আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

চট্টগ্রামে রেল স্টেশনে ৭০ স্থাপনা উচ্ছেদ

প্রকাশিত : ২৭ মে ২০১৫
  • ট্রেন চলাচল নির্বিঘœ করতে অভিযান

মাকসুদ আহমদ, চট্টগ্রাম অফিস ॥ চট্টগ্রামে বিপদমুক্ত ট্রেন চলাচল নিশ্চিতে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালানা করেছে পূর্বাঞ্চলীয় রেলওয়ে। রেলের পাহাড়তলীস্থ বিভাগীয় ভূ-সম্পত্তি কর্মকর্তা ও উপসচিবের নেতৃত্বে মঙ্গলবার এ উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়। নগরীর ষোলশহর রেলস্টেশন এলাকায় এ সময় অভিযান দলটি প্রায় ৭০টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে। গত সপ্তাহে উত্তর হালিশহর এলাকা থেকে প্রায় ২১ কোটি টাকা মূল্যের ৩৫ গ-া জায়গা অবৈধ দখলদার থেকে উদ্ধার করেছে এই দফতর। নেয়া হয়েছে অবৈধ দখলদার থেকে মুচলেকা। কাল ২৮ মে তারিখের মধ্যে তারা ভাংচুর করা স্থাপনা সরিয়ে নেবে।

অভিযোগ রয়েছে, দেশের গুরুত্বপূর্ণ এলাকাগুলোতে বিশেষ করে রেলস্টেশন এলাকায় ও রেললাইনকে ঘিরে গড়ে উঠছে অবৈধ স্থাপনা ও দোকানঘর। কিন্তু এসব দোকান বা স্থাপনা ট্রেন চলাচলে বাধা সৃষ্টি করছে। রেলের পক্ষ থেকে দফায় দফায় অভিযান পরিচালনা করলেও অবৈধ দখলদাররা সিন্ডিকেট করে ঝুঁকিপূর্ণ করে রেখেছে ট্রেন চলাচল। নগরীর ষোলশহর রেলস্টেশন এলাকায় ও ২নং রেল গেট এলাকায় গত বছরও পাহাড়তলীস্থ ভূ-সম্পত্তি বিভাগ অভিযান পরিচালনা করে দেড় শতাধিক অবৈধ স্থাপনা ও দোকানঘর উচ্ছেদ করে।

এ ব্যাপারে রেলের পূর্বাঞ্চলীয় সহকারী ভূ-সম্পত্তি কর্মকর্তা আব্দুল বারী জনকণ্ঠকে জানিয়েছেন, আমারা ট্রেন চলাচল বিপদমুক্ত করতে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করেছি। রেল ভূমি নিয়ে অবৈধ সিন্ডিকেট বাণিজ্য করতে দেয়া হবে না। রেললাইনের দুই পাশে ১০ ফুটের মধ্যে রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব জিআরপির। কিন্তু তবুও গড়ে উঠছে অবৈধদের অবৈধ স্থাপনা। আমরাও বসে নেই অভিযান চালিয়ে যাচ্ছি। আগামীতেও অভিযান পরিচালিত হবে।

আরও অভিযোগ রয়েছে, বছর ঘুরতে না ঘুরতেই আবারও অবৈধ দখলদাররা নিজেদের অবস্থান চাঙ্গা করতে রাতারাতি এসব স্থাপনা গড়ে তোলে ও ভাড়া বাণিজ্য চালায় এবং ট্রেন চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে। জিআরপির ছত্রছায়ায় থেকে রেললাইনের পাশেই গড়ে তোলা হয় অবৈধ স্থাপনা ও দোকানপাট। অথচ রেললাইনের উভয় পাশে ১০ ফুট পর্যন্ত রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব রেল পুলিশের। তবে অর্থ বাণিজ্যের কারণে জিআরপি সদস্যরা অবৈধ দখলদারদের সঙ্গে সিন্ডিকেট করেই ট্রেন যাত্রীদের নিরাপদ ভ্রমণকে ঝুঁকির দিকে ঠেলে দিচ্ছে।

পাহাড়তলীস্থ বিভাগীয় ভূ-সম্পত্তি কর্মকর্তার দফতর সূত্রে জানা গেছে, কয়েকদিন পরপরই রেলের জায়গা থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। রেললাইিনের পাশে গড়ে ওঠা স্থাপনা যাত্রীদের জন্য অনেক ঝুঁকিপূর্ণ। কিন্তু দমানো যাচ্ছে না অবৈধ দখলদারদের। মঙ্গলবার সকাল থেকে অভিযান চালানো হয় ষোলশহর স্টেশন এলাকায়। সেখানে অবৈধভাবে রেললাইনের দুই ধারে প্রায় ৭০টি স্থাপনা ও দোকান উচ্ছেদ করা হয়। পাহাড়তলীস্থ বিভাগীয় ভূ-সম্পত্তি কর্মকর্তা ও উপসচিব জসিম উদ্দিনের নেতৃতে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

প্রকাশিত : ২৭ মে ২০১৫

২৭/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: