হালকা কুয়াশা, তাপমাত্রা ১৮.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হওয়ার পথে

প্রকাশিত : ৫ জুন ২০১৫

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত বলেছেন, মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হওয়ার পথে বাংলাদেশ। কেননা এই পর্যায়ে উন্নীত হতে জাতিসংঘ তিনটি সূচক মাথাপিছু আয়, মানবসম্পদের অবস্থান ও অর্থনীতির ঝুঁকিগ্রস্ততা বিবেচনা করে থাকে। আগামী ২০১৮ সালের মধ্যে এই তিনটি সূচক অর্জন করবে বাংলাদেশ। বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে দেয়া ২০১৫-১৬ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন। অর্থমন্ত্রী বলেন, ২০২১ সালের মধ্যে ডিজিটাল বাংলাদেশের পথে এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ বলেন।

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে দেয়া ২০১৫-১৬ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট বক্তৃতায় তিনি বলেন, ১৯৭৫ সালে বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশের কাতারভুক্ত হয়। এর কিছুদিনের মধ্যেই বাংলাদেশের নির্বাচিত সরকার এক সামরিক অভ্যুত্থানে ক্ষমতাচ্যুত হয়। তখন থেকে দীর্ঘ ১৬ বছর প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে দেশে সামরিক শাসন বজায় থাকে। তিনি বলেন, ১৯৯০ সালের গণঅভ্যুত্থানের সফল হয় সংসদীয় গণতন্ত্রের পুনরুত্থান। নব্বইয়ের দশক থেকে জাতীয় আয়ের প্রবৃদ্ধি হয় উর্ধমুখী এবং আর্থ-সামাজিক বিভিন্ন সূচকে ব্যাপক পরিবর্তনের সূচনা হয়। ২০০৮ সালের নির্বাচনের আগেই ওই সময়ের বিরোধীদলীয় নেত্রী এবং বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতির সামনে এক চ্যালেঞ্জ হিসেবে ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে উত্তরণের অঙ্গীকার করেন।

জাতিসংঘের কমিটি ফর ডেভেলপমেন্ট পলিসি (সিডিপি) মূল্যায়ন প্রতিবেদন থেকে দেখা যায়, স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা থেকে বের হয়ে মধ্যম আয়ের দেশে যেতে হলে যে তিনটি সূচকের মানদ- বিবেচনা করা হয়, সেগুলোর মধ্যে মাথাপিছু মোট দেশজ আয় (জিএনআই) সূচকে স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা থেকে উত্তরণের জন্য এক হাজার ১৯০ মার্কিন ডলার বা তার বেশি হওয়া প্রয়োজন। বাংলাদেশ ২০১৪ সালের সর্বশেষ হিসাব মতে জিএনআই এক হাজার ১৯০ মার্কিন ডলার হয়েছে। অন্যদিকে সিডিপির ২০১২ সালে প্রতিবেদন অনুযায়ী ২০০৮-১০ এই তিন বছরে গড় (ব্যবহৃত সূত্র বিশ্বব্যাংকের ওয়ার্ল্ড ডেভেলপমেন্ট ইন্ডিকেটর অনুযায়ী) ৬৩৭ মার্কিন ডলার এবং পরিসংখ্যান ব্যুরোর ২০১২ সালের হিসাবে মাথাপিছু জিএনআই ছিল ৮৪০ মার্কিন ডলার ছিল। মানবসম্পদ সূচকে স্বল্পোন্নত থেকে উত্তরণের জন্য প্রয়োজনীয় মান ৬৬ বা তার বেশি। বাংলাদেশের বর্তমানে অবস্থান হচ্ছে ৬৫ দশমিক ৯৬। ২০১২ সালের সিডিপির পর্যালোচনা প্রতিবেদন অনুযায়ী ছিল ৫৪ দশমিক ৭। অর্থনৈতিক সঙ্কট সূচকে স্বল্পোন্নত থেকে বের হতে প্রয়োজনীয় মান ৩২ বা তার কম। কিন্তু বর্তমানে তথ্য সংগ্রহ ও বিশ্লেষণের কার্যক্রম চলছে, আশা করা হচ্ছে এ ক্ষেত্রে অগ্রগতি অর্জিত হতে পারে। তবে ২০১২ সালের সিডিপির পর্যালোচনায় বাংলাদেশের মান ছিল ৩২ দশমিক ৪।

প্রকাশিত : ৫ জুন ২০১৫

০৫/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: