কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

থ্রি-ডি প্রিন্টার এখন বাংলাদেশে

প্রকাশিত : ২০ জুন ২০১৫

আইটি ডট কম প্রতিবেদক ॥ একটি থ্রি-ডি প্রিন্টার হচ্ছে একটি কম্পিউটার-এইডেড নির্মিত যন্ত্র যা ত্রিমাত্রিক বস্তু বানায়। সনাতন প্রিন্টারের মতো, একটি থ্রি-ডি প্রিন্টার ইনপুট হিসেবে একটি কম্পিউটার থেকে ডিজিটাল ডাটা পায়। তবে, আউটপুট কাগজের ওপরে ছাপার বদলে থ্রি-ডি প্রিন্টার একটি ত্রিমাত্রিক মডেল তৈরি করে প্রচলিত বস্তুর বাইরে। থ্রি-ডি প্রিন্টার স্তরে স্তরে বস্তু সংযোজনের মাধ্যমে মডেলটি গঠন করতে থাকে যতক্ষণ না পুরোপুরি সম্পূর্ণ হয়। এটি একটি মেশিন পুনর্নির্মাণ করা বা একটি বিদ্যমান ছাঁচ থেকে উপাদান সরিয়ে ফেলার মতো হ্রাসমূলক উৎপাদনের চেয়ে ভিন্ন। যেহেতু থ্রি-ডি প্রিন্টার গোড়া থেকে মডেল বানায়, তাই এগুলো আরও বেশি কার্যকর হ্রাসমূলক যন্ত্রের চেয়ে এবং কম আবর্জনা তৈরি করে। একটি থ্রি-ডি মডেল প্রিন্টিং প্রক্রিয়া পরিবর্তিত হয়। বস্তু তৈরি করতে ব্যবহার করা উপাদানের ওপর নির্ভর করে। উদাহরণস্বরূপ, একটি প্লাস্টিক মডেল বানানোর সময় একটি থ্রি-ডি প্রিন্টার প্লাস্টিকের স্তর গরম করবে আর গলিয়ে একসঙ্গে করে জোড়া লাগাবে। একটি ধাতব জিনিস বানানোর সময়, একটি থ্রি-ডি প্রিন্টার একটি উচ্চক্ষমতাপ্রাপ্ত লেজার ব্যবহার করে ধাতব গুঁড়া থেকে ধাতুর পাতলা স্তর গঠন করে। যদিও থ্রি-ডি প্রিন্টিং সম্ভব হয়েছে ১৯৮০ থেকে, এটা বহুল শিল্পবিষয়ক উদ্দেশ্যের জন্য প্রাথমিকভাবে ব্যবহার করা হয়েছে। তথাপি, সাম্প্রতিক বছরে, থ্রি-ডি প্রিন্টার অনেক বেশি সস্তা হয়েছে আর এখন ভোক্তা বাজারে পাওয়া যায়। যেহেতু প্রযুক্তি আরও বিস্তৃত হচ্ছে, হয়ত থ্রি-ডি প্রিন্টার মানুষের জন্য একটি টেকসই উপায় হবে তাদের নিজের ঘর দ্রব্য বানাতে।

বাংলাদেশে বাণিজ্যিকভাবে প্রথম থ্রি-ডি প্রিন্টার নিয়ে এসেছে ইউনিক বিজনেস সিস্টেম লিমিটেডে। এছাড়া রাজশাহী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষণার কাজে অনেক আগেই এসেছে থ্রি-ডি প্রিন্টার।

প্রকাশিত : ২০ জুন ২০১৫

২০/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: