আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৭ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

বাংলাদেশের ড্র করার স্বপ্ন

প্রকাশিত : ১৩ জুন ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ তিনদিন আগে বাংলাদেশ অধিনায়ক মুশফিকুর রহীম ও কোচ চান্দিকা হাতুরাসিংহে যা বলেছিলেন অনেকে হয়ত আড়ালে মুখ টিপে হেসেছিলেন। কারণ ফতুল্লায় ভারতের বিরুদ্ধে একমাত্র টেস্টে জয়ের প্রত্যয় জানিয়েছিলেন তাঁরা। শক্তিমত্তা, র‌্যাঙ্কিং এবং টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের যে পরিস্থিতি তাতে এটি যে আকাশ-কুসুম কল্পনা সেই বাস্তবতাটা দেশের ক্রিকেটপ্রেমীরাও জানেন। প্রথমে ব্যাট করতে নামার পর ভারতীয় ইনিংসে বাংলাদেশী বোলারদের চেয়ে বেশি বিঘœ তৈরি এবং সমস্যা সৃষ্টি করেছে বৃষ্টি। তৃতীয় দিন শেষ হলেও ভারতের এক ইনিংস শেষ হয়নি। কিন্তু ৪ উইকেটে ৪৬২ রান তুলে বেশ ভাল অবস্থানেই আছে ভারতীয় দল। এই মুহূর্তে ইনিংস ঘোষণা দিয়ে দিলে হেরে যাওয়ার শঙ্কাটাও উড়িয়ে দেয়া যাচ্ছে না বাংলাদেশের। এ কারণ সংবাদ সম্মেলনে সাকিব আল হাসান জানালেন যতক্ষণ সম্ভব উইকেটে টিকে থেকে ব্যাটিংয়ের ইচ্ছা। আর এখন যে পরিস্থিতি তিনি ফতুল্লা টেস্টে ড্র হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি দেখছেন। বাংলাদেশের বোলিং বিন্দুমাত্র চিড় ধরাতে পারেনি ভারতীয় ব্যাটিংয়ে। যতক্ষণে সাকিব ও জুবায়ের হোসেন জ্বলে উঠলেন ততক্ষণে রানের পাহাড় তৈরির ভিত গড়ে উঠেছে। তবে এখন পর্যন্ত উইকেট যেমন দেখেছেন তাতে এই মুহূর্তে ভারতীয় দল ইনিংস ঘোষণা করলেও ব্যাটিংয়ে তেমন সমস্যা হবে না বাংলাদেশী ব্যাটসম্যানদের এমনটাই দাবি সাকিবের। তিনি বলেন, ‘জানি না তারা কী করবে? যদি শুরুতেই আমাদের নামতে হয় সেজন্য আমরা মানসিকভাবে প্রস্তুত। আজ (শুক্রবার) বৃষ্টি না হলে আমরা মনে মনে প্রস্তুত ছিলাম চা বিরতির পরই ব্যাটিংয়ে নামার জন্য। আমাদের লক্ষ্য যতক্ষণ সম্ভব ব্যাট করা। যেমন দেখছি তাতে ড্রয়ের সম্ভাবনাই বেশি। উইকেট যতটা দেখেছি তাতে তেমন কঠিন কিছু মনে হচ্ছে না।’ কিন্তু কঠিন পরিস্থিতি আসতেই পারে। ভারতীয় দলের রানের পাহাড় সামনে রেখে ম্যাচের চতুর্থ ও পঞ্চম দিনে ব্যাট করা বেশ কঠিন। এ বিষয়ে সাকিব বলেন, ‘আমরাও প্রস্তুত আছি কঠিন সময় আসার জন্য। মানসিকভাবে সেজন্য প্রস্তুতিও নিয়েছি। ওরা ইনিংস ঘোষণা করলে নিজেদের সামর্থ্য অনুসারে চেষ্টা করব।’ বাংলাদেশের একাদশ নির্বাচন নিয়ে অনেক সমালোচনা হয়েছে। কিন্তু অন্যদের মতো এটিকেই সেরা সমন্বয় দাবি করলেন সাকিব। বাংলাদেশের তুলনায় ভারতীয় দল ব্যাট-বলের দারুণ একটি সুষম সমন্বয় নিয়ে মাঠে নেমেছে। আছে ৫ জন স্বীকৃত বোলার। এ বিষয়ে সাকিব বলেন, ‘যে কোন দলের ২০ উইকেট নিতে হলে সবারই একটা অবদান লাগে। স্পিনার, পেসারদের ভাল বোলিং করতে হয় এবং ভাল ফিল্ডিং করে দারুণ কিছু ক্যাচ নিতে হয়। তাদের বোলিং বিভাগটা বেশ ভাল এবং ২০ উইকেট নিতে সক্ষম। তেমনি আমাদেরও ব্যাটিং যেমন আছে উইকেট ও পরিবেশ যদি এমন থাকে তবে বিশ্বাস আছে তাদের বেশ ভালভাবেই সামাল দিতে পারব আমরা।’ প্রথমদিন বাংলাদেশী বোলারদের হতাশার একটি দিন গেছে। কোন উইকেট হারায়নি ভারত। এমনকি সাকিব নিজেও যথেষ্ট খরুচে হলেও তৃতীয় দিন ঠিকই চার উইকেট শিকার করেছেন। এ বিষয়ে সেদিন রাতেই নিজেদের মধ্যে শলাপরামর্শ করেছেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। সেই সঙ্গে সাকিব ব্যক্তিগতভাবে বর্তমানে ক্রিকেট ডেভেলপমেন্ট কোচ নাজমুল আবেদিন ফাহিমের সঙ্গে আলোচনা করেছেন। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘প্রথম দিন আমরা ঠিক জায়গায় বল ফেলতে পারিনি। সে কারণে দিনশেষে সেটা নিয়ে আমরা আলোচনা করেছি। আমি আমার আগের কোচের (ফাহিম) সঙ্গে কথা বলে কিছুটা পরিবর্তন এনেছি এ্যাকশনে। মূলত পা ফেলার পজিশনটা একটু পরিবর্তন করেছি। তিনি (কোচ) আমাকে বলেছিলেন, তুমি উন্নতি করতে পারবে। সেটাই হয়েছে।’

প্রকাশিত : ১৩ জুন ২০১৫

১৩/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: