কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ওয়েলবেকের ‘সুমিসিয়ঁ’র ব্যাপক বিক্রি

প্রকাশিত : ১২ জুন ২০১৫

২০২২ সাল। ফ্রান্সের ফ্রন্ট ন্যাশনাল (এফএন) পার্টি নেতা মারিন লো পেনকে হারিয়ে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন নতুন ইসলামী দল ‘মুসলিম ফ্র্যাটারনিটি’র নেতা মোহাম্মদ বেন আব্বাস। আব্বাস ক্ষমতায় আসার পরে দেশটিতে ইসলামীকরণ প্রকট হয়ে ওঠে। নারীরা রাস্তায় বোরকা পরে বের হচ্ছে, স্কুলগুলোয় ইসলামিক কারিকুলাম চালু হয়ে গেছে।

ফরাসি ঔপন্যাসিক মিশেল ওয়েলবেকের নতুন উপন্যাস ‘সুমিসিয়ঁ’ বা ইংরেজিতে ‘সাবমিশন’-এর কাহিনী মূলত এই। তিনি উপন্যাসে দেখাতে চেয়েছেন, ফ্রান্সে যেভাবে মুসলিমদের প্রভাব বাড়ছে তাতে দেশটিতে একদিন ইসলামিক দল রাজনৈতিক ক্ষমতায় আসবে। প্রকাশের সঙ্গে সঙ্গে উপন্যাসটি পাঠকমনে ব্যাপক সাড়া ফেললেও সমালোচনারও ঝড় ওঠে। বইটি বাজারে আসার প্রথম পাঁচ দিনেই এক লাখ ২০ হাজার কপিরও বেশি বিক্রি হয়ে যাওয়ার পাশাপাশি ফ্রান্সের বুক চার্টের শীর্ষে পৌঁছায়।

আইএফএফ প্রাইজ পেলেন এর্পেনবেক

হারুকি মুরাকামি, আরউইন মরটিয়ারের মতো লেখকদের টপকে এ বছর ইনডিপেনডেন্ট ফরেইন ফিকশন (আইএফএফ) প্রাইজ জিতে নিয়েছেন জার্মান লেখক জেনি এর্পেনবেক। তাঁর পুরস্কারজয়ী উপন্যাসটির নাম ‘দি এ্যান্ড অব ডেজ’। বইটি জার্মান ভাষা থেকে ইংরেজিতে অনুবাদ করেছেন সুসান বার্নোফস্কি। সমালোচকদের মতে, সবচেয়ে চমৎকার, সাড়া জাগানো জীবিত লেখকদের অন্যতম অথচ ইংরেজি পাঠকদের কাছে এখনো অতটা পরিচিত নন এমন একজন লেখক এর্পেনবেক। বিশ শতকের শুরুতে জন্ম নেওয়া এক অস্ট্রো-হাঙ্গেরি তরুণীর জীবন কাহিনী এ উপন্যাস। এতে একদিকে ওই তরুণীর স্বামী পরিত্যক্তা মায়ের পতিতা জীবনের কাহিনী, অন্যদিকে তরুণীটির ফ্যাসিবাদ ও দুর্ভিক্ষের মধ্যে বেড়ে ওঠার কাহিনী তুলে ধরা হয়েছে। ব্রিটিশ পত্রিকা দ্য ইনডিপেনডেন্ট সমসাময়িক উপন্যাস বা গল্পের বইয়ের জন্য ১৯৯০ সালে এই পুরস্কার প্রবর্তন করে। ব্রিটেনে প্রকাশিত ইংরেজি অনুবাদের বইকে এ ক্ষেত্রে বিবেচনা করা হয়। পুরস্কারের সম্মানী হিসেবে বইয়ের লেখক ও অনুবাদক প্রত্যেকে পাঁচ হাজার পাউন্ড পান।

চলে গেলেন টানিথ লি

সায়েন্স ফিকশন লেখক টানিথ লি আর নেই। ব্রিটিশ ফ্যান্টাসি অ্যাওয়ার্ডজয়ী প্রথম নারী লেখক তিনি। ১৯৮০ সালে তাঁর ফ্ল্যাট আর্থ ফ্যান্টাসি সিরিজের দ্বিতীয় বই ‘ডেথ’স মাস্টার’-এর জন্য তিনি এ পুরস্কার পান। ৯০টির বেশি উপন্যাস ও ৩শ’র বেশি ছোটগল্প লিখেছেন টানিথ। এ ছাড়া কবিতা, রেডিও’র জন্য নাটক, টিভি সিরিজের জন্য গল্পও লিখেছেন তিনি। টানিথের জন্ম ১৯৪৭ সালে। বাবা-মা ছিলেন নৃত্যশিল্পী। তিনি প্রথম উপন্যাসটি লিখেছিলেন শিশুদের জন্য। ‘দ্য ড্রাগন হোর্ড’ নামের বইটি প্রকাশিত হয় ১৯৭১ সালে। বড়দের জন্য লেখা তাঁর প্রথম গ্রন্থ ‘দ্য বার্থগ্রেইভ’ প্রকাশিত হয় ১৯৭৫ সালে। ‘এসথার গারবার’ ছদ্মনামেও লিখেছেন তিনি। ছোটগল্পের জন্য তিনি ১৯৮৩ ও ১৯৮৪ সালে ওয়ার্ল্ড ফ্যান্টাসি অ্যাওয়ার্ড জয় করেন। সাহিত্যে আজীবনের অবদানের জন্য ২০১৩ সালে ওয়ার্ল্ড ফ্যান্টাসি কনভেনশনে পুরস্কৃত করা হয়। তাঁর রচনার মধ্যে ‘দ্য বার্থগ্রেইভ’ ট্রিলজি, ‘দ্য ফোর-বি’ সিরিজ, ‘দ্য ওয়ারস অব ভিস’ সিরিজ, ‘দ্য ফ্ল্যাট আর্থ’ সিরিজ ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য।

গদ্য আচার্য

ইন্টারনেট অবলম্বনে

প্রকাশিত : ১২ জুন ২০১৫

১২/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: