আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ঋণদাতাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ

প্রকাশিত : ১৭ জুন ২০১৫
  • ওরা নির্বাচিত সরকার উৎখাত করতে চায় ॥ সিপরাস

গ্রীক প্রধানমন্ত্রী আলেক্সিস সিপরাস পাঁচ বছরব্যাপী ‘লুণ্ঠনের’ পর গ্রীসের নির্বাচিত সরকারকে উৎখাত করার চেষ্টা চালানোর জন্য ইউরোপের ঋণদাতা শক্তিগুলোকে দোষারোপ করেছেন। তিনি দৃঢ়তার সঙ্গে বলেন, পরিণতি যাই হোক না কেন তাঁর দেশ নিজের সার্বভৌম মর্যাদা রক্ষা করবে। খবর টেলিগ্রাফের।

ইউরোপীয় কমিশন গ্রীকদের তীব্র সমালোচনা এবং একটি অর্থনৈতিক বিপর্যয় এড়াতে একটি চুক্তিতে পৌঁছাতে না পারলে দেশটি ‘জরুরী অবস্থায়’ ভেঙ্গে পড়বে এমন সতর্কবাণী উচ্চারণের পর এই অবজ্ঞাপূর্ণ অবস্থান গ্রহণ জার্মানির ইইউ কমিশনার গুয়েন্থার ওয়েটিঙ্গার বলেন, জুলাইয়ের আগেই গ্রীসের সামাজিক অস্থিরতা এবং জ্বালানি ও ওষুধ সরবরাহ ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়ার মোকাবেলায় ঋণদাতা দেশগুলোকে অবশ্যই জরুরী পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে।

এক চাঁচাছোলা বিবৃতিতে সিপরাস বাস্তবতায় অবিচল থাকতে ইইউ প্রতিষ্ঠানসমূহ এবং আন্তর্জাতিক অর্থ তহবিলের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি আরও পেনশন হ্রাসের দাবিকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে ঋণদাতাদের দোষারোপ করে এই ইঙ্গিত করেন যে, তাদের প্রকৃত লক্ষ্য হলো তাঁর চরম বামপন্থী সিরিজা সরকারের বিশ্বাসযোগ্যতাকে ধ্বংস এবং সরকার পরিবর্তনে তাদের বাধ্য করা। তিনি বলেন, আমরা শুধু সংগ্রামকে গুরুত্ব দেয়া একটি ঐতিহাসিক অতীতই বহন করছি না, আমরা জনগণের মর্যাদা ও সেই সঙ্গে সকল ইউরোপবাসীর আশা আকাক্সক্ষাও বহন করছি। আমরা এই দায়িত্ব এড়াতে পারি না। এটি গণতন্ত্রের করণীয় বিষয়। জার্মানির সাড্ডরেশে জায়তুং পত্রিকার খবরে বলা হয়, ঋণদাতা দেশগুলো এই সপ্তাহান্তেই ইউরোপীয় পেমেন্টস সিস্টেমে গ্রীসের প্রবেশাধিকার প্রতিহত করার হুমকি দিয়ে এবং দেশটির পুঁজির ওপর নিয়ন্ত্রণ আরোপকে বাধ্য করে গ্রীসের উদ্দেশে একটি চরমপত্র প্রণয়ন করছে। এই পরিকল্পনায় গ্রীসের ব্যাংকগুলো সাময়িকভাবে বন্ধ হয়ে যেতে পারে এবং পরে নগদ অর্থ উত্তোলনের ওপর নিয়ন্ত্রণ আরোপ করা হতে পারে। সিরিজা সরকারের সূত্র টেলিগ্রাফকে জানিয়েছে, গ্রীসের চুক্তি সংক্রান্ত অধিকার লঙ্ঘিত হতে পারে ঋণদাতাও ইইউ প্রতিষ্ঠসমূহের এমন পদক্ষেপ বন্ধ করতে গ্রীস ইউরোপিয়ান কোর্ট অব জাস্টিসের ইনজাংশন চাইতে পারে। এটি হবে একটি নজিরবিহীন উদ্যোগ, যা পরিস্থিতিকে ব্যাপকভাবে জটিল করে তুলবে। ইউরোপিয়ান সেন্ট্রাল ব্যাংকের প্রধান মারিও দ্রাঘি বলেন, কর্তৃপক্ষ গ্রীসের ঋণশোধে ব্যর্থতার আশু প্রভাব মোকাবেলা করতে পারবে। তবে তিনি আর কোন সহায়তার আশ্বাস দিতে অস্বীকৃতি জানান। তিনি বলেন, ‘ইউনিয়ন মাঝারি থেকে দীর্ঘমেয়াদী ফলাফল এমনকিছু নয় যে সম্পর্কে আমরা ভবিষ্যদ্বাণী করতে পারি।’ দ্রাঘিকে স্পেনের পোদেমস আন্দোলনের একজন কট্টর ইউরো এমপি কর্তৃক গ্রীসের বিরুদ্ধে ‘পদ্ধতিগত অর্থনৈতিক লড়াই’ চালানোর জন্য দোষারোপ করা হয়। মরগ্যান স্ট্যানলি বলেন, বৃহস্পতিবার ইএমইউ অর্থমন্ত্রীদের একটি বৈঠক হবে ‘সফল অথবা ব্যর্থতার মুহূর্ত।’ এটি হবে একটি চুক্তিতে পৌঁছানোর শেষ সুযোগ, যা হবে গ্রীসের আবশ্যিকভাবে আইএমএফের ঋণ বাবদ ১৬০ কোটি ইউরো পরিশোধের শেষ তারিখ ৩০ জুনের পৃথক জার্মান বুন্ডেসটাগ ও অন্যান্য পার্লামেন্টগুলোর যাচাই-বাছাই ও পাশ করার শেষ সুযোগ।

প্রকাশিত : ১৭ জুন ২০১৫

১৭/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: