মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

মানবপাচার ॥ অবশেষে লাশ হয়ে খুলনায় ফিরলেন রেশমা

প্রকাশিত : ১৭ জুন ২০১৫, ১১:৪৯ এ. এম.

অনলাইন ডেস্ক ॥ দালালদের প্রলোভনের ফাঁদে পড়ে ভাগ্যের চাকা ঘোরাতে বিদেশ গিয়ে অবশেষে লাশ হয়ে ফিরলেন গৃহবধূ রেশমা বেগম (৩৫)। রেশমা খুলনার রূপসা উপজেলার নন্দনপুর গ্রামের দেলোয়ার হোসেন দিলুর স্ত্রী।

বুধবার ভোরে তার লাশ ডুমুরিয়া উপজেলার শাহপুর ইউনিয়নের বর্নি গ্রামে তার বাবার বাড়ি এসে পৌঁছেছে। রেশমা বর্নি গ্রামের মো. শাহজাহান বাওয়ালীর মেয়ে। আবীর (৭) ও আমীর (৪) নামে রেশমার দুটি সন্তান রয়েছে।

রেশমার চাচাতো ভাই স্কুল শিক্ষক হাফিজুর রহমান সাগর ও দেলোয়ার হোসেন দিলুর ছো্টভাই কামাল হোসেন বুধবার রেশমার লাশ আসার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ডুমুরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মশিউর রহমান বলেন, লাশ আসার খবর পেয়ে বাড়িতে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। হাফিজুর রহমান সাগর জানান, রেশমার ছোট বোন শোকরা বেগম ঢাকা থেকে লাশ নিয়ে সকালে পৌঁছেছেন।

তিনি জানান, জর্ডান থেকে রোববার বিকেল ৪টা ২৫ মিনিটে দেশে আসে রেশমার লাশ। এরপর লাশটিকে হযরত শাহজালাল (রহ.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের হিমাগারে রাখা হয়।

তিনি জানান, রেশমার লাশ ঢাকায় আসে স্বামী দিলুর ঠিকানায়। কিন্তু দিলু বিমানবন্দরে না যাওয়ায় লাশ খুলনায় আনতে দেরি হয়।জর্ডান থেকে পাঠানো পোস্টমর্টেম রিপোর্টে বলা হয়েছে রেশমা আত্মহত্যা করেছে। রেশমাকে ডুমুরিয়ায় তার বাপের বাড়িতে দাফন করা হবে।

দেলোয়ার হোসেন দিলুর ছো্টভাই কামাল হোসেন বলেন, নন্দনপুর গ্রামের দুই দালালকে ৭০ হাজার টাকা দিয়ে চলতি বছরের ১৫ এপ্রিল জর্ডানে গিয়েছিলো রেশমা। ৩ জুন দেশে ফিরতে তার স্বামীর কাছে কান্নাকাটি করে। ৮ জুন জর্ডানের বাংলাদেশি দূতাবাস থেকে জানানো হয় রেশমা বেগমের লাশ পাওয়া গেছে। তিনি বলেন, লাশ আসার খবর পেয়ে আমার ভাই রেশমার বাবার বাড়িতে গেছে।

রেশমার শ্বশুড়বাড়ি এলাকার প্রতিবেশীরা জানান, রেশমার প্রতিবেশী নন্দনপুর গ্রামের ফজলে হওলাদার ও নাসিমা বেগমের জামাই ফুলতলার জাকারিয়া বিদেশে লোক পাঠান। নাসিমা বেগম প্রায় বাড়িতে এসে রেশমাকে বিদেশে যাওয়ার জন্য নানা প্রলোভন দেখাতো।

এক পর্যায় ৭০ হাজার টাকার বিনিময়ে মাসিক ১৫ হাজার টাকা বেতনে জর্ডানে যাওয়ার ব্যাপারে চুক্তি হয় তাদের। স্বামীকে না জানিয়ে তার পাসপোর্ট ও ভিসা করেন রেশমার বাবা-মা। কিন্তু রেশমার স্বামী দেলোয়ার হোসেন দিলু তার বিদেশ যাওয়ায় ব্যাপারে রাজি ছিলেন না।।

এদিকে এ ঘটনার পর উধাও হয়েছে দালাল চক্রের সদস্য ফুলতলার বাসিন্দা মো. জাকারিয়া। তার মোবাইলও (০১৯৪০-৫৭৭২৪৮) বন্ধ পাওয়া গেছে।

প্রকাশিত : ১৭ জুন ২০১৫, ১১:৪৯ এ. এম.

১৭/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: