কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

নাফীস-মিঠুন সেঞ্চুরি বঞ্চিত বিসিএলে

প্রকাশিত : ২৬ মে ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ ক্রিকেট লীগের (বিসিএল) চার দিনের ক্রিকেটের শেষপর্বের লড়াই জমে উঠেছে। অবশ্য চট্টগ্রামে প্রাইম ব্যাংক দক্ষিণাঞ্চলই সুবিধাজনক অবস্থানে আছে। ইসলামী ব্যাংক পূর্বাঞ্চলের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে ৩৮৫ রান তুলেছে তারা। শাহরিয়ার নাফীস ৯৬ ও মোহাম্মদ মিঠুন ৯৫ রান করে আউট হয়ে সেঞ্চুরি হাতছাড়া করেছেন। দ্বিতীয় দিন শেষে ৩ উইকেটে ১৫৯ রান করে এখনও ২২৬ রানে পিছিয়ে পূর্বাঞ্চল। মিরপুরে ওয়ালটন মধ্যাঞ্চল-বিসিবি উত্তরাঞ্চল লড়াইয়ে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতার আমেজ পাওয়া যাচ্ছে। মধ্যাঞ্চল ২৮৯ রানে প্রথম ইনিংস শেষ করার পর উত্তরাঞ্চল দ্বিতীয় দিন প্রথম ইনিংসে গুটিয়ে গেছে ২৮৭ রানে। দিন শেষে দ্বিতীয় ইনিংসে ২১ রান তুলতেই ২ উইকেট হারালেও ২৩ রানে এগিয়ে গেছে মধ্যাঞ্চল। উত্তরাঞ্চলের স্পিনার তাইজুল ইসলামের পর মধ্যাঞ্চলের হয়ে ৫ উইকেট শিকার করেছেন শুভাগত হোম। ভারত সিরিজের জন্য যে ২৩ সদস্যের প্রাথমিক দল ঘোষণা করা হয়েছে, সেই দলের অনেক ক্রিকেটারই বিসিএলের শেষপর্বে খেলছেন না। তাই অনেকটাই ম্লান হয়ে গেছে শেষপর্ব। ইনজুরি জাতীয় দলের নির্ভরযোগ্য ক্রিকেটারদের এমনভাবে ঘিরে ধরেছে, বিসিএল না খেলে বিশ্রাম নেয়াই এখন জরুরী হয়ে পড়েছে। তাই করেছেন ক্রিকেটাররা। চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে দারুণ অবস্থানে আছে দক্ষিণাঞ্চল। আগের দিনের ২ উইকেটে ২৭২ রান নিয়ে অবশ্য আর মাত্র ১১৩ রান যোগ করেই বাকি ৮ উইকেট হারিয়েছে তারা। নাফীস ১৮৫ বলে ১৩ চারে ৯৬ এবং মিঠুন ১৭৫ বলে ১৪ চারে ৯৫ রান করে ফিরে যাওয়ার পর আর কোন ব্যাটসম্যান সুবিধা করতে পারেননি। ৩৮৫ রানেই গুটিয়ে যায় তাদের প্রথম ইনিংস। দিন শেষে অবশ্য ৩ উইকেটে ১৫৯ রান তুলে ভাল জবাবই দিচ্ছে পূর্বাঞ্চল। ওপেনার সাদমান ইসলাম ১৬৬ বলে ১৩ চারে ৮৬ রান করে ব্যাট করছেন এখনও। তবে ২২৬ রানের বড় ব্যবধানে পিছিয়ে আছে এখনও পূর্বাঞ্চল। মিরপুরে জমে উঠেছে মধ্যাঞ্চল-উত্তরাঞ্চল লড়াই। মধ্যাঞ্চলের প্রথম ইনিংস ২৮৯ রানে শেষ হয়ে যায়। তাইজুল ৫ উইকেট শিকার করেন। দ্রুত রান তুলতে গিয়ে উত্তরাঞ্চল প্রথম ইনিংস শেষ করে ২৮৭ রানে। ৯৯ রানে ৫ উইকেট হারালেও সাব্বির রহমানের ৮৪ বলে ১১ চার ও ১ ছক্কায় করা ৭৫ এবং ফরহাদ হোসেনের ৬৭ রানে কিছুটা সম্মানজনক ইনিংস গড়ে তারা। শুভাগত দারুণ বোলিং করে ৫ উইকেট নেন। দিনশেষে দ্বিতীয় ইনিংসে ২ উইকেটে ২১ রান তুলে ২৩ রানে এগিয়ে গেছে মধ্যাঞ্চল।

স্কোর ॥ দ্বিতীয় দিন শেষে, দক্ষিণাঞ্চল-পূর্বাঞ্চল ম্যাচ-চট্টগ্রাম

দক্ষিণাঞ্চল প্রথম ইনিংস ॥ আগের দিন ২৭২/২; ৭০ ওভার (মিঠুন ৮৮*, শাহরিয়ার ৭৯*, ইমরুল ৫৬, ১/৪৫) ও দ্বিতীয় দিন- ৩৮৫/১০; ১০৯.২ ওভার (শাহরিয়ার ৯৬, মিঠুন ৯৫, রাজ্জাক ৩৫; আবুল ৩/৩১, অপু ৩/৭৮)।

পূর্বাঞ্চল প্রথম ইনিংস ॥ দ্বিতীয় দিন শেষে- ১৫৯/৩; ৫০ ওভার (সাদমান ৮৬*, লিটন ৩৮; সোহাগ ২/৩৯, রাজ্জাক ১/৪২)।

মধ্যাঞ্চল প্রথম ইনিংস ॥ আগের দিন ২৭৮/৮; ৯০ ওভার (মাহমুদুল্লাহ ১১৩, মার্শাল ৮৭, শহীদ ২১*, তাইজুল ৪/১০৬) ও দ্বিতীয় দিন- ২৮৯/১০; ৯২ ওভার (শহীদ ৩২; তাইজুল ৫/১১৩, দেলোয়ার ২/৪২) ও দ্বিতীয় ইনিংস- ২১/২; ১২ ওভার (মজিদ ১০*, মাহমুদুল্লাহ ৪*; মাহমুদুল ১/৫)। উত্তরাঞ্চল প্রথম ইনিংস- ২৮৭/১০; ৭১.৫ ওভার (সাব্বির ৭৫, ফরহাদ ৬৭, মুক্তার ৪২, নাসির ৩৪; শুভাগত ৫/৭৮, শহিদুল ৪/৫৫)।

প্রকাশিত : ২৬ মে ২০১৫

২৬/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: