মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

আর্জেন্টিনার জার্সিতে মেসির ‘১০০’

প্রকাশিত : ২২ জুন ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ পঞ্চম আর্জেন্টাইন ফুটবলার হিসেবে ১০০তম ম্যাচ খেলার গৌরব অর্জন করেছেন লিওনেল মেসি। বাংলাদেশ সময় রবিবার ভোরে কোপা আমেরিকা ফুটবলে জ্যামাইকার বিরুদ্ধে মাঠে নেমে এ কৃতিত্ব দেখান সাবেক টানা চারবারের ফিফা সেরা ফুটবলার। ২০০৫ সাল থেকে জাতীয় দলের হয়ে খেলা মেসি এ পর্যন্ত ১০০ ম্যাচে করেছেন ৪৬ গোল। তবে তার আপসোস, এখন পর্যন্ত জিততে পারেননি কোন আন্তর্জাতিক শিরোপা।

এর আগে চার আর্জেন্টিনার হয়ে শতাধিক ম্যাচ খেলেছেন। এরা হলেনÑ জ্যাভিয়ের জানেত্তি (১৪৫), রবার্তো আয়ালা (১১৫), জ্যাভিয়ের মাশ্চেরানো (১১৩) ও দিয়াগো সিমিওনে (১০৬)। আর্জেন্টিনার হয়ে সবচেয়ে বেশি গোলের দৌড়েও খুব বেশি দূরে নন মেসি। বর্তমানে সবচেয়ে বেশি গোলের মালিক সাবেক স্ট্রাইকার গ্যাব্রিয়েল বাতিস্তুতা। তার গোলসংখ্যা ৫৬। বাতিগোলের পাশে আসতে মেসির লাগবে আর মাত্র ১০ গোল। সময় যে খুব বেশি লাগবে না সেটি বলাইবাহুল্য। চলমান কোপা আমেরিকাতেই সুযোগ ছিল আরও কাছে আসার বা ছাড়িয়ে যাওয়ার। কিন্তু অবিশ্বাস্য হলেও সত্য, প্রথম ম্যাচে প্যারাগুয়ের বিরুদ্ধে পেনাল্টি থেকে এক গোল ছাড়া আর কোন ম্যাচে প্রতিপক্ষের জাল খুঁজে পাননি মেসি।

অবাক করা বিষয় হচ্ছে, ২০০৫ সালে হাঙ্গেরির বিরুদ্ধে লাল কার্ড আর কান্নায় জাতীয় দলের হয়ে যাত্রা শুরু হয়েছিল মেসির। সেই মেসি দশ বছরের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে শততম ম্যাচ খেললেন। কিন্তু এই সময় দেশের হয়ে কিছুই জেতা হয়নি তার। বিশ্বকাপ জিততে না পারার আক্ষেপে পুড়েন গত বছর ব্রাজিল বিশ্বকাপে। স্বপ্ন পূরণের কাছাকাছি এসে ফাইনালে জার্মানির কাছে হেরে স্বপ্নভঙ্গ। কোপা আমেরিকাও তো জেতা হয়নি খুদে এই জাদুকরের। বার্সিলোনার জার্সি গায়ে তার একের পর এক সাফল্য আলবিসেলেস্তেদের হয়ে অনুদিত হয়নি। ১৫ বছরের ক্যারিয়ারে এখানে তিনি ব্যর্থ মেসি! তবে এই ব্যর্থতা ঘোচানোর সুবর্ণ সুযোগ এখন তার সামনে। জ্যামাইকার বিরুদ্ধে যে মাইলফলক স্পর্শ করেছেন, তা আরও স্মরণীয় হবে যদি তিনি কোপার ট্রফি উঁচিয়ে ধরতে পারেন।

শততম ম্যাচে সব আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দুতে ছিলেন মেসি। ভিনা ডেল মারের ম্যাচটিতে প্রথম থেকে প্রাধান্যও ছিল মেসির। একপেশে প্রথমার্ধের প্রায় পুরোটাতেই ছিল অধিনায়কের মাইলস্টোনকে স্মরণীয় করে রাখার প্রচেষ্টা। কিন্তু জ্যামাইকার খেলোয়াড়রাও ছেড়ে কথা বলেননি। মেজর লীগ সকার ও ইংলিশ ফুটবলের নিচু সারির লীগে খেলার অভিজ্ঞতা সম্পন্ন জ্যামাইকানরা ভালই প্রতিরোধ গড়ে তোলেন। বিশেষ করে গোলরক্ষক ডোয়াইন মিলার অসাধারণ কয়েকটি গোলের সুযোগ রক্ষা করে আর্জেন্টিনাকে হতাশ করেন। যে কারণে মেসিও শততম ম্যাচে গোলের দেখা পাননি।

জ্যামাইকার বিরুদ্ধে ম্যাচে দলের পারফর্মেন্সে হতাশা ব্যক্ত করেছেন আর্জেন্টাইন কোচ জেরার্ডো মার্টিনো। বিশ্বকাপের ফাইনালিস্টদের জন্য র‌্যাঙ্কিংয়ে ৬৫ নম্বরে থাকা দলের বিরুদ্ধে এমন পারফর্মেন্স কাম্য নয় বলে মনে করেন তিনি। হতাশ মার্টিনো ম্যাচ শেষে বলেন, প্রথমার্ধ ঠিকই ছিল। ভাল খেলেই দ্রুত আমরা গোলও আদায় করে নিয়েছি। পাঁচ থেকে ছয়টি সুযোগও সৃষ্টি হয়েছিল। কিন্তু ম্যাচের শেষের দিকে আমরা খেই হারিয়ে ফেলি। এরপরও যা কিছু প্রয়োজনীয় ছিল আমরা সেটা করার চেষ্টা করেছি। দ্বিতীয়ার্ধে আমরা শারীরিকভাবে কিছুটা পিছিয়ে গিয়েছিলাম। কোয়ার্টার ফাইনালের আগে আর্জেন্টিনা কয়েক দিনের বিশ্রাম পাচ্ছে। এ প্রসঙ্গে মার্টিনো বলেন, কোয়ার্টার ফাইনালের আগে এই বিশ্রাম প্রয়োজন ছিল। এক সপ্তাহে তিন ম্যাচ খেলে খেলোয়াড়রা বেশ পরিশ্রান্ত।

প্রকাশিত : ২২ জুন ২০১৫

২২/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: