আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

উত্তর আফ্রিকার শীর্ষ আল-কায়েদা জঙ্গী বেলমোখতার নিহত

প্রকাশিত : ১৬ জুন ২০১৫

দুই বছর আগে আলজিরিয়ার একটি গ্যাস প্লান্টে জঙ্গীদের চালানো প্রাণঘাতী হামলার মূল পরিকল্পনাকারী ও উত্তর আফ্রিকাজুড়ে চোরাকারবারের রুট পরিচালনাকারী ইসলামী জঙ্গী মোখতার বেলমোখতার যুক্তরাষ্ট্রের বিমান হামলায় নিহত হয়েছেন। কর্মকর্তারা এ কথা জানান। খবর বিবিসি ও ওয়েবসাইটের।

লিবিয়ার পূর্বাঞ্চলীয় শহর আজদাবিয়ায় চালানো ওই বিমান হামলায় বেলমোখতার ছাড়া আরও কয়েকজন জঙ্গী নিহত হয়েছেন বলে রবিবার এক বিবৃতিতে লিবীয় সরকার জানায়।

এক সময়ের আল কায়েদা ইন দ্য ইসলামিক মাগরেবের (একিউআইএম) নেতা বেলমোখতার উত্তর আফ্রিকা ও সাহেল অঞ্চলের বিদ্রোহীদের অন্যতম নেতা ছিলেন। ওই এলাকায় মোতায়েন ফরাসী বাহিনী তার নাম দিয়েছিল ‘আনক্যাচেবল’ (অধরা)। তবে, এর আগে বেশ কয়েকবার তার নিহত হওয়া নিয়ে ভুল প্রতিবেদন দেয়া হয়েছিল। বেলমোখতারই বিমান হামলার লক্ষ্য ছিল, এটি নিশ্চিত করেছে পেন্টাগন, কিন্তু তিনি নিহত হয়েছেন কিনা সে বিষয়ে কিছু বলেনি। লিবিয়ার আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত সরকার এক বিবৃতিতে বলে, ‘লিবীয় সরকার দেশটির পূর্বাঞ্চল থেকে নিশ্চিত করছে, গত রাতে যুক্তরাষ্ট্রের যুদ্ধবিমানগুলো একটি বিমান হামলা পরিচালনা করেছে, আর তার ফলে সন্ত্রাসী বেলমোখতার নিহত হয়েছেন।’ এই বিবৃতির বিষয়ে জিজ্ঞেস করা হলে পেন্টাগনের অপর মুখপাত্র ইলেন লাইনেজ জানান, ওই হামলার বিষয়ে তার কাছে অতিরিক্ত কোন তথ্য নেই। আলজিরিয়ায় জন্মগ্রহণকারী বেলমোখতার একিউআইএমের সিনিয়র নেতা ছিলেন। পরে একিউআইএম ছেড়ে নিজস্ব জঙ্গীদল গঠন করেন তিনি। তবে নিজস্ব জঙ্গীদল গঠন করলেও তিনি আল কায়েদার শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ধরে রাখেন। ২০১৩ সালে আলজিরিয়ার আমেনাস গ্যাসফিল্ডে হামলা চালানোর মধ্য দিয়ে বেলমোখতার কুখ্যাত হয়ে ওঠেন। ওই গ্যাসফিল্ডে কর্মরত প্রায় ৮০০ জনকে জিম্মি করে বেলমোখতারের জঙ্গীরা। এদের মধ্যে ৪০ জনকে হত্যা করে। নিহত ৪০ জনের অধিকাংশই ছিলেন বিদেশী।

কলম্বিয়ায় শীর্ষ বিদ্রোহী নেতা নিহত

কলম্বিয়ার উত্তরাঞ্চলে বিদ্রোহী সংগঠন ন্যাশনাল লিবারেশন আর্মির (ইএলএন)’র প্রথম সারির এক নেতা নিহত হয়েছেন। ১৯৯৯ সালে একটি যাত্রীবাহী বিমান ছিনতাইয়ের ঘটনায় তাকে খোঁজা হচ্ছিল। রোম সফরকালে প্রেসিডেন্ট জুয়ান ম্যানুয়েল সান্তোষ এক টুইটার বার্তায় বলেন, ইএলএন’র প্রথম সারির এক নেতা নিহত হয়েছেন।

সশস্ত্র বাহিনীকে অভিনন্দন। সেনাবাহিনীর এক বিবৃতিতে রবিবার বলা হয়েছে, নিহত বিদ্রোহী নেতার প্রকৃত নাম জোস আমিন হার্নান্ডেজ। তার মৃত্যু ইএলএন’র জন্য একটি বড় আঘাত এবং পুলিশ ও সশস্ত্র বাহিনীর অভিযানে তিনি নিহত হয়েছেন। -এএফপি

প্রকাশিত : ১৬ জুন ২০১৫

১৬/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

বিদেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: