কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ভারতীয় ক্রিকেটারদের নিরাপত্তায়...

প্রকাশিত : ৭ জুন ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আর মাত্র একদিন পরই বাংলাদেশে আসছে ভারতীয় ক্রিকেট দল। গত বছর জুনে বাংলাদেশ সফরে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেললেও এবার এক টেস্ট ও তিন ওয়ানডের পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলবে তারা। গত বছর নিয়মিত অনেক ক্রিকেটার না এলেও এবার পূর্ণশক্তির দল নিয়েই আসছে ভারত। সে কারণে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডও (বিসিবি) নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বেশ কড়াকড়ি পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। এরই অংশ হিসেবে ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়াম সংলগ্ন একটি মাদ্রাসা ৫ দিনের জন্য বন্ধ রাখার নোটিশ দিয়েছে। এছাড়া বিসিবি থেকে জানানো হয়েছে দর্শকরাও কোন ধরনের উস্কানিমূলক লেখা সংবলিত পোস্টার, ব্যানার বা ফেস্টুন ও কার্টুন চিত্র নিয়ে গ্যালারিতে অবস্থান করতে পারবেন না।

এবার অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে ভারতের কাছে হেরে বিদায় নেয় বাংলাদেশ দল। ওই ম্যাচের বিতর্কিত আম্পায়ারিং ছিল প্রশ্নবিদ্ধ এবং বাংলাদেশের আপামর জনগণ এর বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে ওঠেন। তাছাড়া আইসিসি প্রেসিডেন্ট ও সাবেক বিসিবি সভাপতি আ হ ম মোস্তফা কামালও এ বিষয়টি নিয়ে জোরালো অভিযোগ তোলেন পক্ষপাতিত্বের। এ কারণে এবার ভারত-বাংলাদেশ সিরিজটি সব আকর্ষণের কেন্দ্রে থাকবে এবং দর্শকদের মাঝে উত্তেজনার মাত্রাটাও থাকবে যেকোন সময়ের চেয়ে অনেক বেশি। এ কারণেই দর্শকদের ক্ষোভ ঠেকাতে কিংবা অপ্রীতিকর ঘটনা সামাল দিতে বিসিবি ভারতীয় দলকে কটাক্ষ করে কোন লেখা, সেøাগান কিংবা উস্কানিমূলক বক্তব্য সংবলিত ব্যানার, ফেস্টুন, প্ল্যাকার্ড ও পোস্টার নিয়ে স্টেডিয়ামে প্রবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। বিসিবির নিরাপত্তা প্রধান হোসেন ইমাম এ বিষয়ে বলেন, ‘আমরা কাউকে আক্রমণাত্মক, উস্কানিমূলক এবং কটাক্ষ করে লেখা ব্যানার-ফেস্টুন বা কার্টুন চিত্র নিয়ে স্টেডিয়ামে ঢুকতে দেব না।’ দীর্ঘ ৯ বছর পর আবারও ফতুল্লায় টেস্ট ম্যাচ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। ২০০৬ সালে সফরকারী অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে এ ভেন্যুতে সর্বশেষ টেস্ট খেলেছিল বাংলাদেশ দল। এখানে এর আগে ১০ ওয়ানডে আয়োজিত হয়েছে এবং গত বছর এশিয়া কাপের ৫টি ম্যাচও অনুষ্ঠিত হয়। সে সময় স্টেডিয়ামের পার্শ্ববর্তী রওজাতুন সালিহীন আলিম মাদ্রাসা পুরোদমেই চলেছে। কিন্তু এবার টেস্ট চলার সময় মাদ্রাসা বন্ধ রাখতে বিসিবি চিঠি দিয়েছে প্রতিষ্ঠানের প্রধান মাওলানা আব্দুস শাকুরের কাছে। ১০ জুন থেকে শুরু হওয়া একমাত্র টেস্ট চলবে ১৪ জুন পর্যন্ত। এই ৫ দিন মাদ্রাসাটি বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এ বিষয়ে বিস্মিত হয়ে শাকুর বলেন, ‘এবারই প্রথম প্রশাসনের কাছ থেকে আমরা এ ধরনের অনুরোধ পেলাম। এশিয়া কাপের সময়ও পুরোদমে আমাদের ক্লাস চলেছে। কিন্তু এবার ৫ দিনের ছুটি দেয়ার অনুরোধ করা হয়েছে। আমি শুধু মৌখিক অনুমতি পেয়েছি ২৫ এতিমকে মাদ্রাসা বন্ধের সময় আমাদের হোস্টেলে রাখার।’ তবে সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশের মাদ্রাসাগুলো বিভিন্ন সরকারবিরোধী কার্যক্রম এবং জঙ্গী তৎপরতার অভিযোগে অভিযুক্ত। সে কারণেই ভারতীয় দলের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার অংশ হিসেবেই এমন পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন হোসেন। তাছাড়া দু’দলের ক্রিকেট ম্যাচ নিয়ে এখন যে উত্তেজনা বিরাজ করছে সেটার জন্য এমন সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে বলে দাবি করেছেন তিনি।

প্রকাশিত : ৭ জুন ২০১৫

০৭/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: