মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

সোনারগাঁও হোটেলে রমজানে বাহারি ইফতারের সমাহার

প্রকাশিত : ১৬ জুন ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার ॥ পবিত্র রমজানজুড়ে রাজধানীর পাঁচ তারকা হোটেল প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁওয়ে বসবে বাহারি ইফতারের বিশাল সমাহার। সোমবার বিকেলে এ উপলক্ষে হোটেলের ক্যাফে বাজারে বসেছিল ইফতার মেলা। মাহে রমজানের বাকি আর মাত্র ক’দিন, তাই হোটেলের পক্ষ থেকে প্রচারণামূলক কার্যক্রমের অংশ হিসেবেই এই আয়োজন।

সোনারগাঁওয়ের সহকারী পরিচালক (মার্কেটিং ও জনসংযোগ) সালমান কবির জনকণ্ঠকে জানান, রোজাদার ও বিদেশী পর্যটকদের জন্য প্রতিবছরের মতো এবারও থাকছে বিশেষ ইফতার আয়োজন। ইফতারের এসব আইটেমের মধ্যে থাকবে নতুনত্বের স্বাদ। যাতে সারাদিনের রোজা শেষে ইফতার করতে এসে তাঁরা খাবারের মধ্যে বৈচিত্র্য ও তৃপ্তি খুঁজে পান। আরবের ঐতিহ্যবাহী খাবার, লাইভ কুকিং স্টেশন এবং প্রাণজুড়ানো শরবত ও পানীয় সমাহারে সাজানো হবে এবারের রমজানের ইফতার ব্যুফে।

হোটেলের ক্যাফে বাজারে ব্যুফেতে এসব ইফতার পাওয়া যাবে, রোজার মাসজুড়েই। এছাড়াও যে কেউ ইচ্ছে করলেই ইফতার বক্সও নিয়ে যেতে পারবেন। ইফতার খেতে জনপ্রতি খরচ হবে আড়াই হাজার টাকা। এছাড়া ইফতার বক্স পার্সেলের জন্য পড়বে ১৮০০ টাকা (ডিলাক্স) এবং ২,১০০ টাকা (প্রিমিয়ার)। সুস্বাদু জিলাপি নিয়ে যেতে পারবেন (হাফ কেজি) ৭০০ এবং (প্রতিকেজি) ১,২০০ টাকায়। দুই প্রকার হালিমের দাম পড়বে ১,১০০ ও ২০০০ টাকা।

প্লট আত্মসাতের অভিযোগ ॥ রাজউকের ৮ জনের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ জালিয়াতির মাধ্যমে পূর্বাচলে কুয়েত প্রবাসীর নামে বরাদ্দ দেয়া প্লট আত্মসাতের অভিযোগে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) পূর্বাচল উপশহর প্রকল্পের পরিচালকসহ আটজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। সোমবার রাজধানীর মতিঝিল মডেল থানায় দুদকের উপ-সহকারী পরিচালক নেয়ামুল আহসান গাজী বাদী হয়ে এ মামলা (নম্বর-০৯) করেন দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা উপ-পরিচালক প্রণব কুমার ভট্টাচার্য জনকণ্ঠকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

মামলার আসামিরা হলেন- রাজউকের পূর্বাচল উপশহর প্রকল্পের পরিচালক এ কে এম আহসান ইকবাল, একই প্রকল্পের সাবেক সহকারী পরিচালক (বর্তমানে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সহকারী সচিব) মোঃ আবুল বশর, জালিয়াত চক্রের সদস্য মো. রুহুল আমিন খাদেম, রূপগঞ্জের সাবেক সাব রেজিস্ট্রার (বর্তমানে গুলশান সাব রেজিস্ট্রার) মোঃ আবদুল মালেক, রাজউকের নিম্নমান সহকারী রাজিয়া বেগম, জালিয়াত চক্রের সদস্য মোঃ আক্তার হোসেন, এম এ কে খন্দকার আজাদ এবং মোঃ আশরাফ উদ্দীন।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, কুয়েত প্রবাসী কাজী জামাল ২০০২ সালে রাজউকের পূর্বাচল উপশহর প্রকল্পে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনকারী ক্যাটাগরিতে সাড়ে সাত কাঠার একটি প্লট (কোড নম্বর-২১৮১, আইডি নম্বর-৩০-৪০১-১৬) পান। তিনি অসুস্থ হওয়ায় প্লটের উন্নয়ন কাজ করতে পারছিলেন না।

প্রকাশিত : ১৬ জুন ২০১৫

১৬/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: