কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

আত্মঘাতী বোমা হামলা সত্ত্বেও সফর শেষ করবে জিম্বাবুইয়ে

প্রকাশিত : ৩১ মে ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ‘প্রেসিডেন্সিয়াল’ নিরাপত্তা সত্ত্বেও দ্বিতীয় ওয়ানডে চলাকালে গাদ্দাফি স্টেডিয়ামের বাইরে আত্মঘাতী বোমা হামলা ক্রিকেট বিশ্বকে নতুন করে ভাবিয়ে তুলেছে। তবু আজকের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডে খেলতে মাঠে নামবে অতিথি জিম্বাবুইয়ে। যদিও প্র্যাকটিস দূরের কথা, ভয়ে কাল হোটেল রুম ছেড়ে বাইরে যায়নি তারা! সফর শেষ করে সোমবারই দেশের উদ্দেশে বিমান ধরবে টিম জিম্বাবুইয়ে। ওদিকে আতঙ্কের মধ্যে অধিনায়ক আজহার আলির দূরন্ত সেঞ্চুরির ওপর ভর করে দ্বিতীয় ম্যাচে ৬ উইকেটের বড় জয়ে সিরিজ পকেটে পুরেছে পাকিরা।

‘স্টেডিয়ামের বাইরের অনাকাক্সিক্ষত ঘটনা সম্পর্কে আমরা অবগত। এটা তেমন কিছু নয়, বৈদ্যুতিক ট্রান্সফর্মারে আগুন ধরে যাওয়ায় পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় সিরিজের ওপর প্রভাব পড়বে না। রবিবার (আজ) যথারীতি তৃতীয় ওয়ানডে অনুষ্ঠিত হবে। সোমবার দেশের উদ্দেশে পাকিস্তান ত্যাগ করবে অতিথি জিম্বাবুইয়ে’Ñ শনিবার সংবাদমাধ্যমকে বলেন পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবির) এক মুখপাত্র। এটা আয়োজক পাকিস্তানীদের ভাষ্য। বাস্তবতা ভয়াবহ, স্টেডিয়ামের মাত্র ৮০০ মিটারের মধ্যে ঘটে যাওয়া আত্মঘাতী হামলায় এক পুলিশ কর্মকর্তাসহ তাৎক্ষণিকই মারা গেছেন দুইজন! আহত হয়েছেন আরও ছয়জন।

শনিবার সকালেও সফরকারী জিম্বাবুইয়ে দলের এক মুখপাত্র বলেছেন, সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে বিকেলে জরুরী বৈঠকে বসবেন তারা। মূলত সেখানেই সিদ্ধান্ত হবে। তার মানে, দুই কর্তৃপক্ষের বক্তব্য দুই রকম। ঝঞ্ঝা-বিক্ষুব্ধ পাকিস্তান বলে কথা, পরিস্থিতি যে কোন্ দিকে গড়ায়! প্রকৃত ঘটনা হচ্ছেÑ শুক্রবার সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডে চলাকালে গাদ্দাফি স্টেডিয়ামের ঠিক বাইরেই আত্মঘাতী বোমা হামলায় একজন সাব-ইন্সপেক্টরসহ ২ জন নিহত হন। পাকিস্তানেরই প্রভাবশালী টিভি চ্যানেল জিও নিউজ জানিয়েছে, ‘সন্দেহভাজন ওই আত্মঘাতী বোমা হামলাকারী স্টেডিয়ামের দেয়ালের কাছাকাছি পৌঁছার আগেই তাকে থামিয়ে দেয় পুলিশ। তখনই সে বোমার বিস্ফোরণ ঘটায়।’

এ বিষয়ে পাকিস্তানের তথ্যমন্ত্রী পারভেজ রশিদ বলেন, ‘গাদ্দাফি স্টেডিয়ামের বাইরের ওই আত্মঘাতী হামলায় ২ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও কয়েক জন। তবে প্রশাসনের ব্যাপক তৎপরতায় বড় কোন ঘটনা ঘটেনি!’ বোমা হামলা সত্ত্বেও খেলায় বিঘœ ঘটেনি। বড় জয়ে সিরিজ নিশ্চিত করেছে পাকিরা। উল্লেখ্য, ২০০৯ সালের মার্চে লাহোরে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের ওপর ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলা হয়। পুলিশ সদস্য ও বাস ড্রাইভারসহ বেশ কয়েকজন নিহত হন। আহত হন একাধিক লঙ্কান ক্রিকেটার। এরপর থেকে কোন বিদেশী দল আর পাকিস্তান সফর করেনি। একের পর এক সন্ত্রাসী কর্মকা-ে এক পা এগোলে দুই-পা পিছিয়েছে বিদেশী দলগুলো। জিম্বাবুইয়ের সফর নিয়েও নাটকীয়তা কম হয়নি। এবার ‘প্রেসিডেন্সিয়াল’ নিরাপত্তা সত্ত্বেও সেখানে এমন ঘটনা সত্যি বিস্ময়কর! দ্বিতীয় ওয়ানডেতে চামু চিভাবা (৯৯) ও সিকান্দার রাজার (১০০*) ব্যাটে ভর করে ৭ উইকেটে ২৬৮ রান সংগ্রহ করে জিম্বাবুইয়ে। ওয়াহাব রিয়াজ ও ইয়াসির শাহ নেন ২টি করে উইকেট। জবাবে আজহারের দারুণ সেঞ্চুরি (১০২) ও হারিস সোহেলের (৫২*) অপরাজিত হাফ সেঞ্চুরির সৌজন্যে ৪৭.২ ওভারে ৬ উইকেট অক্ষত রেখে লক্ষ্যে পৌঁছে যায় পাকিস্তান। সহজ জয়ে এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ নিশ্চিত করে স্বাগতিকরা। বাংলাদেশ সফরে ওয়ানডের নেতৃত্ব পাওয়ার পর ব্যাট হাতে কার্যত উড়ছেন আজহার। মিরপুর হয়ে লাহোর, পাঁচ ইনিংসে পাক সেনাপতির স্কোরÑ ৭২, ৩৬, ১০১, ৭৯ ও ১০২! মাঝে দুই টেস্টে ৮৩, ২২৬ ও ১। ‘লিডিং ফ্রম দ্য ফ্রন্ট’ বলতে যা বোঝায়, সাফল্যের এ ধারা শেষ ম্যাচেও অব্যাহত রাখতে চান আজহার। ‘দুটি ম্যাচে যেভাবে খেলেছি তাতে আমরা সন্তুষ্ট। তবে আত্মতুষ্টিতে ভোগার সুযোগ নেই। লক্ষ্য একটাই শেষ ওয়ানডে জিতে প্রতিপক্ষকে হোয়াইটওয়াশ করা। অন্যদিকে সাময়িক নিষেধাজ্ঞায় এলটন চিগম্বুরার অনুপস্থিতিতে জিম্বাবুইয়েকে শেষ ম্যাচে জয় উপহার দিতে মরিয়া অভিজ্ঞ হ্যামিল্টন মাসাকাদজা। অতিথিদের জন্য কাজটা সহজ হবে না। কারণ ব্যাটে-বলে দারুণ ছন্দে রয়েছেন স্বাগতিক তারকা শোয়েব মালিক, আজহার, মোহাম্মদ সামি ও ইয়াসির শাহ।

প্রকাশিত : ৩১ মে ২০১৫

৩১/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: