কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের সামনে বিনম্র শ্রদ্ধায় মোদি

প্রকাশিত : ৭ জুন ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার ॥ একটি ছবিই অন্যরকম অনুভূতি তৈরি করে। বাংলাদেশীর হৃদয়ে বলতে যে ছবি খচিত। যে মানুষটির জন্ম না হলে বাংলাদেশের জন্মই হতো না। তার সামনে মাথা নোয়ালেন, ভক্তিভরে শ্রদ্ধা জানালেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেদ্র মোদি। এর মধ্য দিয়ে মোদি বাংলাদেশীদের হৃদয়ের অন্যরকম এক আসনে আসীন হলেন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতিবিজড়িত ‘বঙ্গবন্ধু ভবনে’ শনিবার সফরের প্রথম প্রহরে ২৭ মিনিট অতিবাহিত করেন মোদি। আর এরপরই টুইট করেন। সেখানে মোদি জানাচ্ছেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, গণতন্ত্রের প্রতিমূর্তি, এক বিশাল ব্যক্তিত্ব এবং ভারতের এক মহান বন্ধুকে শ্রদ্ধা। সকালে ঢাকায় নামার পর বিমানবন্দরের আনুষ্ঠানিকতা সেরে ভারতের প্রধানমন্ত্রী সরাসরি চলে যান সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধে। মহান ’৭১-এর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ঢাকায় ফিরে ধানম-ি ৩২ এ বঙ্গবন্ধু জাদুঘরে পৌঁছান নরেন্দ্র মোদি। তখন ঘড়ির কাঁটায় ১২টা বেজে ৫ মিনিট। সেখানে বঙ্গবন্ধু ট্রাস্টের সদস্য সচিব ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্র রেদোওয়ান মুজিব সিদ্দিক স্বাগত জানান ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে। একই সঙ্গে জাদুঘরের সব কিছু তাকে ঘুরে দেখান। এ সময় তার স্ত্রী পেপ্পি সিদ্দিক সঙ্গে ছিলেন।

মোদি প্রথমে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। সেখানে তিনি বিনম্র মস্তকে কিছু সময় অতিবাহিত করেন। এরপর তিনি যান সম্প্রসারিত ভবনে। সেখানে তিনি বঙ্গবন্ধুর পারিবারিক ছবি, ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীসহ বিশ্ব নেতাদের সঙ্গে শেখ মুজিবের ছবি দেখেন।

এরপর মোদি মূল ভবনে বঙ্গবন্ধুর শয়নকক্ষে যান, যেখানে পঁচাত্তরের ১৫ আগস্টের ঘাতকের গুলির দাগ এখনও রয়েছে। বিভিন্ন কক্ষ ঘুরে ভারতের প্রধানমন্ত্রী যান ভবনের দোতলার ব্যালকনিতে। ব্যালকনিতে দাঁড়িয়ে কিছুক্ষণ রেদোওয়ান মুজিবের সঙ্গে কথা বলেন মোদি। এখানে দাঁড়িয়েই বঙ্গবন্ধু নানা সময়ে দিক নির্দেশনামূলক বক্তৃতা দিয়েছেন। সেখানেই মোদি ধরা পড়েন ক্যামেরার ফ্রেমে। এ সময় রেদোওয়ান মুজিব মোদিকে জানান, দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে এই ব্যালকনিতে দাঁড়িয়ে বঙ্গবন্ধু জনগণের উদ্দেশে বক্তৃতা দিতেন। তার নানা মারা যাওয়ার পর থেকে ১৯৮১ সাল পর্যন্ত এই ভবনে কাউকে ঢুকতে দেয়া হয়নি।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের স্থপতি বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধাশীল বিজেপি নেতা মোদি রেদোওয়ানের খালা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বেরও প্রশংসা করে আসছেন। গত বছরের সেপ্টেম্বরে নিউইয়র্কে জাতিসংঘ অধিবেশনের ফাঁকে শেখ হাসিনার সঙ্গে এক বৈঠকে নরেন্দ্র মোদি বলেছিলেন, বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠা করেছেন বঙ্গবন্ধু, আর তার কন্যা বাংলাদেশকে রক্ষা করেছেন। মোদি রেদোওয়ানকে বঙ্গবন্ধু জাদুঘরকে আরও ‘ভার্চুয়াল’ করার পরামর্শ দিয়েছেন বলে জানা গেছে। দুপুর ১২টা ৩২ মিনিটে মোদি বঙ্গবন্ধু ভবন থেকে বেরিয়ে হোটেল সোনারগাঁওয়ে যান। সেখানে মধ্যহ্নভোজ সেরে মোদি-মমতা বৈঠক হয়।

প্রকাশিত : ৭ জুন ২০১৫

০৭/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: