হালকা কুয়াশা, তাপমাত্রা ১৮.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

কানামাছি ভোঁ ভোঁ যারে পাবি তারে ছোঁ

প্রকাশিত : ১৩ জুন ২০১৫

সভ্যতার ক্রম বিকাশে আধুনিকতার ছোঁয়ায় হারিয়ে যেতে বসেছে গ্রামবাংলার ঐতিহ্যবাহী খেলাধুলা। শৈশবে সেসব খেলাধুলা খেলেছিলেন আজকের বৃদ্ধরা। সেসব খেলাধুলা বর্তমানে না দেখতে পেয়ে তারাও ভুলে গেছেন অনেক খেলার নাম।

একটা সময় ছিল গ্রামের শিশু যুবকরা পড়াশোনার পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের খেলাধুলা অভ্যস্ত ছিল। তারা অবসরে গ্রামের খোলা মাঠে দলবেঁধে খেলত এসব খেলা আর খেলাধুলার মাধ্যমে কাটত তাদের শৈশবের ব্যস্ত সময়। এসব খেলাধুলার মধ্যে গোল্লাছুট, কানামাছি, বউচি, ষোলগুটি, ইচিং বিচিং, মার্বেল বা কাঁচের গুলি, বিশ কাঠি উল্লেখ্যযোগ্য।

ষোলোগুটি খেলা ঃ দাবা খেলার মতোই গ্রামাঞ্চলে ষোলোগুটি খেলা হয়। অলস দুপুরে সময় কাটানোর জন্য মজার খেলা হচ্ছে ষোলোগুটি। বুদ্ধি, ধৈর্য, কৌশল ও সর্তকতার সঙ্গে খেলাটি খেলতে হয় বলে সব বয়সের লোকেরাই এ খেলা খেলে থাকে। এ খেলার উপকরণ একদম সহজ দুই প্রতিদ্বন্দ্বীর মধ্যে এই খেলা হয়ে থাকে। উভয় খেলোয়াড় ১৬টি করে মোট ৩২টি গুটি নিয়ে খেলে।

ইচিং বিচিং ঃ জনপ্রিয় খেলা। এটি গ্রামবাংলার খেলাধুলা। ইদানীং গ্রামের মানুষ প্রগতিশীল হতে শুরু করেছে। অনেকেই গ্রাম ছেড়ে সন্তানদের উন্নত ভবিষ্যত গড়ার লক্ষ্যে পাড়ি জমাচ্ছে শহরে। কেউ বা গ্রাম থেকে চলে এসেছেন জেলা বা উপজেলা সদরে। শহরের বাসা বাড়িতে গ্রামীণ খেলাধুলা এখন আর চোখে পড়ে না।

কানামাছি ঃ শিশু-কিশোরীরা ১০-১২ জন একত্র হয়ে পড়া লেখার ফাঁকে এখনও গ্রামাঞ্চলে হারিয়ে যাওয়ার নিদর্শন কানামাছি খেলায় মেতে উঠে। একজনের চোখ বেঁধে কিশোরীকে বলতে থাকে কানামাছি ভোঁ ভোঁ যাকে খুশি তাকে ছোঁ।

বিশ কাঠি ঃ এই খেলাটিতে ২০টি কাঠি ব্যবহার হয় বলে একে ‘বিশ কাঠি’ খেলা বলে। ৬ থেকে ১০ বছর বয়সের শিশু-কিশোরদের খেলা এটি। গ্রামাঞ্চলে এক সময়ে খেলা জনপ্রিয় ছিল। একটু সময় পেলেই শিশু-কিশোররা এ খেলায় মেতে উঠত। এখন এই খেলা অনেকটা উঠে।

Ñশেখ আব্দুল আওয়াল

গফরগাঁও থেকে

প্রকাশিত : ১৩ জুন ২০১৫

১৩/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: