রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য বিল নিয়ে বাংলাদেশের উদ্বেগ

প্রকাশিত : ১৮ জুন ২০১৫, ১২:৪৬ এ. এম.

স্টাফ রিপোর্টার ॥ যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য বিল নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ। ওয়াশিংটনে রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন কংগ্রেসম্যান ব্র্যাড শেরমান ও টম মারিনোর সঙ্গে ক্যাপিটল হিলে পৃথক সাক্ষাত করে বাংলাদেশের এ উদ্বেগের কথা প্রকাশ করেন। বুধবার ওয়াশিংটন থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ট্রান্স প্যাসিফিক পার্টনারশিপ (টিপিপি) নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য বিল বা প্রস্তাব বাস্তবায়ন হলে বাংলাদেশের মতো স্বল্পোন্নত দেশগুলো মার্কিন বাজারে কঠিন প্রতিযোগিতার মুখে পড়বে।

রাষ্ট্রদূত সোমবার ক্যালিফোর্নিয়ার ডেমোক্রেট কংগ্রেসম্যান ও ইউএস হাউস ফরেন এ্যাফেয়ার্স কমিটির এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের উপ-কমিটির জ্যেষ্ঠতম সদস্য ব্র্যাড শেরমান ও মঙ্গলবার পেনসিলভানিয়ার রিপাবলিকান কংগ্রেসম্যান ও রেগুলেটরি রিফর্ম এ্যান্ড কমার্শিয়াল এ্যান্ড এ্যান্টিট্রাস্ট ল বিষয়ক উপ-কমিটির সভাপতি টম মারিনোর সঙ্গে বৈঠক করে এই উদ্বেগ জানান। তিনি বলেন, (এলডিসি) রাষ্ট্র হিসেবে বাণিজ্যের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে বিশেষ কোন সুবিধা পায় না। তৈরি পোশাক রফতানির ক্ষেত্রে বাংলাদেশের প্রধান বাজারের একটি যুক্তরাষ্ট্র। বাংলাদেশের মোট রফতানির প্রায় এক-চতুর্থাংশই যায় যুক্তরাষ্ট্রে। সেখানে বাংলাদেশের পোশাক রফতানিতে শুল্ক দিতে হচ্ছে। অথচ এলডিসির আওতায় থাকা বিশ্বের অধিকাংশ রাষ্ট্রকে কোন বাণিজ্য শুল্ক দিতে হয় না, বরং দেশগুলো জিরো ট্যারিফের আওতাভুক্ত।

রাষ্ট্রদূত যুক্তরাষ্ট্র নারীদের ক্ষমতায়নে অগ্রবর্তী ভূমিকা রাখছে উল্লেখ করে তাদের বলেন, বাংলাদেশে নারীর ক্ষমতায়নকে উৎসাহিত করতে এবং বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের অংশীদার রাষ্ট্র হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের বাংলাদেশ থেকে পণ্য আমদানির ক্ষেত্রে শুল্ক ও কোটামুক্ত বাণিজ্য সুবিধা দেয়া উচিত। কারণ বাংলাদেশের প্রায় ৯০ শতাংশ পোশাক শ্রমিকই নারী যারা বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছেন।

এদিকে ব্র্যাড শেরমানের এক প্রশ্নের জবাবে রাষ্ট্রদূত বলেন, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের উচিত বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমারকে রাজি করানো। কারণ বাংলাদেশের এই বিপুলসংখ্যক শরণার্থীর দায়িত্ব নেয়ার সামর্থ্য নেই। তাছাড়া মিয়ানমার থেকে আগত রোহিঙ্গা শরণার্থীদের অনেকে ধর্মীয় জঙ্গিবাদসহ নানা অপরাধ কর্মকা-ে জড়িয়ে পড়ছে।

প্রকাশিত : ১৮ জুন ২০১৫, ১২:৪৬ এ. এম.

১৮/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: