কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

পুতিনের পরমাণু অস্ত্রসজ্জা

প্রকাশিত : ১৮ জুন ২০১৫
  • ইউরোপে ন্যাটোর শক্তি বৃদ্ধির জবাব

রাশিয়া মঙ্গলবার তার পারমাণবিক অস্ত্রসম্ভারের আকার বৃদ্ধির কথা ঘোষণা করেছে। রুশ প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন মস্কোর বাইরে আলাবিনোতে এক অস্ত্র প্রদর্শনীতে বলেন, রাশিয়া যে কোন এমনকি প্রযুক্তির দিক দিয়ে সবচেয়ে অত্যাধুনিক ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার মোকাবিলায় সক্ষম ৪০টি আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র সংগ্রহ করবে। এটি দেশের সামরিক বাহিনীকে আধুনিকীকরণের এশটি সুদূরপ্রসারী কর্মসূচীর অংশ। পূর্ব ইউরোপ এবং বল্টিক অঞ্চলে ন্যাটো জোটভুক্ত দেশগুলোতে পেন্টাগন আরও ভারি অস্ত্রশস্ত্র মোতায়েন করার পরিকল্পনা নিশ্চিত করার কয়েকদিন পর এই রুশ ঘোষণা আসল। রাশিয়ার এই অস্ত্রসম্ভার খবরে ইউক্রেন প্রশ্নে ক্রমবর্ধমান উত্তেজনার মধ্যে স্নায়ুযুদ্ধের পুরনো দুই প্রতিদ্বন্দ্বী মস্কো ও ওয়াশিংটন তাদের সামরিক শক্তি বৃদ্ধি করার পরিকল্পনা করায় নতুন করে অস্ত্র প্রতিযোগিতা শুরুর উদ্বেগ সৃষ্টি হয়েছে। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়া ওয়াশিংটন পোস্ট ও বিবিসির।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন এফ, কেরি বলেছেন, পুতিনের এই ঘোষণা ‘মনোযোগ কাড়ার জন্য’ করা হলেও উদ্বেগজনক। ভাঙ্গা পায়ে অস্ত্রোপচারের পর কেরি বোস্টনের একটি হাসপাতালে দ্রুত সেরে উঠছে না। সেখান থেকে এক টেলি কনফারেন্সে সাংবাদিকদের ব্রিফ করার সময় তিনি বলেন, আমরা বিপরীত দিকে যাওয়ার চেষ্টা করছি। ১৯৯০ এর দর্শক থেকে সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নভুক্ত অঞ্চলের পরমাণু অস্ত্রের কাঠামো বিন্যাসের ব্যাপারে আমাদের মধ্যে ব্যাপক সহযোগিতা ছিল। আর কেউই এটি দেখতে চাইবে না আমরা পেছন দিকে হাঁটছি।

তিনি বলেন, কেউই একটি শক্তিশালী দেশের একজন নেতার কাছ থেকে এ ধরনের ঘোষণা আশা করে না এবং এর পরিণতি সম্পর্কে উদ্বিগ্ন না হয়ে পারে না। এদিকে ন্যাটো পারমাণবিক অস্ত্রসম্ভারের শক্তি বৃদ্ধি করার রুশ পদক্ষেপের নিন্দা করে বলেছে, এটি পরমাণু অস্ত্রসজ্জা এবং এটি অন্যায় স্থিতিশীলতা বিনষ্টকারী ও বিপজ্জনক। ন্যাটো মহাসচিব জেন্সস্টলটেবার্গ বলেন, পুতিনের বিবৃতি একটি নির্দিষ্ট সময় ধরে রাশিয়ার স্বভাব প্রকৃতি ও আচরণবোধ সুস্পষ্ট করছে। আমরা দেখেছি রাশিয়া সাধারণভাবে প্রতিরক্ষায় এবং নির্দিষ্ট করে পারমাণবিক শক্তি বৃদ্ধিতে বিনিয়োগ করছে। তিনি আরও বলেন, ন্যাটো জোটের পূর্বাংশে যা কিছু করছে তা সামঞ্জস্যপূর্ণ, তা আত্মরক্ষামূলক আমাদের আন্তর্জাতিক অঙ্গীকারের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ। রাশিয়া ভøাদিমির পুতিনের অধীনে প্রতিরক্ষা ব্যয় পর্যাপ্ত পরিমাণ বৃদ্ধি করেছে। মস্কোর ইউক্রেনের ক্রিমিয়ায় উপদ্বীপ দখল এবং পূর্ব ইউক্রেনে রুশপন্থী বিচ্ছিন্নতাবাদী বিদ্রোহের প্রতি সমর্থনদানে স্নায়ুযুদ্ধ পর্বের পর থেকে রুশ পাশ্চাত্য সম্পর্ক নিম্নতম পর্যায়ে পৌঁছেছে। যুক্তরাষ্ট্র্র এবং ইইউ অর্থনৈতিক অবরোধ আরোপ করে রাশিয়াকে প্রত্যাঘাত করেছে এবং ওয়াশিংটন ও তার ন্যাটো মিত্ররা রাশিয়ার পদক্ষেপের পাল্টা এক ঝাঁক ব্যবস্থা গ্রহণের চিন্তাভাবনা করছে। জোটের তিন বল্টিক সদস্য এস্তোনিয়া, লাঠভিয়া ও লিথুয়ানিয়া ক্রমবর্ধমানভাবে শক্তিমত্তা তুলে ধরা রাশিয়ার বিরুদ্ধে প্রতিরোধক ব্যবস্থা হিসেবে স্থায়ীভাবে স্থলবাহিনী মোতায়েনের জন্য ন্যাটোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছে। পোলিশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী তোমাসজ্্ সাইমোনিয়াক বলেছেন, তিনি ও মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী এ্যাশটন কার্টার পোল্যান্ড ভারি সেনা সরঞ্জাম মোতায়েনের জন্য কথাবার্তা বলেছেন। ন্যাটো প্রধান বলেছেন, তিনি আশা করছেন আগামী সপ্তাহে ন্যাটো প্রতিরক্ষামন্ত্রীদের বৈঠককালে পূর্ব ইউরোপে ট্যাঙ্ক, অন্যান্য অস্ত্রশস্ত্র ও রসদ মজুদকরণের প্রস্তাব প্রসঙ্গে কার্টার অন্যান্য জোট সদস্যদের ব্রিফ করবে না। স্টলটেনবার্গ ব্রাসেলসে বলেন, মিত্রদের সমর্থন ও সুরক্ষার সকল প্রচেষ্টার প্রতি আমি সমর্থন জানাই। মস্কো এই পরিকল্পনার ক্ষোভ প্রকাশ করে ওয়াশিংটনকে সতর্ক করে দিয়েছে যে, রুশ সীমান্তের কাছে নতুন করে মার্কিন অস্ত্র মোতায়েন ইউরোপে বিপজ্জনক অস্থিরতাকে ইন্ধন জোগাবে।

প্রকাশিত : ১৮ জুন ২০১৫

১৮/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: