কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

এবারের বাজেটে পরিবেশ রক্ষা গুরুত্ব হারিয়েছে

প্রকাশিত : ২১ জুন ২০১৫
  • সংবাদ সম্মেলনে বাপার দাবি

স্টাফ রিপোর্টার ॥ উন্নয়ন পরিকল্পনার অন্যতম মূল বিবেচ্য হলেও এবারের বাজেটে পরিবেশ রক্ষায় গুরুত্ব হারিয়েছে বলে দাবি করেছে পরিবেশ সংগঠন বাপা। তাদের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, বর্তমান সরকারের প্রথম দুটি বাজেটে পরিবেশকে যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করা হলেও এবার পরিবেশ সংরক্ষণ ও উন্নয়নে স্পষ্ট বা দৃঢ় কোন পদক্ষেপ নেয়া হয়নি। ৭ম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা বাস্তবায়ন জুলাই থেকে শুরু হতে যাচ্ছে। অথচ এখানেও পরিবেশ উন্নয়ন বা সংরক্ষণ বিষয়ে কোন কথা বলা হয়নি। জলবায়ু পরিবর্তন রোধে বিষয়েও এবারের বাজেটে কোন প্রতিফলন নেই।

শনিবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলতে এ দাবি করা হয়। এতে আরও বলা হয় দেশের সার্বিক পরিবেশ সঙ্কট আজ চরম আকার ধারণ করেছে। এ অবস্থায় সার্বিক উন্নয়ন পরিকল্পনায় পরিবেশ সংরক্ষণকে মূল বিবেচনায় রেখে সকল কার্যক্রম গ্রহণ করে তার ভিত্তিতেই বাজেট প্রণয়ন করতে হবে। ৭ম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা বাস্তবায়ন জুলাই থেকে শুরু হতে যাচ্ছে। অথচ এখানেও পরিবেশ উন্নয়ন বা সংরক্ষণ বিষয়ে কোন কথা বলা হয়নি। সংবাদ সম্মেলনে বলা হয় জলবায়ু পরিবর্তন হুমকিতে থাকা দেশের পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব অনেক বেশি ও গুরুত্বপূর্ণ। বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলা ও সার্বিক পরিবেশ সংরক্ষণে দেশের অভ্যন্তরে ও সারা বিশ্বে অন্যতম নেতৃত্বের ভূমিকায় থাকতে হবে। অথচ পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের বর্তমান কার্যক্রম অত্যন্ত স্থবির। এ ধরনের কর্মবিমুখ, পরিকল্পনা বিহীন মন্ত্রণালয় দেশের জন্য ব্যাপক ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। সংবাদ সম্মেলনে উল্লেখ করা হয় পরিবেশ সংরক্ষণ ও উন্নয়নে সরকারের বিভিন্ন ঘোষণা, প্রতিশ্রুতি ও পদক্ষেপ উৎসাহিত করে। কিন্তু যখন একদিকে পরিবেশ রক্ষায় সরকারের কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণের প্রতিশ্রুতি, অন্যদিকে কিছু সুবিধাভোগী বিশেষ মহলের সহযোগিতায় দেশের নদী-খাল-জলাশয় দখল ও দূষণ, বনভূমি ধ্বংসসহ পরিবেশ বিধ্বংসী বিভিন্ন অপকর্ম অবলীলায় চলতে থাকে, সুন্দরবন ধ্বংসের নামে রামপালে তাপবিদ্যুত কেন্দ্র নির্মাণের মতো পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয় তখন হতাশ হতে হয়। পরিবেশের সঙ্গে সম্পর্কিত পানি, নদী, বন, জ্বালানি, পরিবহন, কৃষি, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনাসহ সার্বিক জাতীয় নীতিমালার পুনর্মূল্যায়ন এবং সে অনুযায়ী অগ্রাধিকার ভিত্তিতে কার্যক্রম গ্রহণ করার আহ্বান জানানো হয় সংবাদ সম্মেলনে। বাপার সাধারণ সম্পাদক ডা. আবদুল মতিন বলেন, পরিবেশ বর্তমান সময়ের উন্নয়ন পরিকল্পনার অন্যতম মূল বিবেচ্য বিষয়। একটি নির্দিষ্ট কোন মন্ত্রণালয় বা খাত নয় অনেক বা অধিকাংশ খাতেই পরিবেশের উপাদান রয়েছে। বাজেটের পরিবেশের বিষয় বিবেচনা করার অর্থ সমগ্র বাজেটের বিবেচনারই নামান্তর। কিন্তু এবারের পরিবেশ রক্ষায় বাজেটে অর্থমন্ত্রীর পদক্ষেপ গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করা হয়নি। কিছু ক্ষেত্রে তার বক্তব্যকে কথার কথা মনে হয়েছে। অথচ বর্তমান সরকারের প্রথম দুটি বাজেটে পরিবেশকে যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করা হয়েছিল।

তিনি বলেন, নবায়নযোগ্য জ্বালানি দেশের জন্য সার্বিক বিচারে সবচেয়ে গ্রহণযোগ্য পদ্ধতি। সরকার এখনও সোলার প্রশ্নে টোকেন মনোভাব নিয়ে কাজ করছেন।

প্রকাশিত : ২১ জুন ২০১৫

২১/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

অন্য খবর



ব্রেকিং নিউজ: