মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ডাক্তারদের গ্রামে তিন বছর থাকা বাধ্যতামূলক হচ্ছে ॥ স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত : ১২ জুন ২০১৫, ০১:৩২ এ. এম.

সংসদ রিপোর্টার ॥ জনস্বার্থে গ্রামের হাসপাতালে ডাক্তারদের চাকরি দুই বছর থেকে বাড়িয়ে তিন বছর বাধ্যতামূলক করার পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে। গ্রামে থেকে চিকিৎসকরা চিকিৎসা সেবা দিচ্ছে কি না, সে ব্যাপারে সরকারী নীতিমালা কঠোরভাবে কার্যকর করা হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে টেবিলে উত্থাপিত প্রশ্নোত্তর পর্বে সরকারী দলের সংসদ সদস্য এম আবদুল লতিফের লিখিত প্রশ্নের জবাবে এ তথ্য জানান স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।

গ্রামে নিয়োগ পাওয়া ডাক্তাররা ঢাকায় আসতে প্রতিদিনই স্বাস্থ্য অধিদফতরে ভিড় করছে এমন অভিযোগের জবাবে মন্ত্রী জানান, কথাটি আংশিক সত্য। তবে বদলি বা প্রেষণের জন্য নয়, অল্প কিছু ডাক্তার পারিবারিক ও কর্মস্থলের পারিপার্শ্বিক সমস্যা নিয়ে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে সমাধানের জন্য স্বাস্থ্য অধিদফতরে এসে থাকেন। তবে গ্রামে নিয়োগ পাওয়ার দুই বছর পূর্ণ হওয়ার পরই ডাক্তারদের বদলির আবেদন বা উচ্চ শিক্ষার জন্য প্রেষণের আবেদন বিবেচনা করা হয়।

]বেগম আয়েশা ফেরদাউসের অপর প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, নীতিমালা অনুযায়ী প্রতিটি ওয়ার্ডে ৪ হাজার জনগোষ্ঠীর জন্য একজন করে স্বাস্থ্য সহকারী পদ থাকার কথা রয়েছে। বর্তমানে ৪০ হাজার ৬৮০ টি ওয়ার্ডের জন্য ২০ হাজার ৮৭৭টি স্বাস্থ্য সহকারী রয়েছে। যে কারণে স্বাস্থ্য সহকারীদের ওপর কিছুটা বাড়তি চাপ রয়েছে। স্বাস্থ্য সহকারীদের ওপর বাড়তি চাপ কমাতে প্রতিটি ওয়ার্ডে একজন করে স্বাস্থ্য সহকারী নিয়োগের লক্ষ্যে ১৯ হাজার ৮০৩টি পদ সৃষ্টির কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

সংসদ সদস্য মামুনুর রশীদ কিরণের প্রশ্নোত্তরে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, দেশের চাহিদার ৯৭ শতাংশ পূরণ করে বিদেশে ওষুধ রফতানি করা হচ্ছে। ওষুধ রফতানি প্রতি বছরই বৃদ্ধি পাচ্ছে। সর্বশেষ ২০১৪ সালে বিশ্বের ৯২টি দেশে ৭৩৩ কোটি টাকার বাংলাদেশের ওষুধ রফতানি করা হয়েছে।

সরকারী দলের আফম বাহাউদ্দিন নাছিমের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, বর্তমানে সারাদেশে লাইসেন্সধারী ওষুধের দোকানের সংখ্যা প্রায় এক লাখ ১৮ হাজার। লাইসেন্সবিহীন ওষুধের দোকানের পরিসংখ্যান এ মুহূর্তে নেই। তবে লাইসেন্সবিহীন ওষুধের দোকানের ব্যাপারে সরকার সচেতন রয়েছে। ওষুধ প্রশাসন অধিদফতর এ ব্যাপারে নিয়মিত মনিটরিং করছে। লাইসেন্সবিহীন ওষুধের দোকানের অস্তিত্ব নজরে আসা মাত্র আইনানুগ ব্যবস্থা গৃহীত হচ্ছে।

প্রকাশিত : ১২ জুন ২০১৫, ০১:৩২ এ. এম.

১২/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: