হালকা কুয়াশা, তাপমাত্রা ১৮.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

রোজা ও ঈদ উপলক্ষে পুলিশের ব্যাপক নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা

প্রকাশিত : ১৬ জুন ২০১৫, ১২:৪৯ এ. এম.

স্টাফ রিপোর্টার ॥ আসন্ন পবিত্র রমজান ও ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষে নিরাপদে উৎসব ও আনন্দমুখর পরিবেশে উদ্যাপনের লক্ষ্যে পুলিশ ব্যাপক নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। এ জন্য পরিবহন মালিক শ্রমিকদের ডেকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে, যাতে রমজানে রাস্তায় গাড়ি থামিয়ে চাঁদাবাজি না করা হয়। দোকান মালিক শ্রমিকদের ডেকে বলা হয়েছে, যাতে কিছুতেই রমজানে ভেজাল পণ্য বিক্রি করা না হয়।

পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল এ কে এম শহীদুল হক সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য প্রকাশ করেন।

এ সময় তিনি জানান- মহাসড়কে ডাকাতি প্রতিরোধ, যানজট নিরসনে হাইওয়ে ও জেলা পুলিশ বিশেষ তৎপর থেকে দায়িত্ব পালন করবে। জাতীয় ও আঞ্চলিক মহাসড়কে নিরবচ্ছিন্ন যানবাহন চলাচল অব্যাহত রাখার লক্ষ্যে হাইওয়ে ও জেলা পুলিশ, পরিবহন মালিক ও শ্রমিক সংগঠন সার্বিক সহায়তা প্রদান করবে। ঘরমুখো মানুষের নিরাপদ যাতায়াতের জন্য রেলওয়ে স্টেশন, বাস ও লঞ্চ টার্মিনালে টিকেট কালোবাজারি প্রতিরোধে পুলিশ, মালিক ও শ্রমিক নেতৃবৃন্দ এবং কমিউনিটি পুলিশের সমন্বয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। নৌ পুলিশ এবং অন্যান্য পুলিশ ইউনিট নৌপথে নিরাপত্তার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় টহলের ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

রমজানে মার্কেটগুলোর সামনে সীমিত আকারে গাড়ি পার্কিং করে নিরাপত্তার জন্য প্রত্যেক মার্কেটের সামনে সিসিটিভি সংযোজন করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে বলে জানান আইজিপি।

তিনি বলেন,ইফতার, সেহরি ও তারাবির সময় বিদ্যুত নিরবচ্ছিন্ন করার জন্য বিদ্যুত কর্তাদের সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে। চাঁদাবাজি ও মলম পার্টি ও অজ্ঞান পার্টির চক্রকে সর্বক্ষণিক তদারকিতে রাখা হবে।

সকল শিল্প প্রতিষ্ঠান বিশেষ করে গার্মেন্টস শ্রমিকদের বেতন ও বোনাস পরিশোধ নিয়ে যাতে কোন অনাকাক্সিক্ষত পরিস্থিতির সৃষ্টি না হয় সে জন্য ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশ, বিজিএমইএ, বিকেএমইএ এবং অন্যান্য ব্যবসায়ী সংগঠন মালিক-শ্রমিক নেতৃবৃন্দের সঙ্গে সমন্বয় করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

সংবাদ সম্মেলনের আগে বিকেলে পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের সম্মেলন কক্ষে পবিত্র রমজান ও ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষে সার্বিক আইন-শৃঙ্খলা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতির বক্তব্যে আইজিপি নিরাপদে পবিত্র রমজান পালন এবং ঈদ উদ্যাপনে পুলিশকে সহায়তা প্রদানের জন্য দেশের সচেতন নাগরিকদের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি নিষ্ঠা ও পেশাদারিত্বের সঙ্গে দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে জনগণের জানমালের নিরাপত্তা বিধান এবং পবিত্র রমজান ও ঈদ উদ্যাপন নির্বিঘœ করার জন্য পুলিশ সদস্যদের নির্দেশ দেন।

সভায় ঢাকা মহানগরসহ সারাদেশে চিহ্নিত সন্ত্রাসী গ্রেফতার, অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার, নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গী সদস্য, চরমপন্থী গ্রেফতার, মাদকদ্রব্য উদ্ধার ও মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার, জাল টাকা রোধ, মানবপাচার, চাঁদাবাজি, ছিনতাই ও সন্ত্রাসী কার্যকলাপ রোধে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

সভায় এসবির অতিরিক্ত আইজিপি ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, সিআইডির অতিরিক্ত আইজিপি শেখ হিমায়েত হোসেন, ডিএমপি কমিশনার মোঃ আছাদুজ্জামান মিয়া, ঢাকা রেঞ্জ, হাইওয়ে, রেলওয়ে, পিবিআই, নৌ ও ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশসহ অন্যান্য ইউনিটের ডিআইজিবৃন্দ, ঢাকা, গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ, টাঙ্গাইল, হাইওয়ে-গাজীপুর, হাইওয়ে-কুমিল্লার পুলিশ সুপারগণ, পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের উর্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ, পিডিবি,পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড, ডিপিডিসি, ডেসকো, বাংলাদেশ ব্যাংক, ফায়ার সার্ভিস এ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স, সড়ক ও জনপথ বিভাগ, ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের প্রতিনিধিসহ এফবিসিসিআই, বিজিএমইএ, বিকেএমইএ, মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স, বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি ও ঢাকা মহানগর দোকান মালিক সমিতি, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি, ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি, বাংলাদেশ বাস-ট্রাক ওনার্স এ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন, বাংলাদেশ কাভার্ডভ্যান-ট্রাক মালিক সমিতি এবং বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক ফেডারেশন নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

প্রকাশিত : ১৬ জুন ২০১৫, ১২:৪৯ এ. এম.

১৬/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: