রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

চট্টগ্রামে পুলিশ হেফাজতে আসামির মৃত্যু ॥ পরিবারের দাবি নির্যাতন

প্রকাশিত : ৩১ মে ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ চট্টগ্রামে কোতোয়ালি থানা পুলিশের হেফাজতে এক নৈশ প্রহরীর মৃত্যু হয়েছে। তার নাম ইসহাক মিয়া (৫০)। শনিবার সকাল ৯টার দিকে থানা হাজতের বাথরুমে তার লাশ পাওয়া গেছে। পুলিশের দাবি, ইসহাক আত্মহত্যা করেছে। কিন্তু নিহতের পরিবারের দাবি- পুলিশী নির্যাতনে তার মৃত্যু হয়েছে।

জানা গেছে, ইসহাক মিয়া জাহিদ এন্টারপ্রাইজ নামের একটি প্রতিষ্ঠানে চুক্তিভিত্তিক নিরাপত্তা কর্মী হিসেবে কাজ করতেন। তার বাড়ি কর্ণফুলী থানাধীন শিকলবাহা এলাকায়। তার বাবার নাম জালাল আহমেদ। গত ২৭ মে রাত থেকে পরদিন ২৮ মে সকাল পর্যন্ত নিরাপত্তা কর্মী হিসেবে কর্মরত থাকাকালীন জাহিদ এন্টারপ্রাইজে একটি চুরির ঘটনা ঘটেছে। প্রতিষ্ঠানের ক্যাশবাক্স ভেঙ্গে ইসহাক চুরির ঘটনা ঘটিয়েছে বলে মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে। এ ঘটনায় প্রতিষ্ঠানের মালিক ইসহাককে কোতোয়ালি থানায় সোপর্দ করে। কিন্তু শুক্রবার রাতে থানা হেফাজতে ইসহাকসহ আরও ২ আসামি কোতোয়ালি থানায় ছিল। এর মধ্যে একজন ডিবি পুলিশের আসামি এবং অপরজন একই মামলায় ওমর ফারুক নামের আরেক আসামিও ছিল। শনিবার সকালে ডিবি পুলিশের আসামি থানা হেফাজত থেকে ডিবি হেফাজতে নেয়ার সময় শুধু ওমর ফারুককে থানা হেফাজতে পাওয়া যায়। থানা হেফাজতের দায়িত্বে থাকা কনস্টেবল ওমর ফারুককে অপর আসামির বিষয়ে জিজ্ঞাসা করলে ফারুক জানিয়েছে, ইসহাক বাথ রুমে গিয়েছে। ফারুকের কথা অনুযায়ী বাথরুমের দরজা ভেঙ্গে দেখা যায় ইসহাক নিজের পরণের শার্ট গলায় বেঁধে ভেন্টিলেটরের সঙ্গে ফাঁস দিয়েছে। পরিবারের অভিযোগ, থানা হাজতের টয়লেটের ভেন্টিলেশন ও মেঝের মধ্যে যে দূরত্ব রয়েছে তাতে গলায় ফাঁস দেয়ার কোন সুযোগ নেই।

আওয়ামী লীগ নেতাকে জড়িয়ে চার্জশীট ॥ শরীয়তপুরে ক্ষোভ

নিজস্ব সংবাদদাতা, শরীয়তপুর, ৩০ মে ॥ শরীয়তপুর জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি, পৌরসভার মেয়র ও শরীয়তপুর জেলা শিক্ষক সমিতির সভাপতি আবদুর রব মুন্সীকে জড়িয়ে দুদকের একটি সাজানো মামলায় আদালতে চার্জশীট দাখিল করাতে জেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও দলীয় নেতাকর্মীসহ জনমনে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। দলীয় নেতাকর্মীরা বলেছেন, দলের মধ্যে ঘাপটি মেরে থাকা জামায়াত-বিএনপির কতিপয় দুষ্কৃতকারীর প্ররোচনায় দুর্নীতি দমন কমিশনের দায়ের করা সাজানো মামলায় জনপ্রিয় আওয়ামী লীগ নেতা আবদুর রব মুন্সীকে জড়িয়ে আদালতে চার্জশীট দাখিল করে দলের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার অপচেষ্টা করা হচ্ছে।

জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোঃ সিদ্দিকুর রহমান পাহাড় বলেন, দলীয় ভাবমূর্তি ক্ষুণœ করার জন্য দলের মধ্যে আওয়ামী লীগ নামধারী একটি কুচক্রি মহল জামায়াত-বিএনপির সাথে যোগসাজশে দুর্নীতি দমন কমিশনের মাধ্যমে জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি, শরীয়তপুর পৌর মেয়র আবদুর রব মুন্সীর বিরুদ্ধে হয়রানিমূলক মামলা করে আদালতে চার্জশীট দাখিল করাতে আমরা বিস্মি§ত হয়েছি এবং তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করছি।

জেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোঃ নুরুল আমীন রতন বলেন, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও জেলা শিক্ষক সমিতির বার বার নির্বাচিত সভাপতি আবদুর রব মুন্সীকে সামাজিকভাবে হেয়প্রতিপন্ন করার উদ্দেশেই দুদকের সাজানো মামলায় আদালতে চার্জশীট প্রদান করা হয়েছে। আমরা শিক্ষক সমিতির পক্ষ থেকে এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

প্রকাশিত : ৩১ মে ২০১৫

৩১/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: