মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ইংল্যান্ড-নিউজিল্যান্ড ওয়ানডে দ্বৈরথ শুরু আজ

প্রকাশিত : ৯ জুন ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বার্মিংহামে ইংল্যান্ড ও সফরকারী নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার পাঁচ ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডে আজ। যেখানে স্বাগতিক ইংলিশদের ছাপিয়ে নিশ্চিত ফেবারিট হিসেবে মাঠে নামবে কিউইরা! কারণ, বিশ্বকাপে চমক দেখিয়ে প্রথমবারের মতো ফাইনালে ওঠে ব্রেন্ডন ম্যাককুলামের দল। অন্যদিকে বাংলাদেশের কাছে হেরে গ্রুপপর্ব থেকেই বিদায় নেয় ইয়ান মরগানের ইংল্যান্ড। দলটির ভেতরে-বাইরে বয়ে যায় কঠিন ঝড়। এগিয়ে থেকেও শেষ টেস্টে হেরে সিরিজ ড্র করে এ্যালিস্টার কুকের দল। রঙিন পোশাকের সিরিজে তাই আলো থাকছে কিউইদের ওপরই।

দুদিন আগে সফরের শেষ প্রস্তুতি ম্যাচে লিচেস্টারশায়ারকে উড়িয়ে দেয় কিউইরা। গ্রান্ট ইলিয়ট (১০৬*) ও লকু রনকির (১০৬*) দুর্দান্ত দুই সেঞ্চুরির ওপর ভর করে ৫০ ওভারে ৩৭৩ রানের বিশাল স্কোর গড়ে সফরকারীরা। এর পর প্রতিপক্ষকে ১৭৫ রানে অলআউট করে তুলে নেয় ১৯৮ রানের জয়। পেসার মিচেল ম্যাক্লকেনঘান ৪ ও স্পিনার মিচেল স্যান্টনার নেন ২টি করে উইকেট। ম্যাককুলামদের যা উজ্জীবিত করবে।

ব্যাটিং-বোলিংয়ে নিউজিল্যান্ড যে কতটা ভারসাম্যপূর্ণ দল, বিশ্বকাপেই সেটি দেখেছে বিশ্ববাসী। ওপেনিংয়ে অধিনায়ক ম্যাককুলামের সঙ্গে আছেন বিশ্বকাপের ডবল সেঞ্চুরিয়ান মার্টিন গাপটিল। টপ অর্ডারে কেন উইলিমাসন, রস টেইলর আর ইলিয়ট। প্রস্তুতি ম্যাচে ৬২ বলে ৭৭ রান করে ফর্মে ফেরার ইঙ্গিত দিয়েছেন অভিজ্ঞ টেইলর। বোলিংয়ে টিম সাউদি, ম্যাকক্লেনঘান, ম্যাট হেনরির সঙ্গে আছেন নবাগত তরুণ বেন হুইলার। নিজের দিনে ভয়ঙ্কর অলরাউন্ডার কোরি এ্যান্ডারসন।

নিজেদের ফেবারিট মানলেও সতর্ক কোচ মাইক হেসন, বিশ্বকাপ পর্যন্ত গত মৌসুমজুড়ে আমরা ভাল ক্রিকেট খেলেছি। কিন্তু সেটা ছিল ভিন্ন কন্ডিশন। ঘরের মাটিতে ইংল্যান্ড শক্তিশালী প্রতিপক্ষ। আমাদের সতর্কতার সঙ্গে সেরাটা দিতে হবে। বলেন কিউই বস্। অন্যদিকে নতুন শুরুর অপেক্ষায় ইংলিশরা। বিশ্বকাপ ভরাডুবি ভুলে সব কিছু নতুন করে শুরু করতে দলেও আনা হয়েছে একাধিক পরিবর্তন। ওয়ানডেতে নেই বড় দুই পেস তারকা জেমস এ্যান্ডারসন ও স্টুয়ার্ট ব্রড। বাইরে রাখা হয়েছে টপ-অর্ডার ব্যাটসম্যান ইয়ান বেল ও অফস্পিন-অলরাউন্ডার মঈন আলিকে। মূলত ভবিষ্যতের দল গঠনের বিষয়টি মাথায় রেখেই এগোচ্ছেন বদলে যাওয়া ইংলিশ নির্বাচকরা। যেখানে ঘরের মাটিতে ২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপই লক্ষ্য।

ইংলিশ নির্বাচক জেমস হুইটকর যেমন বলেন, এ্যান্ডারসন, ব্রড ও বেলের মতো অনেকেই এবারের বিশ্বকাপ দলে ছিলেন। ভাল করলে তাদের ফেরার সুযোগ থাকবে। তবে ভবিষ্যতের কথা ভেবে তারুণ্যনির্ভর দলই গড়া হয়েছে। আমাদের লক্ষ্য ঘরের মাটিতে ২০১৯ বিশ্বকাপ। সামনেই অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ঐতিহ্যের এ্যাশেজ টেস্ট সিরিজ। এ্যান্ডারসন যাতে ফ্রেশ হয়ে নামতে পারেন তাই তাকে বিশ্রামে রাখা হয়েছে। আর এর মধ্যে ঘরোয়া ম্যাচ খেলে ফর্মে ফেরার সুযোগ দেয়া হয়েছে প্রধান স্পিনার মঈন আলিকে। ফেরানো হয়েছে পেসার স্টিভেন ফিনকে, সঙ্গে তরুণ মার্ক উড, যিনি টেস্ট সিরিজে দারুণ করেছেন। অলরাউন্ডার বেন স্টোকস-ক্রিস জর্ডান ছাড়া দেখা যাবে ডেভিড উইলি ও স্যাম বিলিংসের মতো নতুনদের। ১৯৭৩ থেকে এ পর্যন্ত ৭৮ ওয়ানডেতে মুখোমুখি হয়ে নিউজিল্যান্ডের জয় ৩৯টিতে। বিপরীতে কুলিন ইংলিশদের জয় ৩৩ ম্যাচে। দুটি ওয়ানডে ‘টাই’ হয়। সর্বশেষ ওয়েলিংটনে বিশ্বকাপের গ্রুপপর্বের ম্যাচে কিউইদের কাছে ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারে মরগানের দল।

প্রকাশিত : ৯ জুন ২০১৫

০৯/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: