আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ইতিহাসের সাক্ষী বার্সিলোনা

প্রকাশিত : ১০ জুন ২০১৫
  • অতশী রহমান

অসাধ্য সাধনই বলতে হবে! স্প্যানিশ পরাশক্তি বার্সিলোনা ইউরোপের একমাত্র ও প্রথম দল হিসেবে দ্বিতীয়বার ঐতিহাসিক ‘ট্রেবল’ জয়ের কৃতিত্ব দেখিয়েছে। গত ৬ জুন উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ফাইনালে ইতালিয়ান চ্যাম্পিয়ন জুভেন্টাসকে ৩-১ গোলে হারিয়ে ইতিহাস গড়া সাফল্য পায় ক্যাটালানরা। অনন্য এই অর্জনের পর বার্সাকে বলা হচ্ছে ইউরোপের সেরা দল।

চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ফাইনালের আগেই নিশ্চিত ছিল যে দল জয়ী হবে তারাই ঐতিহাসিক ট্রেবল জয়ের কৃতিত্ব দেখাবে। ইউরোপ সেরার এই লড়াইয়ে ফেবারিট ছিল বার্সাই। শেষ পর্যন্ত ফেবারিটদেরই জয় হয়েছে। অনেকটা একতরফা ফাইনালে মৌসুমে তিনটি শিরোপা জয়ের কৃতিত্ব দেখিয়েছেন মেসি, নেইমার, সুয়ারেজরা। এটি ১১৫ বছরের মধ্যে বার্সার দ্বিতীয়বার ট্রেবল জয়। অর্থাৎ ইউরোপের প্রথম দল হিসেবে দ্বিতীয়বার ঐতিহাসিক ট্রেবল জয়ের কৃতিত্ব দেখিয়েছে স্প্যানিশ চ্যাম্পিয়নরা। অন্যদিকে ট্রেবল জয়ের সুযোগ হাতছাড়া হওয়া জুভেন্টাস পুড়ছে বেদনায়। চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ইতিহাসে একমাত্র দল হিসেবে সর্বোচ্চ ছয়বার ফাইনালে হারের জ্বালায় জ্বলতে হয়েছে ইতালিয়ান পরাশক্তিদের।

এর আগে ২০০৮-০৯ মৌসুমে পেপ গার্ডিওলার অধীনে প্রথমবার ট্রেবল জিতেছিল বার্সিলোনা। সেবার দলটির সাফল্য ছিল রীতিমতো অবিশ্বাস্য। ওই বছরে শুধু তিনটি শিরোপায় নয়, বার্সা জিতেছিল রেকর্ড ৬টি শিরোপা। এক বছরে ৬ শিরোপা! বিস্ময়কর সেই সাফল্যের পথে আরেকবার হাঁটার সুযোগ এবারও খোলা ক্যাটালানদের সামনে। স্প্যানিশ লা লীগা, কোপা ডেল রের পর উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগের শিরোপা জয়। এই বছরে আরও তিনটি আসরে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সুযোগ থাকছে লুইস এনরিকের দলের। কেননা বাকি আছে ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপ, উয়েফা সুপার কাপ ও স্প্যানিশ সুপার কাপ। এই তিনটির শিরোপা জিততে পারলে ঐতিহাসিক রেকর্ডই গড়বে বার্সিলোনা। আর এই অর্জনের পথেই দল হাঁটবে বলে বিশ্বাস কোচ লুইস এনরিকের, ‘গত দশ বছরের মধ্যে বাসিলোনাই ইউরোপের সেরা দল। এই দলটির বছরের বাকি তিনটি শিরোপা জয়েরও সামর্থ্য আছে।’

এবারসহ পঞ্চমবারের মতো ইউরোপের সর্বোচ্চ শিরোপা জয় করেছে বার্সা। তবে গত এক দশকে এটি বার্সিলোনার চতুর্থ চ্যাম্পিয়ন্স লীগের শিরোপা। এর আগে ২০০৬, ২০০৯ ও ২০১১ সালে ইউরোপ সেরা হয় ক্যাটালানরা। ২০০৯ সালে প্রথমবারের মতো বার্সার ট্রেবল জয়ের আগে এই কৃতিত্ব অর্জন দেখায় সেল্টিক, আয়াক্স, পিএসভি আইন্দহোভেন, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, ইন্টার মিলান ও বেয়ার্ন মিউনিখ। এবার জিতে সবাইকে ছাড়িয়ে গেল বার্সা। এখন তারা প্রথম দল হিসেবে দ্বিতীয়বারের মতো ট্রেবল জযের কৃতিত্বের মালিক। এত বড় অর্জনের পাশাপাশি বার্সিলোনার সেরা খেলোয়াড় লিওনেল মেসিও এক অনন্য কৃতিত্ব অর্জন করেছেন। ডাচ তারকা ক্লারেন্স সিড্রফের পাশাপাশি দ্বিতীয় খেলোয়াড় হিসেবে চারবার চ্যাম্পিয়ন্স লীগ দলের সদস্য এখন মেসি। তবে তিনটি চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ফাইনালে তার কাছ থেকে প্রথম গোল পায়নি বার্সা।

শিরোপা নিশ্চিত হওয়ার পর পরই হাজার হাজার বার্সা সমর্থক বার্সিলোনার রাস্তায় নেমে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করতে থাকেন। ম্যাচ চলাকালীন যেখানে পিনপতন নীরবতা ছিল সেখানে শিরোপা জয়ের পর পুরো চিত্রই পাল্টে যায়। প্রিয় দলের নীল-লাল রঙের জার্সি গায়ে তারা আনন্দ-উল্লাস করতে থাকেন। ক্যাটালান রাজধানীর বিখ্যাত পার্টি স্ট্রিট লাস রামব্লাসে নেমে এসে সবাই একসঙ্গে চিৎকার করে বলতে থাকেন ‘চ্যাম্পিয়ন, চ্যাম্পিয়ন! এরপর বিজয়ী বীরেরা দেশে ফেরার পর আরেকবার উৎসবে মেতে ওঠেন তারা। রবিবার নিজেদের মাঠ ন্যূক্যাম্পে উৎসব করে বার্সিলোনা। ২০১৪-১৫ মৌসুমে জেতা তিনটি শিরোপা নিয়ে ছবি উঠেন বিজয়ী সেনানিরা। এরপর খোলা বাসে করে হাজার হাজার ভক্ত-সমর্থকদের ভালবাসার জবাব দেন লিওনেল মেসি, নেইমার, লুইস সুয়ারেজরা।

সাময়িক ব্যর্থতা কাটিয়ে আবারও বিশ্বসেরার মঞ্চে আসীন বার্সা। অপ্রতিরোধ্য ঢংয়ে ইউরোপ সেরা হয়েছে স্প্যানিশ পরাশক্তিরা। দারুণ এই অর্জনের পর দলটির প্রশংসায় পঞ্চমুখ সবাই। বার্সার কোচ লুইস এনরিকে দাবি করেছেন, তার দল ইউরোপের সেরা। এই তকমা দিয়েছেন পরাজিত জুভেন্টাস অধিনায়ক জিয়ানলুইজি বুফনও। বার্সা কোচ এনরিকে বলেন, আমি খেলোয়াড়দের অভিনন্দন জানাই। তাদের মান ও সংহতি নিয়ে কোন সন্দেহ নেই। বার্সিলোনা গত দশ বছর ধরে ইউরোপের সেরা ক্লাব। রেকর্ড সর্বোচ্চ ১০ বারের চ্যাম্পিয়ন রিয়াল মাদ্রিদকে সেমিফাইনালে হারিয়ে ফাইনালে উঠেছিল জুভেন্টাস। এক যুগ পর চূড়ান্ত লড়াইয়ে এসে শিরোপা জয় করতে চেয়েছিলও তারাও। কিন্তু অদম্য বার্সার কাছে পেরে উঠেনি সিরি এর চ্যাম্পিয়নরা। এজন্য খারাপ লাগলেও দলকে নিয়ে গর্বিত জুভেন্টাস কোচ এ্যালেগ্রি। তিনি বলেন, আমরা এখান (বার্লিন) থেকে দুঃখের অনুভূতি নিয়ে যাচ্ছি। কেননা আমরা হেরেছি। কিন্তু নিজেদের খেলা নিয়ে আমরা গর্বিত। আমরা এমন একটি দলের কাছে হেরেছি যারা বিশ্বসেরা। জুভেন্টাস অধিনায়ক বুফনও হারের ব্যথায় কাতরাচ্ছেন। তবে তিনি এই ভেবে সান্ত¡না খুঁজছেন যে, সেরা দলের কাছেই হেরেছে তার দল। বুফন বলেন, বার্সিলোনা বিশ্বের সেরা দল। এতে কোন সন্দেহ নেই। হারাটা কষ্টের, তবে তাদের কাছে হারায় আমরা দুঃখ ভুলতে পারব। যে কোন দলকে বার্সা হারাতে পারে। বিশ্বকাপে কামড়ের দায়ে অভিযুক্ত উরুগুয়ের তারকা স্ট্রাইকার লুইস সুয়ারেজের জন্য ম্যাচটি ছিল নিজেকে প্রমাণের। গুরুত্বপূর্ণ মঞ্চে আরেকবার গোল করে সেটা করেছেনও তিনি। ম্যাচ শেষে সুয়ারেজ বলেন, এটা সত্যিই অসাধারণ। এই অনুভূতি ভাষায় প্রকাশ করা যায় না। এই শিরোপা জয়ের পেছনে অনেক পরিশ্রম আছে। এই দলের সবচেয়ে সেরা দিক হচ্ছে দলীয় স্পিরিট। বিশেষ করে মৌসুমের শুরু থেকে আমরা যেভাবে একত্রিত ছিলাম সেটাই শিরোপা জয়ের মূলমন্ত্র। চ্যাম্পিয়ন্স লীগ জিতে আমার স্বপ্নপূরণ হয়েছে। গত বছর বার্সিলোনায় যোগ দেয়া গোলরক্ষক মার্ক-আন্দ্রে টের স্টেগান ছিলেন বাঁধনহারা। শিরোপা জয়ের পর তিনি কি করবেন সেটাই নাকি বুঝতে পারছিলেন না! ইতিহাস গড়ে নিজের অনুভূতি এভাবেই জানান জার্মানির এই গোলরক্ষক। বলেন, কি হলো, আমি বুঝাতে পারছি না। কিন্তু দলের জন্য আমি সত্যিই খুশি। ভাল একটা মৌসুম আমরা কাটিয়েছি। আমি খুব খুশি। সবাইকে অভিনন্দন।

প্রকাশিত : ১০ জুন ২০১৫

১০/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: