আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৭ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

দর্জিবাড়ির খোঁজখবর

প্রকাশিত : ২২ জুন ২০১৫

মানুষের মৌলিক চাহিদার মধ্যে খাদ্যের পর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হচ্ছে বস্ত্র। পোশাকের চাহিদা অনুধাবন করতে পেরেছিল মানুষ আদিম যুগ থেকেই। সৃষ্টির আদিলগ্ন থেকে মানুষ পোশাক হিসেবে বিভিন্ন গাছের বাকল, পাতা, পশুর চামড়া ব্যবহার করে এসেছে। বর্তমান সময়ে পোশাকের ক্ষেত্রে মানুষের রুচিতে এসেছে পরিবর্তন। আধুনিক বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে যার প্রভাব পড়ছে নিজের গায়ে ওঠা পোশাকটিতে। কেউ পছন্দ করে টি-শার্ট আবার কারও পছন্দ ফরমাল শার্ট। কেউ স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে জিন্সে আবার কেউ আবার গ্যাভার্ডিং প্যান্টে। ঠিক তেমনি মেয়েদের পোশাকের বেলায়ও রয়েছে হরেক রকমের রকমফের। এই যেমন- সালোয়ার কামিজ, টপস, ফতুয়াসহ নানা রকমের পোশাক।

বর্তমান সময়ে ফ্যাশন হাউসগুলো নিত্যনতুন ফ্যাশনের পোশাক তৈরি করছে। এর চাহিদাও রয়েছে ব্যাপক। তরুণ-তরুণীদের পছন্দের ওপর খেয়াল রেখেই তৈরি করা হচ্ছে পোশাকগুলো। যারা আবার একটু বেশি ফ্যাশনসচেতন তারা কিন্তু এ সকল ফ্যাশন হাউসে ভিড় করছে না। তারা ভিড় জমাচ্ছে বিভিন্ন টেইলার্সে। টেইলার্সে গিয়ে তারা যেন সকলেই ফ্যাশন ডিজাইনার হয়ে যান। আসলে নিজের মনের মতো পোশাক তৈরির ক্ষেত্রে টেইলার্সের ভূমিকা অপরিহার্য। এ নিয়ে চট্টগ্রামে অবস্থিত স্বর্ণালি লেডিস টেইলার্সের প্রধান কাটিং মাস্টার বলেন, ভোক্তাদের নিত্যনতুন ডিজাইনে আমরা খুবই রোমাঞ্চিত থাকি। রোমাঞ্চিত এই অর্থে বললাম, যখন আপনি তিন-চারটি পোশাকের ডিজাইন একটি পোশাকে গিয়ে করবেন তখন সেটি আপনার কাছে এক নতুন অভিজ্ঞতার সঞ্চার ঘটাবে। দরজায় কড়া নাড়ছে মুসলিম জাহানের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় অনুষ্ঠান ঈদ-উল-ফিতর। এই ঈদ-উল-ফিতরকে কেন্দ্র করে জমজমাট হয়ে ওঠে টেইলার্সগুলো। কিছু লেডিস এবং জেন্টস টেইলার্সের মজুরি এবং এর বিভিন্ন দিক তুলে ধরা হলো-

গুলবাগ

মেয়েদের ফ্যাশন জগতে এক অপ্রতিদ্বন্দ্বীর নাম হচ্ছে গুলবাগ। ঢাকা নিউমার্কেটে গুলবাগ অবস্থিত। তারা মেয়েদের বিভিন্ন রুচিশীল পোশাক তৈরিতে পারদর্শী। বহু বছর ধরে তারা ভোক্তা সেবা প্রদান করে আসছে। গুলবাগে প্রতিটি সালোয়ার-কামিজ তৈরি করতে খরচ করতে হবে ৫০০ টাকা করে। এবং ফতুয়া তৈরিতে লাগবে ৩০০ টাকা। গুলবাগে গিয়ে কথা হলো নূর জাহান বেগমের সঙ্গে। নিজের এবং মেয়ের পোশাক বানাতে তারা গুলবাগে এসেছেন। কাপড় তৈরির ব্যাপারে নূর জাহান বলেন, গুলবাগে কাপড় বানাতে দেই সেই স্কুলের সময় থেকে। তখন আমি মায়ের সঙ্গে আসতাম। আর এখন আসছি মেয়েকে নিয়ে।

শীলা ফ্যাশন

পুরান ঢাকার জেলখানার ঢালে অবস্থিত শীলা ফ্যাশন অবস্থিত। পুরো জেলখানার ঢালসহ নাজিমউদ্দিন রোড এলাকায় শীলা ফ্যাশনের বেশ নামডাক। শীলা ফ্যাশনে গিয়ে কথা হলো এর নিয়মিত ভোক্তা আনোয়ারা বেগম মুসলিম স্কুল এ্যান্ড কলেজের সিনিয়র শিক্ষিকা লিজিয়া আখতারের সঙ্গে। তিনি জানালেন, স্কুলের চাপের কারণে মার্কেটে খুব একটা যাওয়া হয় না। স্কুলের কাছে এই টেইলার্স হওয়ায় এখান থেকেই নিজের এবং নিজের মেয়ের পোশাক তৈরি করাতে দেন। শীলা ফ্যাশনে সালোয়ার কামিজ তৈরিতে খরচ পড়বে ২৫০ টাকা, ফতুয়া এবং মেয়েদের শার্ট তৈরি করতে খরচ পড়বে ১৮০ টাকা থেকে ২০০টাকা পর্যন্ত।

প্রকাশিত : ২২ জুন ২০১৫

২২/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: