কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

মেসি-নেইমার ঝলকে শিরোপা বার্সিলোনার

প্রকাশিত : ১ জুন ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ প্রত্যাশিতভাবেই স্প্যানিশ কোপা ডেল রে’র (কিংস কাপ) শিরোপা জিতেছে বার্সিলোনা। শনিবার রাতে ফাইনালে কাতালানরা ৩-১ গোলে পরাজিত করে এ্যাথলেটিক বিলবাওকে। ন্যুক্যাম্পে অনুষ্ঠিত ম্যাচেও বরাবরের মতো বার্সার সাফল্যের নায়ক বনে যান দুই সুপারস্টার লিওনেল মেসি ও নেইমার। আর্জেন্টাইন অধিনায়ক করেন জোড়া গোল। আর ব্রাজিলিয়ান অধিনায়ক করেন এক গোল। এটি বার্সার ২৭তম কোপা ডেল’রে শিরোপা।

মেসির নান্দনিক গোলের অভাব নেই। এই ম্যাচেও ক্ষুদে জাদুকরের দুর্দান্ত গোলে বিস্ময়াবিভূত হয়েছে ফুটবলবিশ্ব। ম্যাচের প্রথম গোলটি তিনি করেন অসাধারণ এক ড্রিবলিংয়ের মাধ্যমে চার ফুটবলারকে কাটিয়ে গোলরক্ষককে বোকা বানিয়ে। অনেকেই গোলটিকে বলছেন সর্বকালের অন্যতম সেরা। বার্সা কোচ লুইস এনরিকেও তার প্রিয় শিষ্যকে অবিশ্বাস্য বলতে বাধ্য হয়েছেন। শুধু তাই নয়, এই ম্যাচে বার্সা ত্রয়ী গৌরবময় রেকর্ডের অধিকারী হয়েছেন। স্পেনের ফুটবল ইতিহাসে এক মৌসুমে তিনজনের গোলের দিক দিয়ে এখন শীর্ষে মেসি, নেইমার ও লুইস সুয়ারেজ।

বার্সার দুর্দান্ত সাফল্যের পাশাপাশি মিডফিল্ডার জাভি হার্নান্দেজের ন্যুক্যাম্পে থেকে বিদায়টাও জ্বলজ্বলে হয়েছে। স্প্যানিশ এই তারকা বার্সিলোনার জার্সি গায়ে পরশু রাতে ঘরের মাঠে শেষবারের মতো মাঠে নেমেছিলেন। কাতালানদের হয়ে ১৭ বছরের ক্যারিয়ারের শেষ লগ্নেও সতীর্থরা তাকে সাফল্য উপহার দিয়ে চলেছেন। কিছুদিন আগে স্প্যানিশ লা লিগার শিরোপা জয় করেন। এবার জিতলেন কোপা ডেল’রে। আর ক’দিন বাদে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগের শিরোপা জিততে পারলে স্বর্ণসাফল্য দিয়েই বার্সা অধ্যায় শেষ হবে জাভির। দুটি শিরোপা জয়ের পর বার্সার লক্ষ্য এখন ট্রেবল জয়। ৬ জুন উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ফাইনালে ইতালিয়ান চ্যাম্পিয়ন জুভেন্টাসকে হারাতে পারলে ঐতিহাসিক ট্রেবল জয়ের কৃতিত্ব দেখাবে এনরিকের দল। নিজেদের মাঠে ম্যাচের শুরু থেকেই আধিপত্য বিস্তার করে খেলতে থাকে স্বাগতিক বার্সিলোনা। নবম মিনিটে গোলও পায় তারা। কিন্তু নেইমারের গোল বাতিল হয় অফসাইডের কারণে। যদিও এই সিদ্ধান্ত যথেষ্ট বিতর্ক আছে। ২০ মিনিটে মেসির অবিশ্বাস্য দারুণ গোলে এগিয়ে যায় বার্সা। মাঝমাঠ থেকে মেসি একে একে বিলবাওয়ের মাইকেল বালেনজিয়াগা, মিকেল রিকো ও বেনাট এটেক্সবারিয়াকে কাটিয়ে আয়ামেরিক লাপোর্তোর খুব কাছ থেকে দারুণ শটে গোলরক্ষক ইয়াগোকে পরাস্ত করেন। কাতালানদের হয়ে নিয়মিতই গোলের ফুলঝুরি ফোটান আর্জেন্টাইন তারকা।

তবে তার এই গোলটিকে অনেকেই বলছেন ক্যারিয়ার সেরা। এরপর মেসি থেকে সুয়ারেজের ক্রস নেইমারের কাছে গেলে দুর্দান্ত ভঙ্গিমায় ব্রাজিলিয়ান তারকাকে হতাশ করেন ইয়াগো। মেসির ফ্রিকিক থেকে জেরার্ড পিকের প্রচেষ্টাও গোল হতে দেননি ইয়াগো। বিরতির নয় মিনিট আগে আর পেরে উঠেনি বিলবাও। সুয়ারেজের পাস থেকে নেইমার আসরে নিজের সপ্তম গোল করলে দুই গোলে এগিয়ে যায় বার্সা। বিরতির পর চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ফাইনালকে মাথায় রেখে বার্সিলোনা আক্রমণের ধার কিছুটা কমিয়ে দেয়। আন্দ্রেস ইনিয়েস্তার পরিবর্তে মাঠে নামেন জাভি হার্নান্দেজ। ন্যুক্যাম্পে ১৭ বছরের ক্যারিয়ার শেষে এটাই ছিল ঘরের মাঠে জাভির শেষ ম্যাচ। ৭৪ মিনিটে ডানি আলভেসের ক্রস থেকে মেসি মৌসুমে নিজের ৫৮ নম্বর গোল করে বার্সার শিরোপা নিশ্চিত করেন। ম্যাচের ৭৯ মিনিটে ২০ বছর বয়সী উইলিয়ামস বিলবাওয়ের হয়ে সান্ত¡নাসূচক এক গোল করেন।

প্রকাশিত : ১ জুন ২০১৫

০১/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: