কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

রনির বন্ধু কামালের জবানবন্দী

প্রকাশিত : ১৮ জুন ২০১৫, ১২:৩৮ এ. এম.
  • ইস্কাটনে জোড়া খুন

কোর্ট রিপোর্টার ॥ এলোপাতাড়ি গুলি ছুড়ে দু’জনকে হত্যা মামলায় এমপিপুত্র বখতিয়ার আলম রনির বন্ধু কামাল মাহমুদ আদালতে সাক্ষী হিসেবে জবানবন্দী দিয়েছেন। হত্যাকাণ্ডের প্রত্যক্ষদর্শী ও ঘটনার সময় গাড়িতে অবস্থানকারী কামাল মাহমুদ বুধবার আদালতে ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় জবানবন্দী দেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের এসআই দীপক দাসের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আমিনুল হক জবানবন্দীটি রেকর্ড করেন। রনি মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী ও সংসদ সদস্য পিনু খানের ছেলে।

অভিযোগ আছে, গত ১৩ এপ্রিল ঘটনার দিন মধ্যরাতে রাস্তায় যানজট থাকায় বিরক্ত হয়ে কোমর থেকে পিস্তল বের করে এলোপাতাড়ি গুলি করতে থাকেন রনি। তার ছোড়া গুলিতেই দু’জন মারা যান। ঘটনার সময় রনির সঙ্গে গাড়িতে তার তিন বন্ধু ছিলেন এবং তাদেরই একজন কামাল মাহমুদ। এ ঘটনায় ডিবি পুলিশ রনি ও তাঁর গাড়িচালক ইমরান ফকিরকে গ্রেফতার করে। রনিকে দায়ী করে ইমরান ইতোমধ্যে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছেন। তিনি বলেন, ইস্কাটনে যানজটে আটকা পড়ে নেশাগ্রস্ত রনি লাইসেন্স করা পিস্তল বের করে গাড়ির জানালা দিয়ে এলোপাতাড়ি চার-পাঁচটি গুলি ছোড়েন।

গত ১৩ জুন রনিকে রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠানো হয় এবং ১৬ জুন তার জামিন আবেদন নাকচ করেন ম্যাজিস্ট্রেট আদালত। রনি তদন্ত কর্মকর্তাদের বলেছেন, ওই রাতে তারা প্রথমে বাংলামোটরের একটি বারে যান। এরপর হোটেল সোনারগাঁওয়ে যান। সেখান থেকে রনি তার গাড়িতে করে মগবাজারে নামিয়ে দেন জাহাঙ্গীরকে। এরপর গাড়ি ঘুরিয়ে বাংলামোটর হয়ে হাতিরপুলে যান। নিউ ইস্কাটনে রাত পৌনে দুইটায় যানজটে পড়লে এলোপাতাড়ি গুলি ছোড়েন। তখন তিনি চালকের পাশের আসনে বসে ছিলেন। আর পেছনের আসনে ছিলেন কামালসহ দুই বন্ধু। এরপর হাতিরপুলের বাসার সামনে কামালকে এবং অন্যজনকে আরেক স্থানে নামিয়ে ধানম-ির বাসায় ফেরেন তিনি।

প্রকাশিত : ১৮ জুন ২০১৫, ১২:৩৮ এ. এম.

১৮/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: