কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

খাদ্য নিরাপত্তার জন্য চাই পরিবেশবান্ধব কৃষি ব্যবস্থা ॥ ইনু

প্রকাশিত : ৬ জুন ২০১৫, ০১:২৯ এ. এম.

স্টাফ রিপোর্টার ॥ দেশে খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হলে পরিবেশবান্ধব কৃষি ব্যবস্থা গড়ে তুলতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। তিনি বলেন, সরকারের ওপরই নির্ভর করছে পরিবেশবান্ধব অর্থনীতি। সরকার যদি ক্ষমতার পিছনে ছুটে, টাকার পিছনে ছুটে তাহলে কখনই পরিবেশবান্ধব অর্থনীতি হবে না। বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে বক্তৃতাকালে তিনি এসব কথা বলেন।

বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে শুক্রবার রাজধানীর ফার্মগেট কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনে প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে ‘বাংলাদেশের টেকসই কৃষি, পরিবেশবান্ধব পদ্ধতি শীর্ষক এ সেমিনারের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে বক্তৃতাকালে অর্থমন্ত্রী আরও বলেন, বর্তমান সরকার দেশে খাদ্য উৎপাদনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। ফলে দেশ এখন খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। কিন্তু অতীতের সরকারগুলো খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। খাদ্য উৎপাদন ভাগ্যের ওপর ছেড়ে দিয়েছিল।

কৃষিবিদ ইনস্টিটউশনের সভাপতি কৃষিবিদ আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিমের সভাপতিত্বে সেমিনারে বিশেষ অতিথি ছিলেন ফুড এ্যান্ড এগ্রিকালচারাল অর্গানাইজেশনের (এফএও) বাংলাদেশ প্রতিনিধি মাইক রবসন। সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করে আন্তর্জাতিক ধান গবেষণা ইনস্টিটউশনের সাবেক কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ ড. জয়নুল আবেদীন। এছাড়াও অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন, কৃষিবিদ ইনস্টিটউশনের মহাসচিব কৃষিবিদ মোবারক আলী, প্রাণিসম্পদ অধিদফতরের মহাপরিচালক অজয় কুমার রায়, মৎস্য অধিদফতরের পরিচালক নাসির উদ্দিন মোঃ হুমায়ূন, শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ শহীদুর রশীদ ভূঁইয়া, কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনের কৃষি বিষয়ক সম্পাদক মোঃ মুকসুদ আলম খান মুকুট।

আলোচনা সভা ছাড়াও কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশের উদ্যোগে রাজধানীতে বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে বর্ণাঢ্য র‌্যালির আয়োজন করা হয়। সকালে কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনের সভাপতি আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিমের নেতৃত্বে র‌্যালিটি বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনে শেষ হয়।

রাজধানী ঢাকাসহ দেশে বিভিন্ন জেলা শহরে বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে র‌্যালি ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এ আলোচনা সভায় বক্তারা পরিবেশ রক্ষায় সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানান। তারা বলেন, আমাদের অসচেতনতার কারণেই পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট হয়ে মারাত্মক প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। ফলে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের বেঁচে থাকাটা আজ হুমকির মুখে পড়েছে। এ অবস্থা থেকে উত্তরণে এখনই পরিবেশ রক্ষায় সচেতনতামূলক কার্যক্রম হাতে নিতে হবে।

এদিকে পরিবেশ সংগঠন বাপা রাজধানীর পল্টন মুক্তি ভবনে এক সেমিনারের আয়োজন করে। সেমিনারে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ডাঃ মোঃ আব্দুল মতিন বলেন, সুন্দরবনকে ঘিরে রামপাল তাপবিদ্যুত কেন্দ্রসহ পরিবেশ বিধ্বংসী বিভিন্ন প্রকল্প একে হুমকির মুখে ঠেলে দিচ্ছে। আমরা যে কোন মূল্যে সুন্দরবনকে বাঁচাতে চাই। খুশী কবির বলেন, সুন্দরবনের পাশে রামপাল তাপবিদ্যুত কেন্দ্র নির্মিত হলে এটা শুধু এই এলাকা নয়, সারাদেশেই এর প্রভাব পড়বে। তাই কোনভাবেই এই প্রকল্প গ্রহণযোগ্য হতে পারে না। মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, বিশ্ব পরিবেশ দিবস নিছক আনুষ্ঠানিকতা নয়, পরিবেশের প্রতি সত্যিকারের ভালবাসার মাধ্যমেই এটা প্রমাণ করতে হবে। যারা সুন্দরবন বিধ্বংসী এই প্রকল্পের বিরুদ্ধে কথা বলছি, যথেষ্ট তথ্য প্রমাণ ও গবেষণা থেকেই এর বিরোধিতা করছি। আমরা ভারত বিরোধী নই, আমরা চাই পার্শ্ববর্তী দুই রাষ্ট্রের পরস্পরের মর্যাদা ও স্বার্থ রক্ষার মাধ্যমে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আরও সুসংগঠিত ও দৃঢ় হোক।

বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে শুক্রবার সকালে কলাবাগান বাসস্ট্যান্ড-সংলগ্ন দি ক্যাম্পাস মিররের উদ্যোগে আয়োজন করা হয় মানববন্ধন ও পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা অভিযান। আ.ফ.ম. মশিউর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলন পবা’র চেয়ারম্যান আবু নাসের খান, বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন-বাপা’র যুগ্ম সম্পাদক স্থপতি ইকবাল হাবিব, ঢাকা সিটি কর্পোরেশন দক্ষিণ-১৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সালাহউদ্দিন আহমেদ ঢালী প্রমুখ।

প্রকাশিত : ৬ জুন ২০১৫, ০১:২৯ এ. এম.

০৬/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: