মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

নারী পুলিশকে ধর্ষণ ধর্ষক এএসআই রিমাণ্ডে

প্রকাশিত : ১৯ জুন ২০১৫, ০১:১১ এ. এম.

কোর্ট রিপোর্টার ॥ নারী পুলিশ কনস্টেবলকে ধর্ষণের অভিযোগের মামলায় ধর্ষক পুলিশের এএসআই কালিমুর রহমানের ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে ঢাকা সিএমএম আদালত।

বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর ম্যাজিস্ট্রেট মেহের নিগার সূচনা শুনানি শেষে এ আসামির জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা খিলগাঁও থানার পুলিশ পরিদর্শক কবিরুল ইসলাম এ আসামিকে বৃহস্পতিবার আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন।

গত ১৭ জুন সকালে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল কালিমুর রহমানকে কক্সবাজারের কলাতলী এলাকা থেকে গ্রেফতার করে।

গত ১৬ জুন মামলাটিতে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনের ২২ ধারায় ধর্ষিতা পুলিশ সদস্য আদালতে জবানবন্দী প্রদান করেন।

তুরাগ থানার কনস্টেবল পদে বর্তমানে কমরত ধর্ষণের শিকার ওই নারী পুলিশ সদস্যের বড় বোন নাছরিন আক্তারের মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, গত ১০ জুন সন্ধ্যা ৬টায় স্পেশাল পুলিশ ব্যাটালিয়নের এএসআই কালিমুর রহমান তার বাচ্চা দেখানোর কথা বলে খিলগাঁওয়ের তিলপাপাড়ার একটি বাসায় নিয়ে যান। সেখানে কালিমুর রহমানসহ তার বন্ধুরা তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। গত ১১ জুন সকালে কৌশলে তিনি ওই বাসা থেকে বের হয়ে খিলগাঁও এলাকায় তার এক আত্মীয়ের বাসায় ওঠেন। সেখান থেকে পুলিশ হেডকোয়াটারে ডিআইজির সঙ্গে দেখা করতে যান। ডিআইজি না থাকায় সহকারী পুলিশ কমিশনার নুরে আলমকে তিনি ঘটনাটি বলেন। পরে সহকারী পুলিশ কমিশনার নূরে আলম এবং খিলগাঁও থানার ওসি মোস্তাফিজুর রহমান ধর্ষক কালিমুর রহমানকে ডেকে বিয়ের মাধ্যমে বিষয়টি মীমাংসার জন্য বলেন। কিন্তু কালিমুর রহমান বিয়েতে অস্বীকার করেন। পরে ভিকটিম অসুস্থ হয়ে গত ১২ জুন রাজারবাগ পুলিশ হাসপাতালে ভর্তি হন। সেখান থেকে গত ১৩ জুন তাকে ঢামেক হাসপাতালের ওসিসিতে রেফার করা হয়।

জানা গেছে, খিলগাঁও থানার সাবেক সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) কালিমুর রহমানের সঙ্গে ২০১১ সালে তার বিয়ে হয়। ২০১৪ সালে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়।

প্রকাশিত : ১৯ জুন ২০১৫, ০১:১১ এ. এম.

১৯/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: