কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

দুদকের ৪৭ কর্মকর্তার পদোন্নতি স্থগিত

প্রকাশিত : ২৮ মে ২০১৫, ১২:৩৯ এ. এম.

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সদ্য পদোন্নতিপ্রাপ্ত ৪৭ কর্মকর্তার পদোন্নতি স্থগিত করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। সম্প্রতি এসব কর্মকর্তার পদোন্নতির বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল। নতুন গৃহীত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পূর্বের সিদ্ধান্তে পদোন্নতির যাচাই-বাছাইয়ে ত্রুটি হয়েছে মনে হওয়ায় নতুন করে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানালেন দুদক চেয়ারম্যান মোঃ বদিউজ্জামান ও কমিশনার সাহাবুদ্দিন চুপ্পু। তারা জানান, আগে যে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল তা স্থগিত করা হয়েছে। এ বিষয়ে নতুন করে বিভাগীয় পদোন্নতি কমিটি (ডিপিসি) গঠন করে যাচাই-বাছাইয়ের মাধ্যমে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। নতুন এ প্রক্রিয়ায় সিদ্ধান্ত নিতে এবং এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করতে আরও সময় লাগতে পারে। দুদক চেয়ারম্যান মোঃ বদিউজ্জামান বলেন, আমরা আপাতত পদোন্নতির বিষয়টি স্থগিত করেছি। নতুন করে যাচাই-বাছাই করে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। আশা করি খুব তাড়াতাড়ি এ ব্যাপারে সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে পারব। দুদক কমিশনার সাহাবুদ্দিন চুপ্পু বলেন, পদোন্নতির বিষয়ে যে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল তা স্থগিত করা হয়েছে, কারণ ডিপিসির পক্ষ থেকে পদোন্নতির যে সুপারিশ এসেছিল তা কমিশনের কাছে ত্রুটিপূর্ণ বলে মনে হয়েছে। তাই পুনরায় ডিপিসি গঠন করে কর্মকর্তাদের পদোন্নতির বিষয় যাচাই-বাছাই করা হবে।

দুদকের একটি সূত্র জানায়, দুদকের অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। আর সেই দ্বন্দ্ব হচ্ছে- কমিশনের সঙ্গে সচিবের। কেননা পদাধিকারবলে কমিশনের বিভাগীয় পদোন্নতি কমিটির (ডিপিসি) প্রধান হলেন দুদকের সচিব মোঃ মাকসুদুল হাসান খান। এই কমিটি কর্মকর্তাদের পদোন্নতির সমস্ত বিষয় যাচাই-বাছাই করে সুপারিশপূর্বক কমিশনের কাছে প্রতিবেদন জমা দেবে। সচিব যদি কোন কর্মকর্তাকে ডিপিসির পক্ষ থেকে সুপারিশ করা না হয় তাহলে তিনি পদোন্নতি পাবেন না।

কর্মকর্তাদের পদোন্নতি নিয়ে গত ১০ মে আয়োজিত সভায় ডিপিসির পক্ষ থেকে কর্মকর্তাদের পদোন্নতির জন্য সুপারিশ করেন সচিব। তিনি সভায় পদোন্নতির বিষয়ে জ্যেষ্ঠতার বিষয়টি প্রাধান্য দিয়ে এ সুপারিশ তুলে ধরেন। তবে সেখানে এক কমিশনার জ্যেষ্ঠতা বাদ দিয়ে যোগ্যতা ও দক্ষতার বিষয়টি তুলে ধরা মতবিরোধের সৃষ্টি হয়। তখন জ্যেষ্ঠতা লঙ্ঘনের বিষয়ে তীব্র আপত্তি তোলেন দুদক সচিব। তবে দুদকের চেয়ারম্যান ও দুই কমিশনারসহ উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা যোগ্যতা ও দক্ষতার ভিত্তিতে পদোন্নতির পক্ষে মত দেন। সবশেষে সংখ্যাগরিষ্ঠতার ভিত্তিতে কর্মকর্তাদের যোগ্যতা ও দক্ষতার ভিত্তিতে পদোন্নতির বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়। সেসময় পদোন্নতিপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের তালিকা চূড়ান্ত হওয়ার পর পরদিন সোমবার প্রজ্ঞাপন আকারে প্রকাশের জন্য বিজি প্রেসে পাঠানোর বিষয়েও সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

দুদক সূত্র আরও জানায়, সিদ্ধান্ত নিলেও সচিব স্বাক্ষর না করা পর্যন্তু পদোন্নতি তালিকার গেজেট প্রকাশ করতে পারবে না কমিশন। ফলে আটকে যায় এই গেজেট প্রকাশ। তাই এখন কমিশন ওই সচিবের জায়গায় অন্য একজন সচিবকে আনার চিন্তা করা হচ্ছে বলে জানা গেছে। এজন্য গত ১২ মে কঠোর গোপনীয়তা মাধ্যমে ওই সচিবের প্রত্যাহার চেয়ে দুদক চেয়ারম্যান জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সচিব কামাল আবদুল নাসের বরাবর একটি ডিও লেটার পাঠিয়েছেন বলে শোনা যাচ্ছে। আরেক সচিবকে দুদকে নিয়োগ দিয়ে পুনরায় বিভাগীয় পদোন্নতি কমিটির (ডিপিসি) গঠন করা হবে। সেই কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী ও কমিশনের সিদ্ধান্ত মোতাবেক পদোন্নতিপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের তালিকার গেজেট প্রকাশ করা হবে।

উল্লেখ্য, গত ১০ মে দিনভর এসব নানা মতভেদ ও আলোচনা-সমালোচনার মধ্য দিয়ে ৪৭ কর্মকর্তার পদোন্নতির সিদ্ধান্ত নিয়েছিল কমিশন। এদের মধ্যে ৫ উপ-পরিচালককে পরিচালক পদে ও ৭ সহকারী পরিচালক উপ-পরিচালক পদে পদোন্নতি দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

প্রকাশিত : ২৮ মে ২০১৫, ১২:৩৯ এ. এম.

২৮/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: