রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

যশোরে প্রতারণার শিকার বিজ্ঞানী মোস্তফা মামলা করে বিপাকে

প্রকাশিত : ১৫ জুন ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার, যশোর অফিস ॥ প্রতারণার শিকার হয়ে পথে পথে ঘুরছেন যশোরের বিস্ময়কর চাষাবাদ পদ্ধতি ও ওষুধের উদ্ভাবক বৈজ্ঞানিক মোস্তফা আলী। পরিশ্রমের ফল না পেয়ে তিনি দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। এদিকে জালিয়াতি চক্রের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করে মোস্তফা আলী রয়েছেন বিপাকে। অভিযোগ, ওই চক্রের প্রাণনাশের হুমকিতে তিনি ভিটেবাড়ি ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। মোস্তফা আলী জানিয়েছেন, তার বাড়ি যশোর সদর উপজেলার ম-লগাতি গ্রামে। দীর্ঘ পরিশ্রম ও গবেষণা করে তিনি একই জমিতে এক সঙ্গে ধান, পাট, পুঁইশাক, কলমিশাক, বরবটি, শসা, লাউ, সরিষা, মসুর, বেগুন, ঢেঁড়স লালশাক, ভুট্টা, মাছসহ ২০ রকমের ফসল চাষাবাদ করার পদ্ধতি আবিষ্কার করেন। এ পদ্ধতিতে চাষ করলে এক বিঘা জমি থেকে কমপক্ষে লাখ টাকার বেশি আয় করা যায়। একই সঙ্গে গাছ ও লতাপাতার নির্যাস দিয়ে আবিষ্কার করেন ডায়াবেটিস, আলসার, কিডনি, হার্ট, বাতসহ আটটি জটিল রোগের প্রতিষেধক ও প্রতিরোধক ওষুধ। তার উদ্ভাবনের স্বীকৃতি দিয়েছে বাংলাদেশ সরকারের পেটেন্ট অফিস। তার সাফল্যের কারণে বৈজ্ঞানিক কাজের কথা বলে দৈনিক পাঁচশ’ টাকা ও উদ্ভাবিত ওষুধের জামানত বাবদ পাঁচ লাখ টাকা অগ্রিম প্রদানসহ বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে মাগুরার হাসপাতালপাড়ায় অবস্থিত ইকো কৃষি ও পল্লী উন্নয়ন সমবায় সমিতির প্রধান শরীফ স্বাধীন তাঁকে কাজে যোগদান করান গত বছরের নবেম্বর মাসে। যোগদানকালে তাকে ১০ হাজার টাকা দেয়া হয়। এরপর টাকা প্রদানের ক্ষেত্রে নানা টালবাহানায় মেতে ওঠেন শরীফ স্বাধীন। মোস্তফা আলী আরও জানান, বিজ্ঞান মন্ত্রণালয়ের পরীক্ষিত মোস্তফার উদ্ভাবিত ওষুধ ও মেশিন সামগ্রী জালিয়াতির মাধ্যমে হাতিয়ে নেয় ওই সমবায় সমিতি। বর্তমানে আবার জোরপূর্বক স্বাক্ষর নিয়ে তার উদ্ভাবিত ফর্মূলা সমিতির ব্যানার লুফে নেয়ার অপতৎপরতা চালাচ্ছে এনজিও কর্মকর্তা শরীফ স্বাধীন। এ ঘটনায় তিনি গত ২৪ মে মাগুরা থানায় অভিযোগ দাখিল করে যশোরের নিজ গ্রামে চলে আসেন। ভুক্তভোগির অভিযোগ, এতে ক্ষিপ্ত হয়ে শরীফ স্বাধীন দলবল নিয়ে তার বাড়িতে এসে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে যায়। প্রাণের ভয়ে তিনি আজ ভিটেবাড়ি ছাড়া। প্রতারকদের শাস্তির দাবিতে ঘুরছেন পথে পথে। এ বিষয়ে এনজিও কর্মকর্তা শরীফ স্বাধীনের সঙ্গে মুঠোফোনে কথা বললে অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, পাঁচ লাখ টাকা ক্ষতি করে অফিসের বিভিন্ন ডকুমেন্ট পেপার নিয়ে মোস্তফা আলী কিছু না জানিয়ে চলে গেছেন।

যশোর শিক্ষা বোর্ডের সাত কলেজকে শোকজ

স্টাফ রিপোর্টার, যশোর অফিস ॥ একাদশ শ্রেণীতে ভর্তি পরীক্ষায় অনলাইন ও এসএমএস পদ্ধতিতে প্রতারণার অভিযোগে যশোরের পাঁচটিসহ সাত কলেজকে শোকজ করা হয়েছে। যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক অমল কুমার বিশ্বাস স্বাক্ষরিত শোকজ পত্রে তিন দিনের মধ্যে জবাব দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে অভিযুক্ত কলেকগুলোর অধ্যক্ষকে। কলেজগুলো হলো যশোরের চৌগাছার চৌগাছা ডিগ্রী কলেজ, এবিসিডি কলেজ, জিসিবি কলেজ, মৃধাপাড়া মহিলা কলেজ, আমজামতলা কলেজ, মাগুরার শালিখার আড়পাড়া কলেজ ও খুলনার পাইকগাছার লক্ষ্মীখোলা উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়। রবিবার পাঠানো শোকজ পত্রে বলা হয়েছে, ২০১৫Ñ২০১৬ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণীতে অনলাইন ও এসএমএস প্রক্রিয়ায় ভর্তি কার্যক্রমের ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীর অজান্তে তার পক্ষে অনৈতিকভাবে নিজ কলেজের নাম তাদের পছন্দের অনুক্রমের তালিকায় এক নম্বর ক্রমিক বা একমাত্র পছন্দ রেখে অভিযোগ রয়েছে।

সিলেটে শিক্ষক পেটানো ছাত্রের বিরুদ্ধে মামলা

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট অফিস ॥ বিয়ানীবাজারে সরকারী কলেজে ডিগ্রী পরীক্ষা চলাকালে ছাত্রের লাঞ্ছিত শিক্ষক শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। আহত শিক্ষককে উন্নত চিকিৎসার জন্য স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে রবিবার সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর

করা হয়েছে।

শনিবার বিকেলে বিয়ানীবাজার সরকারী কলেজে ডিগ্রী হিসাববিজ্ঞান বিষয়ের পরীক্ষা চলছিল। এ সময় বিবিএস ৩য় বর্ষের ছাত্র মাহমুদ হোসেন পাশের সিটের অপর পরীক্ষার্থীর খাতা দেখে লিখছিল। এ নিয়ে কর্তব্যরত শিক্ষক প্রাথমিকভাবে

মাহমুদকে সতর্ক করেন। এরপরও সে সতর্ক না হলে শিক্ষক

মাহমুদের খাতা জব্দ করেন। পরে মাহমুদকে অন্য বেঞ্চে যাওয়ার নির্দেশ দেন তিনি।

এ নির্দেশ অমান্য করে মাহমুদ হোসেন শিক্ষককে চড়-থাপ্পড় এবং মাথায় কিল-ঘুষি মেরে

দ্রুত হল ত্যাগ করে

পালিয়ে যায়।

প্রকাশিত : ১৫ জুন ২০১৫

১৫/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: