আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৭ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

গিফট নিয়ে সন্দেহে ধরা পড়ল প্রেমিক বর ডাকাত সর্দার

প্রকাশিত : ৩০ মে ২০১৫
  • ২৫ মে ঢাকায় গ্রেফতার নয় ডাকাতের একজন সে
  • ২১১ সালে শব-ই-বরাতের রাতে আমিনবাজারে ছয় ছাত্রকে পিটিয়ে হত্যায়ও জড়িত এরা

গাফফার খান চৌধুরী ॥ প্রেমিকাকে দেয়া দামী হাতঘড়ির সূত্র ধরেই গত ২৫ মে ঢাকা থেকে গ্রেফতার হয় নয় ডাকাত। হাতঘড়িটি দামী হলেও কিছুটা পুরনো ছিল। ইতোপূর্বে প্রেমিকাকে ছিনতাই করে একটি প্রাইভেটকারও উপহার দিয়েছে। সেটিও পুরনো ছিল। প্রাইভেটকারের বিষয়ে সন্দেহ না হলেও পুরনো হাতঘড়ি উপহারের বিষয়ে সন্দেহ হয় প্রেমিকা বিমানবালার। বিশেষ করে বিয়ের জন্য তোড়জোড় শুরু হলে সন্দেহ বেড়ে যায় প্রেমিকার। আর তারই সূত্র ধরে খোঁজ নিয়ে জানতে পারে প্রেমিক মস্তবড় ডাকাত সর্দার।

গত ২৫ মে গভীর রাতে ডিবি রাজধানীর মোহাম্মদপুর থেকে নয় ডাকাতকে গ্রেফতার করে। তাদের কাছ থেকে উদ্ধার হয় তিনটি বিদেশী পিস্তল, ৫ রাউন্ড গুলি, ১২টি ককটেল, এক কেজি গান পাউডার ও ডাকাতিতে ব্যবহৃত একটি মাইক্রোবাস ও একটি প্রাইভেটকার। গ্রেফতারকৃতদের তিন দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গ্রেফতারকৃত নয় ডাকাতের সর্দার সেনাবাহিনী থেকে বরখাস্তকৃত মিজান। তিনি নিজেকে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পরিচয় দেন। এমন পরিচয়েই ঘনিষ্ঠতা হয় এক বিমানবালার। পরিচয় থেকে প্রেমের সম্পর্ক হয়। প্রায় দেড় বছর ধরে দু’জনে চুটিয়ে প্রেম করেন। প্রেম করার সময় মিজান প্রেমিকাকে হীরের আংটি, কানের দুল, লকেটসহ চেন উপহার দেন। মাস ছয়েক আগে গাজীপুরে মিজান নিজের নামে জায়গাও কেনেন। আর প্রেমিকাকে সম্প্রতি একটি ছিনতাই করা টয়োটা এক্স করোলা গাড়ি উপহার দেন। গাড়িটি উপহার দেয়ার সময় প্রেমিকাকে গাড়িটি খানিকটা পুরনো বলে আগাম জানিয়ে দেয়। এতে করে প্রেমিকার মনে আর কোন সন্দেহ হয় না। প্রেম চলাকালে বিয়ের আলোচনা চলতে থাকে। বিয়ের আয়োজন একপ্রকার পাকাপোক্তও হয়ে যায়। মাসখানেক আগে মিজান প্রেমিকাকে একটি দামী হাতঘড়ি উপহার দেন। হাতঘড়িটি খানিকটা পুরনো।

বিষয়টিতে প্রেমিকার সন্দেহ হয়। তিনি নিজ উদ্যোগে হবু বর সম্পর্কে গোপনে খোঁজখবর নিতে শুরু করেন। খোঁজখবর নিতে গিয়ে সন্দেহ আরও বেড়ে যায়। প্রেমিকার হবু স্বামীর কর্ম সম্পর্কে নিশ্চিত হতে পুলিশ সদর দফতরে যোগাযোগ করেন। পুলিশ সদর দফতর মিজানের নামের ঠিকানা মোতাবেক কোন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নেই বলে বিমানবালাকে জানান। এর পরই শুরু হয় মিজান সম্পর্কে প্রেমিকার অনুসন্ধান। তাহলে এত দামী অলঙ্কার, গাড়ি, জমি কেনার টাকার উৎস কি? জানতে মরিয়া হয়ে ওঠেন। নানা টালবাহানা করে বিয়ের দিনক্ষণ আস্তে আস্তে পেছাতে থাকেন ওই বিমানবালা।

বিমানবালা ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের শরণাপন্ন হন। শুরু হয় গোয়েন্দাদের অনুসন্ধান। অনুসন্ধানে জানা যায়, মিজান একজন পেশাদার ডাকাত। সে সেনাবাহিনী থেকে বরখাস্তকৃত। ডাকাতি বা ছিনতাই শেষে তারা গাড়ির সামনে পুলিশ লেখা স্টিকার ব্যবহার করে পালিয়ে যায়। তারই সূত্র ধরে গ্রেফতার হয় নয় ডাকাত। গ্রেফতারকৃত ডাকাতদের তিন দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদেও এমন চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ পায়।

এমন চাঞ্চল্যকর তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম জনকণ্ঠকে জানান, পলাতক ডাকাত সর্দার মিজানের দলে ৩৫ জন ডাকাত রয়েছে। মিজানসহ তার সহযোগীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। গ্রেফতারকৃতরা গত বছরের সেপ্টেম্বরে গাজীপুরের বোর্ড বাজার থেকে গাজীপুর এন এ আর সুয়েটারের কর্মচারীদের বেতন ভাতার ৭২ লাখ টাকা ব্যাংক থেকে ফ্যাক্টরিতে নেয়ার সময় ছিনতাইয়ের সঙ্গে জড়িত। এ ছাড়াও আগামী ১ জুন আকিজ গ্রুপের স্টাফদের বেতন ভাতার টাকা ছিনতাইয়ের পরিকল্পনা ছিল গ্রেফতারকৃতদের।

ডিবির উপকমিশনার শেখ নাজমুল আলম জানান, গ্রেফতারকৃতরা ২০১১ সালের ১৭ জুলাই পবিত্র শব-ই-বরাতের রাতে সাভারের আমিনবাজারের বড়দেশী গ্রামের কেবলাচর বালুমাঠে ছয় ছাত্রকে ডাকাত সন্দেহে পিটিয়ে হত্যার সঙ্গে জড়িত বলে স্বীকার করেছে।

প্রকাশিত : ৩০ মে ২০১৫

৩০/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: