আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

রাজধানীকেন্দ্রিক বাজেটে গ্রাম উপেক্ষিত ॥ ড. মঈন খান

প্রকাশিত : ৬ জুন ২০১৫, ০১:২৮ এ. এম.

স্টাফ রিপোর্টার ॥ প্রস্তাবিত বাজেটে দারিদ্র্য নিরসনের দিকনির্দেশনা নেই বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুল মঈন খান। এ বাজেটকে ‘ভুয়া সরকারের ভুয়া বাজেট’ আখ্যায়িত করে তিনি বলেন, রাজধানীকেন্দ্রিক এ বাজেটে গ্রাম উপেক্ষিত। শুক্রবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৩৪তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্ম আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

মঈন খান বলেন, আমি বাজেট নিয়ে কোন কথা বলতে চাই না। শুধু এটুকু বলব, ২০১৫-১৬ অর্থবছরের জন্য অর্থমন্ত্রী যে বাজেট প্রস্তাবনা দিয়েছেন তার সব প্রকল্প রাখা হয়েছে রাজধানীকেন্দ্রিক। এখানে গ্রামের দরিদ্র ও অবহেলিত মানুষের উন্নয়নের প্রতিফলন হয়নি। তিনি বলেন, কার বাজেট কে দেয়? যারা বাজেট দিচ্ছে তারা কি জনগণের প্রতিনিধি? জনগণের বাজেট দেয়ার কি অধিকার আছে তাদের?

ড. মঈন খান বলেন, এ সরকার দুর্নীতিতে আপাদমস্তক ঢাকা, যার প্রতিফলন হয়েছে বাজেটে। শুনেছি, পাঁচশ সাতাশ কোটি টাকার প্রকল্প নিয়ে গেলে নাকি বলা হয়Ñ কী প্রকল্প এনেছো, দশ হাজার-বিশ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প আনো, অনুমোদন দিয়ে দেব। তিনি বলেন, আজ বলা হচ্ছে, উন্নয়ন ছাড়া গণতন্ত্রের কোন প্রয়োজন নেই। এটা হতে পারে না। কারণ গণতন্ত্র ছাড়া উন্নয়ন হয় না। সুশাসন, মানবাধিকার ও মানুষের কথা বলার অধিকার ব্যতিরেকে কোন উন্নয়ন টেকসই হতে পারে না।

মঈন খান বলেন, বর্তমানে যারা মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের শক্তি বলে পরিচয় দেন তাদের কাউকেই মুক্তিযুদ্ধের সময় পাওয়া যায়নি। তারা বর্ডার পার হয়ে ওপারে চলে গিয়েছিলেন। তারা মুক্তিযুদ্ধ করেননি। ২৬ মার্চ যখন স্বাধীনতার ঘোষণাপত্রটি প্রস্তুত করা হয়েছিল, তখন মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের নেতাদের ডাকা হয়েছিল। তারা জিয়াউর রহমানকে বলেছিলেন, ‘ইউ আর দ্য মেজর, উই আর মাইনর।’ তাই ঘোষণা আপনিই দেন। অথচ সামরিক বাহিনীতে কর্মরত অবস্থায় এ ধরনের কর্মকা-ে জড়িত হওয়ার পরিণতি কী, তা তিনি জানতেন। তারপরও মেজর জিয়া সেদিন স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছিলেন।

আব্দুল মঈন খান বলেন, সাড়ে তিন বছরের যে রাজনৈতিক জীবন জিয়াউর রহমানের তা আলোচনা করতে গেলে পাঁচ মিনিট, ১০ মিনিট, ১৫ মিনিট বা ১৫ দিনে হবে না। যে কর্মময় জীবন তিনি রেখে গেছেন তা আলোচনা করতে গেলে ৩৫ বছর সময় লাগবে। তিনি বলেন, জিয়ার আদর্শময় জীবন নিয়ে হয়ত ইতিহাসের বইয়ে কিছু লেখা হচ্ছে না। কিন্তু নতুন প্রজন্মকে রক্তের অক্ষরে বুকের ভেতর সে ইতিহাস লিখতে হবে। জিয়ার মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এই আনুষ্ঠানিক আলোচনা করে কোন লাভ হবে না। তাঁর আদর্শকে লালন করতে হবে।

আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন, তিন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ভোটের আগের দিনই ব্যালট পেপারে সিল মারা হয়েছে। এভাবে কোন নির্বাচন হতে পারে না। তাই আজ দেশ যে অবস্থায় এসে দাঁড়িয়েছে তা নিয়ে আমাদের ভাবতে হবে। জিয়াউর রহমানের আদর্শকে লালন করতে হবে।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি শামা ওবায়েদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেনÑ বিএনপির যুববিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি ইশতিয়াক আজিজ উলফাত, মুক্তিযোদ্ধা দলের নেতা আবুল হোসেন, সাদেক আহমেদ খান প্রমুখ।

প্রস্তাবিত বাজেট বাস্তবায়নযোগ্য নয় কল্পনাবিলাসী ॥ ২০১৫-১৬ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট বাস্তবায়নযেগ্য নয়, কল্পনাবিলাসী বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মুখপাত্র ও দলের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন। শুক্রবার বিকেলে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি চলতি বছরের বাজেট নিয়ে প্রতিক্রিয়ায় এ কথা বলেন।

রিপন বলেন, এ বাজেট জনবান্ধব নয়। এটি একটি অনির্বাচিত সরকারের বাজেট। এ বাজেটে জনগণের ভাগ্যের কোন পরিবর্তন হবে না। কারণ ঘোষিত বাজেট বাস্তবায়নে সুস্পষ্ট নির্দেশনা নেই। এ বাজেট বাস্তবায়ন করতে হলে দেশে গণতান্ত্রিক পরিবেশ তৈরির কোন বিকল্প নেই। গণতান্ত্রিক পরিবেশ সৃষ্টি হলে দেশী-বিদেশী বিনিয়োগের পথ সম্প্রসারিত হবে। সম্প্রতি একটি গণমাধ্যমে দেয়া সাক্ষাতকারে অর্থমন্ত্রীর দেয়া বক্তব্য ‘খালেদা জিয়ার রাজনীতি শেষ’ প্রসঙ্গে রিপন বলেন, রাবিশ, বোগাস, এরশাদ সরকারের সহযোগী ও অর্বাচীন লোকের পক্ষেই এ জাতীয় বক্তব্য শোভা পায়।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেনÑ বিএনপির শিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক খায়রুল কবির খোকন, সহদফতর সম্পাদক আব্দুল লতিফ জনি, আসাদুল করিম শাহীন প্রমুখ।

প্রকাশিত : ৬ জুন ২০১৫, ০১:২৮ এ. এম.

০৬/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: