মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

আগামী দিনে তুরস্ক নিয়ন্ত্রণ করবে উদারপন্থীরা

প্রকাশিত : ১০ জুন ২০১৫
  • রাজনৈতিক বিশ্লেষকের অভিমত

তুরস্কের নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইপ এরদোগানের পরাজয় ঘটলেও সেখানে জয় হয়েছে গণতন্ত্রের। ১২ বছর আগে প্রথমবার দেশটির নেতা হিসেবে আবির্ভূত হওয়ার সময় তুরস্কের সমাজে তিনি যেসব বলিষ্ঠ পরিবর্তন আনতে চেয়েছিলেন, রবিবারের নির্বাচনী ফলাফলে তার সেই আকাক্সক্ষার পুনর্প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। খবর টাইম ও এএফপির।

যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন ইনস্টিটিউট ফর নিয়ার ইস্ট পলিসির তুরস্ক বিষয়ক কর্মসূচীর ডিরেক্টর সোনার কাগাপ্তি বলেছিলেন, উদারপন্থীরাই ভবিষ্যতে তুরস্ককে শাসন করবে। তিনি যুক্তি দেখিয়েছেন যে, দেশের প্রবাবশালী মহল এতদিন যাদের অবহেলা করেছিলেন, আনাতোলিয়ার মধ্যাঞ্চলের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধিতে লালিত সেই বৃহৎ উদারপন্থী মধ্যবিত্ত শ্রেণীই তার পরাজয়ের ভূমিকা রেখেছে। অথচ একেপির ১৩ বছরের শাসনামলে অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির মধ্য দিয়ে উদ্ভব ঘটেছে এই মধ্যবিত্ত শ্রেণীর। এই উদার মধ্যবিত্ত শ্রেণীর জোটরাই এরদোগানের আধিপত্য গড়ে উঠেছে। এদিকে ক্ষমতাসীন দল জাস্টিস এ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট পার্টি (একেপি) ২০০২ সালে ক্ষমতায় আসার পর এই প্রথম পার্লামেন্ট নির্বাচনে এককভাবে সরকার গঠনের জন্য নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জনে ব্যর্থ হয়েছে। এর ফলে নতুন করে রাজনৈতিক অনিশ্চয়তার মুখে দেশটি। রাজনৈতিক অনিশ্চয়তার ফলে তুরস্কের অর্থনৈতিক বাজার ব্যবস্থায় অস্থিরতা দেখা দিয়েছে। ইতোমধ্যে দেশটির স্টক মার্কেটে লেনদেনে ধীরগতি এবং ডলারের বিপরীতে তুর্কি মুদ্রা লিরার মূল্য কমে গেছে।

গত ১৩ বছর ধরে এরদোগানের তুরস্কের রাজনীতিকে নিয়ন্ত্রণ করছে। তবে রবিবার পার্লামেন্ট নির্বাচনে কুর্দিপন্থী পিপলস ডেমোক্র্যাটিক পার্টির (এইচডিপি) যুগান্তকারী ফলাফলে দেশটিতে রাজনৈতিকভাবে অস্থিতিশীল অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। এর ফলে দেশটিতে জোট সরকার গঠন কিংবা খুব অল্প সময়ের ব্যবধানে আবার নির্বাচনের সম্ভাবনা রয়েছে। এই পরিস্থিতি ইসলামপন্থী একেপি দলের ক্ষমতাসীন থাকার পক্ষে অনুকূল নয়। এই নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জনের মধ্য দিয়ে তুরস্কের সংবিধান পরিবর্তন করে যুক্তরাষ্ট্রের মতো শক্তিশালী প্রেসিডেন্ট পদ্ধতির শাসন প্রবর্তন করতে চেয়েছিলেন প্রেসিডেন্ট এরদোগান। কিন্তু নির্বাচনের অপ্রত্যাশিত ফলাফলে তার পরিকল্পনা বড় ধরনের একটি ধাক্কা খেল। এদিকে নির্বাচনের ফলাফলে এরদোগানের প্রতিক্রিয়া একেপির সম্পূর্ণ বিপরীতে গিয়ে একজন রাষ্ট্রনায়কের মত ছিল। তিনি বলেন, একা কোনও দলই সরকার গঠন করতে পারবে না আর এজন্য তিনি তুরস্কের রাজনৈতিক শক্তিগুলোকে নতুন প্রক্রিয়ায় দায়িত্বশীল হতে আহ্বান জানিয়েছেন।

প্রকাশিত : ১০ জুন ২০১৫

১০/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: