আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

হাওড়াঞ্চলের বিয়েতে ধামাইল গান

প্রকাশিত : ২০ জুন ২০১৫

নারী-পুরুষের সামাজিক বন্ধন রচিত হয় বিয়ের মধ্য দিয়ে। আর এ বিয়েকে কেন্দ্র করে একেক সমাজে রয়েছে একেক ধরনের আচার-অনুষ্ঠান বা রীতি-রেওয়াজ। এর মধ্যে কিছু আচার-অনুষ্ঠান একেবারেই ধর্মাশ্রিত। আবার কিছু কিছু আচার-অনুষ্ঠান সম্পূর্ণ লৌকিক। বর-কনের মঙ্গল কামনায় সমাজের মানুষ এসব আচার-অনুষ্ঠান বা রীতি-নীতি যুগ যুগ ধরে পালন করে আসছে। আর এসবের মধ্য দিয়েই অটুট থাকছে সামাজিক বন্ধন।

দেশের হাওড়াঞ্চলে প্রচলিত এমনই একটি লৌকিক আচার বা অনুষ্ঠানের নাম ‘ধামাইল গান’। নেত্রকোনা, কিশোরগঞ্জ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও বৃহত্তর সিলেটের হাওড়বেষ্টিত কিছু কিছু এলাকায় হিন্দু বিয়ের ক্ষেত্রে এটি অত্যাবশ্যকীয় অনুষঙ্গ। এসব এলাকার গ্রামীণ নারীদের ধামাইল গান বা নৃত্য ছাড়া বিয়ের আনন্দই পূর্ণ হয় না। আর তাই কোন রকম প্রশিক্ষণ ছাড়াই যুগ যুগ ধরে এ গানের চর্চা করে আসছেন তারা। সাধারণত বিয়ের জলভরা, যাত্রা বা দ্বিরাগমণের সময় ধামাইল গানের আয়োজন করা হয়। গানের আগে মহিলারা নদী বা পুকুর থেকে কলসি ভরে জল আনে। এরপর বর বা কনেকে পরিবেশন স্থানের মাঝখানে চেয়ার বা পিঁড়িতে বসিয়ে তাদের সামনে পানি ভর্তি কলসি সাজিয়ে রাখে। কলসি ছাড়াও উপকরণ হিসেবে থাকে লুঙ্গি, গামছা, সাবান, সিঁদুর, ধান, দূর্বা, কুলা, ফুল, প্রদীপ প্রভৃতি। গায়িকারা বর, কনের চারপাশে বৃত্তাকারে ঘুরে গান পরিবেশন করে। এ ধরনের গানে সাধারণত বর-কনের বৌদি, বোন, বিয়ান, ঠাকুরমা, দিদিমা প্রভৃতি সম্পর্কের (যাদের সঙ্গে হাসি-ঠাট্টা চলে) আত্মীয়-স্বজনরাই অঙ্ক নিয়ে থাকে। গান শেষে কলসির পানি দিয়ে বর, কনে ও বরের ভগ্নিপতিকে স্নান করানো হয়। স্নানের পর তাদের জামা বা প্যান্টের কাপড়, গেঞ্জি, লুঙ্গি প্রভৃতি উপহার দেয়া হয়।

ধামাইল সঙ্গীত একটু স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্যম-িত। মূলত ছন্দোবদ্ধ করতালির মাধ্যমে এ গানের তাল-লয় নিয়ন্ত্রণ করা হয়। শুরুতে একজন গান ধরেন। তিনি একটি চরণ গাওয়ার পর তার সঙ্গে সবাই সম্মিলিতভাবে করতালি দিয়ে কণ্ঠ মেলান এবং বৃত্তাকারে ঘুরতে থাকেন। উঠানের খোলা জায়গাতেই গাওয়া যায়। রাধা-কৃষ্ণের প্রেমকাহিনী ধামাইল গানের মূল বিষয়। গ্রামের অতি সাধারণ পরিবারের নারীরাই ধামাইল গানের শিল্পী। দিনের পর দিন দেখতে দেখতে অথবা গাইতে গাইতে তাদের গান শেখা হয়ে যায়।

Ñসঞ্জয় সরকার, নেত্রকোনা থেকে

প্রকাশিত : ২০ জুন ২০১৫

২০/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: