মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

আগ্রহের কেন্দ্রে মুস্তাফিজ

প্রকাশিত : ২১ জুন ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ মাত্র একটা ওয়ানডে খেলেছেন। এর আগে পর্যন্ত তাঁকে চিনতই না বিশ্বক্রিকেট। ভারতীয় দল তো দূরের কথা, খোদ বাংলাদেশের অনেক মানুষই তো সেভাবে চিনতে পারেননি সবেমাত্র দাঁড়ি-গোঁফ গজিয়ে ওঠা মুস্তাফিজুর রহমানকে। কিন্তু কয়েকটা মুহূর্তের কাজটাই যে নিজেকে বিশ্বব্যাপী চিনিয়ে দেয়ার জন্য যথেষ্ট সেটা প্রমাণ করে দিলেন সাতক্ষীরার ১৯ বছর বয়সী এ তরুণ। যারা গত বৃহস্পতিবার মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে উপস্থিত ছিলেন তাঁরা সবাই যেমন দেখে বিস্মিত হয়েছেন, তেমনি বিশ্বব্যাপী ক্রিকেট ভক্ত-সমর্থকরা টিভি পর্দায় ও ইন্টারনেটে মুস্তাফিজের অস্বাভাবিক সুইং দেখে চোখ কপালে তুলেছেন। একাই ৫ উইকেট নিয়ে ভারতীয় ব্যাটিংয়ের মেরুদ- চিরে দিয়েছেন মুস্তাফিজ। অভিষেক ওয়ানডেতেই দুটি ডাবল সেঞ্চুরির মালিক রোহিত শর্মা, আজিঙ্কা রাহানে, সুরেশ রায়না, রবীন্দ্র জাদেজা ও রবিচন্দ্রন অশ্বিনকে সাজঘরে ফিরিয়েছেন অসাধারণ সেøায়ার, কাটার ও সুইংয়ের ক্যারিশমায় বিভ্রান্ত করে। তাই আজ সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে এ বিস্ময় তরুণই আলোচনার কেন্দ্রে। ভারতীয় শিবিরেরও আগ্রহের কেন্দ্রে পেসার মুস্তাফিজ।

ভারতীয় দলের ব্যাটিংয়ের সময় মাত্র সাড়ে তিন ঘণ্টায় মুস্তাফিজ বড়জোর নিজেকে প্রমাণ করার সুযোগ পেয়েছিলেন ৪৫/৫০ মিনিট। এর মধ্যেই তিনি তা-ব চালিয়েছেন। রোহিত-রাহানের গুরুত্বপূর্ণ উইকেট দুটি তুলে নিয়েছিলেন বলেই সম্ভবত অন্ধ আক্রোশে ভারতীয় অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনিও খেই হারিয়ে ফেলেছিলেন। আর সে কারণেই তিনি ইচ্ছাকৃতভাবে রান নিতে গিয়ে কনুইয়ের তীব্র গুঁতোয় আহত করেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আনকোরা মুস্তাফিজকে। তবে ফিরে আরও ভয়ঙ্কর মুস্তাফিজ নিজের সামর্থ্যটা যেন আগুনের গোলার মতো ছুড়লেন ভারতীয় ব্যাটিং লাইনআপে। মিডলঅর্ডার ধসে গেল।

একাই ভারতের কাছ থেকে ম্যাচটাকে ছিনিয়ে নিয়ে গেলেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অচেনা মুস্তাফিজ। অথচ বুধবারও তাঁকে নিয়ে কোন মাথাব্যথা ছিল না ভারতীয় দলের। থাকলেও কোন লাভ হতো না। কারণ মুস্তাফিজকে বোঝার জন্য, তিনি কি ধরনের বোলার তা সমঝে ওঠার জন্য যে ভিডিওচিত্র প্রয়োজন সেসব তো নেই। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে গত এপ্রিলে একমাত্র টি-২০ ম্যাচে দুর্দান্ত বোলিং করে এ দেশের ক্রিকেটপ্রেমী সবার মনে একটা দাগ কেটেছিলেন মুস্তাফিজ। তখনই প্রথম মুস্তাফিজের নাম জেনেছিলেন সবাই। তার আগে পর্যন্ত ঘরোয়া ক্রিকেটে কার হয়ে খেলেছেন, কেমন খেলেছেন সেটা কেউ দেখেওনি। তাই সবাই বিস্মিত হয়েছিলেন ধূমকেতুর মতো উদয় হওয়া মুস্তাফিজকে ঘোষিত স্কোয়াডে নাম দেখে। এবার ভারতের বিরুদ্ধে ওয়ানডে সিরিজের ঘোষিত দলে মুস্তাফিজের নাম দেখেও অনেকে কিছুটা চমকে গেছেন। আরও বেশি বিস্মিত হয়েছেন প্রথম ওয়ানডেতে বাংলাদেশ দল যে একাদশ গঠন করেছে তাতে ক্ষুদ্র ঘরোয়া ক্রিকেট ক্যারিয়ারের মুস্তাফিজকে দেখে। পরে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা সংবাত সম্মেলনে দাবি করেন মুস্তাফিজকে জায়গা দিতেই চার পেসার তত্ত্ব এবং ফর্মে থাকা স্পিনার আরাফাত সানিকে বাদ দেয়া।

বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে ভারতের বিরুদ্ধে তিন পেসার নিয়ে খেলেছিল বাংলাদেশ দল। ওই ম্যাচে দুর্দান্ত বোলিং করেছিলেন রুবেল হোসেন, মাশরাফি ও তাসকিন আহমেদ। তাই প্রথম ওয়ানডেতে নামার আগে এ তিন পেসারকে নিয়ে চুলচেরা বিশ্লেষণ করেছে ভারতীয় দল। পরিকল্পনা তৈরি করেছে মোকাবেলার। বিশেষ করে তাসকিন ও রুবেল। বিশ্বকাপে রুবেল ঝড় তুলেছিলেন এবং তাসকিন অভিষেকেই ভারতের বিরুদ্ধে নিয়েছিলেন ৫ উইকেট। কিন্তু মুস্তাফিজ ছিলেন তাঁদের পরিকল্পনার বাইরে। এমন কত পেসারই তো আসে-যায় এবং অন্য যে কারও মতোই ভারতীয় দলও ভেবে নিয়েছিল মুস্তাফিজ খেলছেন না প্রথম ওয়ানডে। আর এই সুযোগটাই কাজে লাগালেন মাশরাফি। অভিষেকেই ইনিংসের প্রথম ওভার করলেন তিনি। চমকের ওপর চমক!

বিস্ময়টা কাজে লাগিয়ে সবাইকে অভিভূত করলেন মুস্তাফিজ। দৃষ্টি কাড়লেন সবার। এখন ভারতীয় শিবিরের ঘুম হারাম মুস্তাফিজ ঠেকানোর মন্ত্র বের করতে। যে করেই হোক ঠেকাতে হবে বাংলাদেশের ‘ছোট বাঘ’ মুস্তাফিজকে। না হলে সর্বনাশ আরেকটি ঘনিয়ে আসল বলে। বাংলাদেশের ক্রিকেটপ্রেমী মানুষও এমন প্রত্যাশা নিয়েই তাকিয়ে থাকবেন আজ। মুস্তাফিজ আবারও দুমড়ে দেবেন, মুচড়ে বিপর্যস্ত করবেন ক্রিকেট পরাশক্তি ভারতের শক্ত ব্যাটিং লাইনআপকে। সবার আগ্রহের কেন্দ্রে এখন সাকিব-তামিম, রুবেল, মাশরাফি নয়, তরুণ মুস্তাফিজ। তবে তাঁর জন্য দ্বিতীয় ওয়ানডেতে এই মনোযোগই চ্যালেঞ্জের কারণ হবে বলে মনে করেন বাংলাদেশের কোচ চান্দিকা হাতুরাসিংহে।

প্রকাশিত : ২১ জুন ২০১৫

২১/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: