আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

তিস্তা প্রশ্নে মোদিকে মমতার চিঠি

প্রকাশিত : ২৮ মে ২০১৫

বিডিনিউজ ॥ তিস্তার পানি বণ্টনসহ দ্বিপক্ষীয় সব বিষয়ের নিষ্পত্তিতে সহযোগিতার আগ্রহ প্রকাশ করে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি লিখেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ভারতের পররাষ্ট্র সচিব জয়শঙ্করের সদ্য সমাপ্ত ঢাকা সফরের আগে ওই চিঠি মোদির কাছে পৌঁছায়।

মমতার ওই চিঠির সুর খুব ‘ইতিবাচক’ বলে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের শীর্ষ কর্মকর্তারা বলেছেন। বৈঠকে বসতে মোদির কাছে সময়ও চেয়েছেন মমতা।

গত মাসের প্রথম দিকে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে নরেন্দ্র মোদির সভাপতিত্বে ‘নীতি আয়োগের’ পরিচালনা পরিষদের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন পশ্চিমবঙ্গ বাদে সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। এর বাইরেও মোদির সঙ্গে সাক্ষাত হতে পারে এমন অনেক অনুষ্ঠান এড়িয়ে গেছেন মমতা ও তার মন্ত্রিসভার সদস্যরা।

এসব ঘটনার পর মমতা এখন মোদির সঙ্গে বৈঠক করতে চাওয়ায় তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রীর আচরণে পরিবর্তন এসেছে বলে মনে করছেন প্রধানমন্ত্রীর দফতরের শীর্ষ কর্মকর্তারা। কেন এমনটা হয়েছে সে বিষয়ে কোন ধারণা দিতে পারেননি তারা।

তবে সারদার অর্থ কেলেঙ্কারিতে তৃণমূল নেতাদের সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ, বর্ধমান বিস্ফোরণের পর ইসলামপন্থী উগ্রবাদীদের কর্মকাণ্ডের তথ্য প্রকাশ এবং দলের সাধারণ সম্পাদক মুকুল রায়কে সারদার ঘটনায় গোয়েন্দাদের জিজ্ঞাসাবাদ মোদির সঙ্গে সমঝোতায় পৌঁছাতে মমতার আগ্রহী হয়ে ওঠার কারণ হতে পারে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। বাংলাদেশসহ সব বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষেত্রে মমতাকে সঙ্গে রাখার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন মোদি। মার্চে ভারত মহাসাগরীয় চার দেশ সফরের পর এপ্রিলে মোদি বাংলাদেশ সফরে আসতে চান বলে তার দফতরের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। “সে পর্যন্ত স্থল সীমান্ত চুক্তি বাস্তবায়নে এ সংক্রান্ত বিল পার্লামেন্টের উচ্চ কক্ষে একটি স্বস্তিদায়ক পর্যায়ে পৌঁছাবে এবং তিস্তার পানি বণ্টন চুক্তির কিছু জটিলতার অবসান হবে,” বলেছেন প্রধানমন্ত্রীর দফতরের এক শীর্ষ কর্মকর্তা।

তিনি বলেন, মোদি ঢাকা সফরে মমতাকে সঙ্গে নিতে এবং বাংলাদেশ নিয়ে সব ‘গুরুত্বপূর্ণ’ ঘোষণার সময় তাকে পাশে রাখতে চান।

“গঙ্গার পানি বণ্টন চুক্তির সময় সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেবগৌড়া যেভাবে মুখ্যমন্ত্রী জ্যোতি বসুকে পাশে রেখেছিলেন তেমনি মোদিও তাই করবেন।” তিস্তায় যাতে উজান থেকে বেশি পানি আসে এবং পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশ তাদের হিস্যা পায় সেজন্য মোদি সিকিমের সঙ্গে কাজ করছেন বলে অনেকের ধারণা। সিকিমের মুখ্যমন্ত্রী পবন চামলিং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ঘনিষ্ঠ বন্ধু।

প্রকাশিত : ২৮ মে ২০১৫

২৮/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: