর-কিশোরীদের মাতামাতি, দুষ্টুমি আমাদের মতো প্রবীণদের ফেলে আসা দিনের স্বর্ণোজ্জ্বল কৈশোরকে মনে করিয়ে দেয়।

মির্জা ইরফান

ছাতিয়ানতলী, সিরাজদিখান

আমরা কোথায় যাচ্ছি?

’৬২ থেকে ’৭১- এই দীর্ঘ সময়ে আমরা আন্দোলন করেছি রাজপথে স্লোগান দিয়ে। সে কি আন্দোলন। শহরের জনতা যেন নেমে আসত সেসব মিছিলে। মনে পড়ে- ‘আগরতলার মিথ্যা মামলা মানি না মানি না’, ‘শেখ মুজিবের মুক্তি চাই মুক্তি চাই’, ‘বীর বাঙালী অস্ত্র ধরো বাংলা মাকে মুক্ত করো’, ‘জয় বাংলা’ ইত্যাদি স্লোগান। সেদিন রাজপথে বাঙালীর কণ্ঠে কণ্ঠে ছিল এই সেøাগানগুলো। অথচ আজকাল রাজপথে দেখা মেলে না জনতার মিছিল।

হালকা-পাতলা পিকেটাররা সেøাগান দিয়ে হঠাৎ করে যানবাহন ভাংচুর করে নয়ত বাসে-প্রাইভেট গাড়িতে ও দোকানে পেট্রোলবোমা মেরে অলিগলি দিয়ে পালিয়ে যায়। এদিকে টিভি চ্যানেলগুলোর সংবাদ দেখলে মনে হয়, বাংলাদেশ বুঝি আন্দোলনের ঠেলায় কাঁপছে। কিন্তু আসলে কিছুই না। অর্থাৎ বর্তমানে আন্দোলন এসে ঠেকেছে টিভি বাক্সের মধ্যে।

লিয়াকত হোসেন খোকন

রূপনগর, ঢাকা

প্রকাশিত : ২৮ জুন ২০১৫

২৮/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: