মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

স্নোডেনের ফাঁস করা নথি ব্যবহার করছে রাশিয়া ও চীন

প্রকাশিত : ১৫ জুন ২০১৫
  • ব্রিটিশ সরকারের ধারণা

ডাউনিং স্ট্রিট মনে করে, ব্রিটিশ ও মার্কিন গোয়েন্দাদের শনাক্ত করতে গোপন তথ্য ফাঁসকারী এডওয়ার্ড স্নোডেনের নথি ব্যবহার করেছে রুশ ও চীনা গোয়েন্দা সংস্থাগুলো। দুটি দেশ স্নোডেনের গোপন তথ্যে ঢুকে পড়ায় যুক্তরাজ্যের গোয়েন্দা এজেন্টদের সরিয়ে নেয়া হয়েছে বৈরী দেশগুলো থেকে। খবর গার্ডিয়ান ও বিবিসি অনলাইনের।

সানডে টাইমসের এক রিপোর্টে বলা হয়েছে, রুশ নিরাপত্তা বিভাগ আমেরিকান কম্পিউটার বিশ্লেষক স্নোডেনের ফাঁস করা মার্কিন গোপন তথ্য চুরি করায় ব্রিটেনের সিক্রেট ইন্টেলিজেন্স সার্ভিস এম সিক্সিটিন প্রতিনিধিদের সরিয়ে নিয়েছে বিদেশ থেকে। স্নোডেনের কাছে থাকা ১০ লাখেরও বেশি গোপনীয় নথি মস্কোর হাতে পড়ার পর জরুরীভাবে নিজেদের গোয়েন্দাদের সরিয়ে আনা ছাড়া অন্য কোন পথ খোলা ছিল না বলে সানডে টাইমসকে জানিয়েছে পশ্চিমা গোয়েন্দা সংস্থাগুলো। প্রতিবেদনটিতে বলা হয়েছে, পরিস্থিতির চাপে সরাসির অভিযানের জন্য নিয়োজিত গোয়েন্দাদের সরিয়ে নিতে বাধ্য হয়েছে যুক্তরাজ্যের গোয়েন্দা সংস্থা এমআইসিক্স। মিলিটারি ইন্টেলিজেন্স সেকশন সিক্স বা এমআইসিক্স, বিদেশে যুক্তরাজ্যের স্বার্থরক্ষা ও স্বার্থসংশ্লিষ্ট অভিযান পরিচালনা করে থাকে। স্নোডেন দু’বছর যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থার (এনএসএ) অত্যন্ত গোপন তথ্য সরবরাহ করেছে গার্ডিয়ানের কাছে। এ তথ্যে প্রকাশ পেয়েছে যে, পাশ্চাত্যের গোয়েন্দা সংস্থাগুলো ফোন ও ইন্টারনেট ব্যবহারের ওপর ব্যাপক নজরদারি চালাচ্ছিল। স্নোডেন তখন পালিয়ে যান হংকংয়ে এবং সেখান থেকে যান মস্কোতে। সানডে টাইমস দাবি করেছে, চীন ও রুশ নিরাপত্তা কর্মকর্তারা ফলস্বরূপ তার নথিতে প্রবেশের সুযোগ পান। স্নোডেনের ফাঁস করা নথিগুলো বিশেষ গোপন সঙ্কেতে রাখা হয়েছিল। কিন্তু এখন ব্রিটিশ কর্মকর্তারা মনে করছেন, দুটো দেশই নথিগুলোতে হ্যাক করেছে। পত্রিকাটি ডাউনিং স্ট্রিটের অজ্ঞাত সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে জানায়, স্বরাষ্ট্র দফতর ও ব্রিটিশ গোয়েন্দা বিভাগ বলেছে যে, দলিলগুলোতে যেভাবে গোয়েন্দা কৌশল ও তথ্য সন্নিবেশিত রয়েছে তা ব্রিটিশ ও আমেরিকান গোয়েন্দাদের শনাক্ত করতে বিদেশী শক্তিগুলোকে সক্ষম করে তুলবে।

পত্রিকাটি ডাউনিং স্ট্রিটের এক জ্যেষ্ঠ সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে জানায়, রুশ ও চীনাদের কাছে এ তথ্য রয়েছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এ সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে পত্রিকাটি আরও জানায়, পুতিন কোন কিছুর জন্যই স্নোডেনকে রাজনৈতিক আশ্রয় দেননি। তার তথ্যগুলো সাঙ্কেতিকভাবে রয়েছে। এগুলো পুরোপুরি উদ্ধার করতে পারেনি তারা এবং আমরা এখন দেখতে পাচ্ছি আমাদের প্রতিনিধিরা ও সম্পদসমূহ লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হয়েছে।

সানডে টাইমস এক ব্রিটিশ গোয়েন্দা সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে জানায়, রুশ ও চীনা কর্মকর্তারা আগামী দিনগুলোতে স্নোডেনের তথ্য উপাদানসমূহ পরীক্ষা করতে থাকবেন। গোয়েন্দা সূত্র জানায়, স্নোডেন অপরিমেয় ক্ষতি করেছেন। ডাউনিং স্ট্রিটের এক মুখপাত্র শনিবার রাতে অবজারভারকে বলেছেন, আমরা তথ্য ফাঁসের ওপর কোন মন্তব্য করতে চাই না।

প্রকাশিত : ১৫ জুন ২০১৫

১৫/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: