কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

শাবিতে শিক্ষকদের একাংশের অবরোধ অব্যাহত

প্রকাশিত : ২৫ জুন ২০১৫
  • তালা খোলা হয়নি

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট অফিস ॥ শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবি) উপাচার্যের পদত্যাগ দাবিতে বুধবার ৪র্থ দিনের মতো শিক্ষকদের একাংশ সকাল ৮টা থেকে প্রশাসনিক ভবন অবরুদ্ধ করে অবস্থান কর্মসূচী পালন করেন। অপরদিকে চলমান পরিস্থিতি নিয়ে শাবি শিক্ষক সমিতি মঙ্গলবার জরুরী সভায় মিলিত হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের দাফতরিক ও প্রশাসনিক কাজ-কর্ম স্বাভাবিক রাখার স্বার্থে প্রশাসনিক ভবনের তালা খুলে দেয়ার জন্য আন্দোলনকারী শিক্ষকদের প্রতি আহ্বান জানান।

সভায় একাডেমিক ও প্রশাসনিক কাজে ব্যাঘাত ঘটে এমন ধরনের পদক্ষেপ থেকে বিরত থাকার জন্য আন্দোলনরত শিক্ষকদের প্রতি আহ্বান জানানো হয়। উপাচার্যের বিরুদ্ধে আন্দোলনকারীদের আনীত অভিযোগের যৌক্তিকতা এবং এর পেছনে কোন ষড়যন্ত্র আছে কিনা তা খতিয়ে দেখতে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন, শিক্ষা মন্ত্রণালয়সহ সরকারের উচ্চমহল থেকে তদন্ত করে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধ জানানো হয়। সাধারণ সভায় ১৪৪ জন শিক্ষক উপস্থিত ছিলেন। এদিকে মঙ্গলবার নতুন প্রক্টোরিয়াল কমিটির প্রক্টর সহকারী প্রক্টরসহ অন্যান্য পদের কর্মকর্তারা তাদের দায়িত্ব বুঝে নিয়েছেন।

উপাচার্য বিরোধী আন্দোলনের ফলে সৃষ্ট অচলাবস্থার প্রতিবাদে শাবিপ্রবি’র সাধারণ শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করে। বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে এই মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়। মানববন্ধনে প্রায় শতাধিক শিক্ষার্থী অংশ নেয়। মানববন্ধনে অংশ নেয়া শিক্ষার্থীরা জানান, কতিপয় স্বার্থান্বেষী শিক্ষকদের আন্দোলনের নামে শিক্ষা কার্যক্রমে বিঘœ সৃষ্ট ও তাদের নিজস্ব স্বার্থ হাসিলের উদ্দেশ্যে বিশ্ববিদ্যালয় অচল করার ষড়যন্ত্র চলছে। ক্লাস পরীক্ষা চালানোর কথা বললেও সারাদিন উপাচার্য ভবনের সামনে বসে থেকে তারা কিভাবে ক্লাস পরীক্ষা ঠিকভাবে নিচ্ছেন এটা শিক্ষার্থীদের বোধগম্য নয়। তারা অবিলম্বে আন্দোলনকারী শিক্ষকদের আন্দোলন থেকে সরে এসে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাভাবিক কার্যক্রম সচল করার আহ্বান জানান। উপাচার্যের অপসারণের দাবিতে বুধবার সকাল ৮টা থেকেই প্রশাসনিক ভবন অবরুদ্ধ করে অবস্থান কর্মসূচী পালন করেন ‘মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ শিক্ষকদের একাংশ’। ফলে আজও উপাচার্য তার কার্যালয়ে প্রবেশ করতে পারেনি। কার্যালয় অবরুদ্ধ থাকায় প্রশাসনিক কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। তবে ক্লাস পরীক্ষা যথারীতি চলছে। আন্দোলনকারী শিক্ষকরা জানান, উপাচার্য অপসারণ না করা পর্যন্ত তাদের কর্মসূচী চলবে।

প্রকাশিত : ২৫ জুন ২০১৫

২৫/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: